হরতালের আগুনে ফের দগ্ধ তিন পরিবহন শ্রমিক

17

রাজধানীর মিরপুর, ধানমন্ডি ও ময়মনসিংহে ১৮ দলের টানা ৮৪ ঘণ্টার হরতালে পিকেটারদের দেয়া আগুনে বাসের হেলপার রনি (১৩), পিকআপ চালক শাবু (৩৬) এবং মাইক্রোবাস চালক হারুন অর রশিদ (৩২) নামে তিনজন গুরুতর আহত হয়েছে। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। হরতাল শুরুর আগের রাত ও গতকাল হরতালের প্রথম দিন এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

গতকাল মিরপুরে পিকেটাররা একটি বাসে আগুন দিলে সে সময় বাসের ভেতর শুয়ে থাকা হেলপার মোহাম্মদ রনি (১৩) আগুনে পুড়ে যায়।

আহত রনি জানায়, সে জনসেবা পরিবহন নামের বাসের হেলপার। শনিবার রাতে আশুলিয়ার জামগড়ায় যাত্রী নামিয়ে দিয়ে বাস নিয়ে রাত সাড়ে আটটার দিকে মিরপুর ১ নম্বরের মাজার রোড বেড়িবাঁধের কোনাবাড়ি বাসস্ট্যান্ডে আসে। বাস পার্কিং করে রনি বাসায় যেতে চাইলেও চালক শাহিন রনিকে বাসের ভেতরে ঘুমাতে বলে। রনি বাসে ঘুমিয়ে পড়লে গতকাল ভোর পাঁচটার দিকে তার গায়ে আগুন লেগেছে টের পেয়ে সে ঘুম থেকে চিৎকার দিয়ে ওঠে। তখন গোটাবাসে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছিল। এ সময় রনি পা দিয়ে বাসের জানালার কাচ ভেঙে বাইরে বের হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করে। আহত রনি সাভারের ব্যাংক টাউন এলাকায় তার পরিবারের সঙ্গে বসবাস করত। সে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের মোহাম্মদ আলমাস মিয়ার ছেলে। এ ব্যাপারে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন পার্থ শংকর পাল জানান, রনির শরীরের ১৩ শতাংশ পুড়ে গেছে। তবে ধোঁয়ার কারণে শ্বাসকষ্ট হওয়ায় এখন তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

শনিবার রাতে ধানমন্ডির ১৩ নম্বরের বিরানি হাউজের সামনে পিকআপ ভ্যানে তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় তিন পিকেটার একটি। সে সময় এই ঘটনায় শাবু নামে এক পিকআপ চালক গুরুতর অগি্নদগ্ধ হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সিটি হাসপাতালে নেয়। শাবু খুলনা খালিশপুরের লাল মিয়ার ছেলে। তিনি শ্যামলী হাউজিং দ্বিতীয় প্রকল্পের ৪ নম্বর রোডের ৩৮ নম্বর বাড়িতে থাকেন।

অন্যদিকে শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে ময়মনসিংয়ের আমিরাবাদ তালাকপাড়ায় পিকেটাররা একটি মাইক্রোবাসে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। সে সময় চালক হারুন অগি্নদগ্ধ হন। দগ্ধ হারুন জানান, তিনি গ্রামীণ রেন্ট এ কার নামের একটি প্রতিষ্ঠানের গাড়ি চালান। হারুন সিলেট শাহপরানের ইসলামপুর গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, তার শরীরের ২৪ শতাংশ পুড়ে গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here