সিদ্ধান্ত থেকে সরলে মৃত্যু ছাড়া পথ নেই: এরশাদ

11

52a09a8f7e328-ershad

জাতীয় পার্টি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেখান থেকে সরে এলে মৃত্যু ছাড়া কোনো পথ নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ।আজ বৃহস্পতিবার রাতে বারিধারার বাসভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এরশাদ এ মন্তব্য করেন।

আজ সারা দিন এরশাদ তাঁর বাসভবন প্রেসিডেন্ট পার্কে দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেন। এরপর রাত ১০টার দিকে এরশাদ সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার জন্য নিচে নামেন। সকালের দিকে প্রেসিডেন্ট পার্কের আশপাশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি তেমন একটা চোখে না পড়লেও সন্ধ্যার পর র‌্যাব-পুলিশের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক সদস্যকে তাঁর বাড়ির চারপাশ ঘিরে থাকতে দেখা যায়। সন্ধ্যাবেলায় একটি বিশেষ গোয়েন্দা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাঁর সঙ্গে দুই ঘণ্টা বৈঠক করেন।

বিকেলে নির্বাচনকালীন সরকারে থাকা দলের চারজন মন্ত্রী এরশাদের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। এঁরা হলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য জি এম কাদের, মজিবুল হক চুন্নু ও সালমা ইসলাম। আজ রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু পদত্যাগপত্র জমা দেননি। তবে এরশাদ বলেছেন, ‘ওঁরা সবাই পদত্যাগপত্র জমা দেবেন। এই অন্তিম সময়ে কেউ আমাকে ছেড়ে যাবেন না।’ এরশাদের স্ত্রী ও জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদ কেন পদত্যাগপত্র জমা দেননি জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, ‘দেবে দেবে, ও তো আমার বউই।’

প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগপত্র জমা না দিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত কেন জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, ‘আমার স্ত্রীর মতে, তাঁরা শপথ নিয়েছেন রাষ্ট্রপতির কাছে। তাই পদত্যাগপত্রও তাঁর কাছেই জমা দিতে হবে।’

প্রেসিডেন্ট পার্কের সামনে থেকে নুরুল ইসলাম বাবুলকে আটকের চেষ্টা প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, ‘আমি ফোন করে জানতে পারি, ওরা ভাবছে আমি একটা বাচ্চা ছেলে, ক্লাস ফাইভে পড়ি আর বাবুল আমাকে শিক্ষা দেয়। ওর স্ত্রী মন্ত্রিসভায় আছে। স্বাভাবিকভাবেই সে আমার কাছে আসতে পারে, আলোচনা করতে পারে।’ গোয়েন্দা সংস্থার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উপস্থিতি তাঁকে ব্যথিত করছে বলে উল্লেখ করেছেন এরশাদ। তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক নয়। আমি একজন রাজনীতিবিদ। আমার নেতা-কর্মীরা সারা রাত এখানে বসে থাকে। আমি ওপরে ঘুমাই। সবাই আশঙ্কা করছে আমাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হবে, গ্রেপ্তার করা হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কোনো যোগাযোগ হয়েছে কি না, জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে, কিন্তু তাঁর সঙ্গে কথা হয়নি। বিরোধীদলীয় নেতার সঙ্গে কথা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের কোনো জবাব দেননি তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here