১০৭ বছরের বৃদ্ধা সিরিয়া যুদ্ধ থেকে পালিয়ে জার্মানিতে পরিবারের মাঝে ।

16

sabria-khalafসিরিয়ায় চলমান যুদ্ধ থেকে প্রাণ বাঁচাতে সাত মাস আগে মাতৃভূমি ছেড়েছেন ১০৭ বছর বয়েসী সাবরিয়া খালাফ। তার এক ছেলে কিনানকে নিয়ে সিরিয়া ছাড়ার পর তুর্কি হয়ে গ্রিস এবং সেখান থেকে অবশেষে জার্মানিতে গোটা পরিবারের সঙ্গে মিলিত হয়েছেন ওই অশীতিপর বৃদ্ধা। সেখানে তাকে স্বাগত জানিয়েছেন তার পরিবারের বিশ সদস্য যাদের মধ্যে নাতীর ঘরের সদ্যজাত শিশুটি পর্যন্ত ছিলো। সিরিয়া যুদ্ধের কারণে কয়েক লাখ সিরিয়ান আজ বিভিন্ন দেশে শরণার্থী হয়েছেন। জার্মানি ১০ হাজার সিরিয়ান শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়া ঘোষণা দিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সিরিয়ার সংখ্যালঘু গোষ্ঠী কুর্দি অধ্যুষিত এলাকা থেকে ওই বৃদ্ধাকে জার্মানে অবস্থানরত তার পরিবারের কাছে পাঠানো হয়েছে।
ইউরোপিয় ইউনিয়নের নিয়ম অনুযায়ী কোনো শরণার্থী প্রথম যে ইইউ-ভুক্ত দেশে প্রবেশ করবেন, তাকে সে দেশের আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে। সিরিয়া যুদ্ধের কারণে শরণার্থীদের ব্যাপক চাপ পড়েছে ভূমধ্যসারগরীয় দেশ গ্রিসে। এখানে সাবরিয়া খালাফ গত দুই মাস কাটিয়েছেন।
গ্রিসের নাগরিকত্ব পরিবর্তন এবং শরণার্থী সংক্রান্ত বিভাগের মুখপাত্র ক্রিস্টোফার স্যান্ডার বলেন, মানবাধিকার আইনের আওতায় খালাফকে জার্মানিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
মিউনিখের একটি দৈনিকে চলতি মাসের শুরুর দিকে খালাফকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। তা দেশটির আইনপ্রণেতাদের চোখে পড়ে এবং তারা জার্মানির প্রেসিডেন্ট জোয়াকিম গো-কে তা অবগত করেন। তাদের অনুরোধে সাবরিয়াকে জার্মানে নেওয়ার আমলাতান্ত্রিক জটিলতা সামলান প্রেসিডেন্ট। আর এরই ফলশ্রুতিতে জীবনের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়ানো এক বৃদ্ধা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের মৃত্যু কূপ থেকে তার পরিবারের কাছে ফিরতে পারলেন। সূত্র : হাফিংটন পোস্ট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here