হোসেইন মোহাম্মদ এরশাদ অসুস্থ্য। রওশনের নেতৃত্বে লাঙ্গল প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করছেন।

8

52a190cd4f776-download--2-জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আজ বৃহস্পতিবার রাতে তাঁকে বারিধারার বাসা থেকে আটক করা হয় বলে জাতীয় পার্টি সূত্র দাবি করেছে। তবে র‌্যাব-১ বলেছে, অসুস্থ হওয়ায় তাঁকে সিএমএইচে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ  বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সাবেক রাষ্ট্রপতিকে নিয়ে গেছেন। এ সময় এরশাদের গাড়ির সামনে-পেছনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কমপক্ষে ২০টি গাড়ি ছিল। তবে র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল কিসমত হায়াত  জানান, সাবেক এই রাষ্ট্রপতি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) যাওয়ার পথে নিরাপত্তার স্বার্থে র‌্যাবের সদস্যরা তাঁর সঙ্গে গেছেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, সাবেক রাষ্ট্রপতির সঙ্গে একই গাড়িতে ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবং নির্বাচনকালীন সরকারের বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রুহুল আমিন হাওলাদার এবং মহিলাবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম।

এদিকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া বিষয়ে কয়েক দিন ধরেই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের সঙ্গে সরকারের মতবিরোধ চলছিল।

প্রথমে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে প্রস্তুতি নিলেও মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর নাটকীয়ভাবে নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দেন এরশাদ। এ নিয়ে প্রথমে কাজী জাফর আহমেদের সঙ্গে এরশাদের বিরোধ তৈরি হলে পাল্টা জাতীয় পার্টি গঠনের ঘোষণা দেন কাজী জাফর। নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণার পর রওশন এরশাদ, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদসহ অন্যদের সঙ্গে মতবিরোধ তৈরি হয় এরশাদের। আজ বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়ে কাউকে লাঙ্গল প্রতীক বরাদ্দ না দেওয়ার অনুরোধ জানান এরশাদ।

অন্যদিকে সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে দেখা করেন রওশন এরশাদ। অন্যদিগে বেগম রওশন এরশাদ কে পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এর  দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, এবং জাতীয় পার্টি আগামি নির্বাচনে রওশনের নেতৃত্বে লাঙ্গল প্রতিক নিয়ে  অংশ গ্রহন করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here