সীতাকুণ্ডে জামায়াত-শিবিরের নাশকতা ঠেকাবে আওয়ামী লীগ

52

চট্টগ্রাম ব্যুরো
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডে জামায়াত-শিবিরের অব্যাহত নাশকতা প্রতিরোধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। সাংগঠনিক নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে দলের মধ্যে সমালোচনার পর গতকাল শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর দোস্ত বিল্ডিংয়ে সীতাকুণ্ডের পরিস্থিতি মোকাবিলায় করণীয় নিয়ে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, সীতাকুণ্ড উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবিএম আবুল কাশেম মাস্টার এবং সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়ার দ্বন্দ্ব ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে নিষ্ক্রিয়তায় জামায়াত-শিবির এই নাশকতা চালাচ্ছে। আওয়ামী লীগের উত্তর জেলা সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এই দুই নেতা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম। যে কোনো মূল্যে সন্ত্রাস-নৈরাজ্য প্রতিরোধের ঘোষণা দিয়ে এমএ সালাম বলেন, সভায় ঐক্যবদ্ধভাবে জামায়াত-শিবিরের নাশকতা প্রতিরোধের ঘোষণা দিয়েছেন স্থানীয় নেতারা। নির্বাচনকে সামনে রেখে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতায় গত দেড় মাসে অন্তত ১৫ দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড অংশে নাশকতা চালানো হয়। এ জন্য স্থানীয় জামায়াত-শিবির ও বিএনপি নেতাকর্মীদের দায়ী করছেন এলাকাবাসী ও পুলিশ। এসব সহিংসতার ঘটনায় চার শতাধিক যানবাহন ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। সবশেষ গত বুধবার স্থানীয় এক জামায়াত নেতাকে ‘হত্যা’ করা হয়েছে দাবি করে মহাসড়কে তাণ্ডব চালায় জামায়াত-শিবির। ওইদিন জামায়াত-শিবিরকর্মীরা বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাদাকাত উল্লাহসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বাড়িতে আগুন দিয়ে ভাঙচুর চালায়।
ফখরুলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে- হাছান মাহমুদ: নির্বাচনকালীন সরকারের বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম এক সভায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, শুধু গাড়ি ভাঙচুর করলেই হবে না, রাস্তায় নেমে আন্দোলন করতে হবে। তার এই স্বীকারোক্তিমূলক বক্তব্যের ভিত্তিতেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
গতকাল বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে মির্জা ফখরুলের বক্তব্যের জবাব দিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, ১৮ দলীয় জোট কেবল ক্ষমতায় যাওয়ার জন্যই জ্বালাও-পোড়াও আন্দোলন করছে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মানুষকে জিম্মি করার রাজনীতি ত্যাগ করে আপনারা নির্বাচনে আসুন। নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভায় জাতীয় পার্টিকে যেভাবে সম্মান দেয়া হয়েছে, বিএনপিকে তার চেয়েও বেশি সম্মান দেয়া হবে। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ-উত্তর জেলার সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজম নাছির উদ্দিন, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক বেদারুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here