৫ জানুয়ারির নির্বাচন না হলে দেশে মার্শাল ল’ থাকতো রাজশাহীতে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে নাসিম

17

nasimnews

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ষড়যন্ত্রের মহারাণী। তিনি নির্বাচিত সরকারকে হটানোর জন্য দেশি-বিদেশিদের সাথে নিয়ে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন। অথচ ৫ জানুয়ারি নির্বাচন না হলে দেশে গণতন্ত্র থাকতো না, মার্শাল ল’ থাকতো। দেশের উন্নয়ন ও মুখ উজ্জ্বল করার উদাহরণ দিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘ক্রিকেটার তাইজুল কয়েকদিন আগে খেলায় যেমন হেটট্রিক করে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে, ঠিক তেমনি আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা তৃতীয়বার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে হেটট্রিক করবেন।’

গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের উদ্বোধনী ও সমাপনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ২০১৯ সালের আগে দেশে আর কোনো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে না, এমন ইঙ্গিত দিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘২০০৮ সালে যে ট্রেন রাজশাহী থেকে চলে গেছে, তা আগামী ২০১৯ সালের আগে আর ফিরে আসবে না।

২০১৯ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতীয় নির্বাচনে তিনি আবারও প্রধানন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে হেটট্রিক করবেন।’ বিকালে প্রায় ৩০ হাজার নেতাকর্মী ও সমর্থকের উপস্থিতিতে মোহাম্মদ নাসিম এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলের দ্বিতীয় অধিবেশনে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব্ব ওমর ফারুক চৌধুরীকে সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের এক নম্বর যুগ্ম-সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত ঘোষণা করেন। এর আগে দুুপুর সাড়ে ১২টায় ফেস্টুন, বেলুন, শান্তির প্রতীক পায়রা, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, শোক প্রস্তাব ও ১ মিনিট নীরবতা পালনের মধ্যে দিয়ে কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশনের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও অতিথিবৃন্দ।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের বিদায়ী কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মিসেস আকতার জাহানের সভাপতিত্বে কাউন্সিলে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি।  তিনি বলেন, আমি রাজশাহীতে কোনো রাজনৈতিক বক্তব্য দিতে চাই না। কারণ রাজনৈতিক বক্তব্য দিলে সেগুলো মিডিয়াতে ৪-৫ দিন ধরে ফলাও করে প্রচার করা হয়। কাউন্সিলে অনেকেই রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়েছেন, আশা করি তাদের বক্তব্যই মিডিয়া ৪-৫ দিন ধরে ফলাও করে প্রচার করবে।

কাউন্সিলে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি ও জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপি, বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও রাসিকের সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি ও এসএম কামাল হোসেন এমপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here