সহিংসতায় ১৯ জনের প্রাণহানি

14

election Violenদশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আজ রবিবার দেশের বিভিন্ন জায়গায় সহিংসতায় এ পর্যন্ত ১৯ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত সহিংসতায় দিনাজপুরে তিনজন, ঠাকুরগাঁয়ে তিনজন, রংপুর, নিলফামারী ও ফেনীতে দুইজন করে এবং চট্টগ্রাম, লালমনিরহাট, যশোর, গাইবান্ধা, লক্ষীপুর, নওগাঁ ও মুন্সিগঞ্জে একজন করে নিহত হয়েছেন।

দিনাজপুর অফিস: জেলায় এ পর্যন্ত সংগঠিত সহিংসতায় একজন আনসার কমান্ডারসহ তিনজন নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তিনজন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩২ জন। সংঘর্ষের ঘটনায় ৬০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

পার্বতীপুরের উত্তর শালন্দার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুর্বৃত্তদের হামলায় আনসারের প্লাটুন কমান্ডার ওয়াহেদ আলী (৩২) নিহত হন। এছাড়াও প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশসহ ৩২ জন আহত হয়েছেন। একই উপজেলার মন্মথপুর কেন্দ্রে সহিংসতায় জাগপার যুগ্ম-আহ্বায়ক মাসুদ রাইহান (২৪) মারা গেছেন। মন্মথপুর ইউনিয়নের হয়রতপুর গ্রামের বিএনপি কর্মী চুন্নুর (৩০) লাশ তার বাড়ির সামনে পাওয়া গেছে। এছাড়াও জেলার সদর উপজেলার নশিপুর প্রাথমিক সরকারী বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৮ দল সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষে বাবুল (২৮) নামে এক বিএনপি কর্মী নিহত হয়েছেন।

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: জেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় আজ তিনজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, বিএনপিকর্মী জয়নাল আবেদিন (৩০), হারুন (৪০) ও আবু হানিফ (৩০)। সদর উপজেলার বাসুদেবপুর ভোটকেন্দ্রে হামলায় পুলিশের ‘গুলিতে’ বিএনপি কর্মী জয়নাল আবেদিন (৩০) ও হারুন (৪০) নামে দুই বিএনপি কর্মী নিহত হয়েছেন। গড়েয়া গোপালপুরে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আবু হানিফ (৩০) তীরের আঘাতে নিহত হন। এছাড়াও শনিবার রাতে সদর উপজেলা ছেপড়ীগুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুর্বৃত্তদের হাতে সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার জবায়দুল হক (৫০) নিহত হন।

ফেনী প্রতিনিধি: সোনাগাজীতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জামশেদ আলম ও শহিদুল্লা নামে দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন। সকাল ১০টার দিকে একদল দুর্বৃত্ত অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে উত্তর চরচান্দিয়া বড়বাড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসে ভোট গ্রহণে বাধা দেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে শুরু হয় সংঘর্ষ। এতে জামশেদ ঘটনাস্থলেই নিহত হন। সোনাগাজী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা গেছেন শহীদুল্লা।

নিলফামারী প্রতিনিধি: ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টাকালে ডিমলা ও জলঢাকায় জামায়াত-পুলিশ সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। ভোররাতে ডিমলায় জামায়াতকর্মী জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) ও সকালে জলঢাকায় জামায়াতকর্মী মমতাজউদ্দীন নিহত হন। ভোররাত তিনটার দিকে ব্যাপারীতলা আলিম মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা করে উপজেলা জামায়াতের নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম নিহত হন। এছাড়া সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জলঢাকা উপজেলার কইমারি ইউনিয়নের বালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে হামলা চালায় ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মী। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জামায়াতকর্মী মমতাজউদ্দীন নিহত হন।

রংপুর অফিস: মহানগরীর দেউতি বাজারে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে দুই জামায়াত কর্মী নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও দুইজন। নিহতরা হলেন, মেরাজুল ইসলাম মেরাজ ও হাদীউজ্জামান হাদী।

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: রামগঞ্জে ব্যালটপেপার ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে রুবেল নামে এক শিবিরকর্মী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। উপজেলার মাছিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: টঙ্গীবাড়ি ভোটকেন্দ্রে হামলার চেষ্টাকালে পুলিশের ধাওয়ায় পুকুরে পড়ে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। কাঠাদিয়া-শিমুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

নওগাঁ প্রতিনিধি: মান্দা আসনের নুরুল্ল্যাবাদ ইউনিয়নের রামনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটদানে বাধা প্রদানকে কেন্দ্র করে যৌথ বাহিনীর সঙ্গে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত বাবুল হোসেন (৩৫) নামে একজন রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

গুলিবিদ্ধরা হলেন, রহিদুল ইসলাম (৩৮), রাজু আহম্মেদ (১৭), উজ্জল হোসেন (২২) ভুট্টু কারিগর (২৬), রাকিব আহম্মেদ (২৭), জুয়েল রানা (৩২), ও গোলাম রব্বানী (৩০)। গুলিবিদ্ধ সকলেই মান্দা উপজেলার চকদেবীরাম গ্রামের। নিহত বাবুল হোসেন একই্ গ্রামের নজের আলী কারিগরের ছেলে।

চট্টগ্রাম অফিস: লোহাগড়া উপজেলার বড় হাতিয়া ভবানীপুর কেন্দ্রে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) সদস্যের গুলিতে মিজানুর রহমান লালু নামে এক শিবির কর্মী নিহত হয়েছেন। তিনি বড় হাতিয়া এলাকার কামাল উদ্দিন ছেলে। বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

যশোর অফিস: মনিরামপুরে পুলিশের ‘গুলিতে’ মতিয়ার রহমান নামে একজন নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার দুর্বাডাঙ্গা ইউনিয়নের বাজিতপুর কেন্দ্রে দুপুর একটার দিকে নির্বাচনবিরোধী লোকজনের ওপর পুলিশ গুলি ছোড়ে। ঐ সময় গুজব ছড়িয়ে পড়ে পুলিশের গুলিতে দুইজন আহত হয়েছেন। কিন্তু তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে বিকাল পাঁচটার দিকে গুলিবিদ্ধ মতিয়ার রহমান চিকিত্সাধীন অবস্থায় নিজ বাড়িতে মারা গেছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। পুলিশের এএসপি হেডকোয়ার্টার রেশমা শারমীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, লাশ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। তার রাজনৈতিক পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here