লক্ষ্মীপুর রণক্ষেত্র, নিহত ৫

11

Luxmipurলক্ষ্মীপুরে আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযানে র‌্যাব সাথে ১৮ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সাবুসহ ৫০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে জেলা শহরের চকবাজার, ঝুমুর সিনেমা ও এলজিইডি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, জেলা যুবদলের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ জুয়েল, লাহারকান্দি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মাহবুবুর রহমান (৪৫) ও শহরের বাঞ্চানগর গ্রামের হুমায়ুন কবিরের ছেলে শিহাব উদ্দিন (১৫) ও একই গ্রামের সুমন (৩৫), অপরজনের পরিচয় জানা যায়নি।

গুলিবিদ্ধদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনার প্রতিবাদে জেলা বিএনপি এক বিবৃতিতে শনিবার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল আহবান করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সোয়া ৬টার দিকে র‌্যাব সদস্যরা জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সাবু’র বাস ভবনের গেট ভেঙে তাকে গ্রেফতার করতে গেলে পরিবারের সদস্যরা তাদের বাধা দেয়। এসময় ‌’র‌্যাব সদস্যরা সাবু’র পায়ে গুলি’ করে তাকে ও তার ছোট ভাই আজিজুল করিম বাচ্চুকে আটক করে নিয়ে যায়। এসময় সাবু’র ব্যবহৃত ৩টি গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। পরে শহরের চকবাজার এলাকায় বিএনপি’র একটি মিছিলে ‘গুলি চালায় র‌্যাব সদস্যরা’। এসময় জেলা যুবদলের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ জুয়েলসহ তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ইকবাল মাহমুদ জুয়েল নিহত হয় বলে দলীয় সূত্রে দাবি করে। তবে সদর থানা ওসি ইকবাল হোসেন ঘটনাটি এড়িয়ে যান।

এখবর ছড়িলে পড়লে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বিক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠে ১৮ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীরা। এসময় শহরের সোনালী ব্যাংকে অগ্নিসংযোগের চেষ্টাসহ সড়কে গাছ কেটে সড়ক অবরোধসহ আগুন জ্বালিয়ে ২০/২৫টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় তারা।

এর কিছুক্ষণ পর শহরের বাগবাড়ি, ঝুমুর সিনেমা ও এলজিইডির সামনে র‌্যাবের সাথে ১৮দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় আরো ৫০ জন গুলিবিদ্ধ হয়। গুলিবিদ্ধরা হলেন, ইকবাল মাহমুদ (২৮), পরান (২৫), তারেক (২০), রাজিব (২২), ওসমান (২২), টিপু (১৮), কামাল উদ্দিন (৩২), মাহমুদ (২৬), তারেক উদ্দিন (৩২), মাহফুজ উদ্দিন (১৮), কামাল (২৫), মানিক (২২), শিমুল (১৫), আনোয়ার হোসেন (৪০), নুরুল আমিন (৩৩), শরিফ (১৯), মোঃ চৌধুরী (১৬), গিয়াস উদ্দিন (২৮), রেজাউর করিম (২২), সেলিম উদ্দিন (৩৮), মফিজ (৩৫), রিমন (১৮), নিজামসহ (২০) আহতদের সদর হাসপাতালসহ অন্যান্য কিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গুলিবিদ্ধ সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মাহবুবুর রহমান (৪৫) ও শহরের বাঞ্চানগর গ্রামের হুমায়ুন কবিরের ছেলে শিহাব উদ্দিন (১৫) ও একই গ্রামের জয়নাল আবদিনের ছেলে সুমন (৩৫) নামের ১৮ দলীয় জোটের ৩ কর্মী নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফয়েজ আহম্মদ ভূঁঞা ।

লক্ষ্মীপুর বনবিভাগের সামনে উত্তেজিত জনতা র‌্যাব সন্দেহে অজ্ঞাত এক ব্যাক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে। ঘটনার পর ঢাকা-রায়পুর সড়কের ২০ কিঃ মিঃ রাস্তায় গাছ কেটে ও গাছের গুড়ি ফেলে ১৮দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা সড়ক অবরোধ কারলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে র‌্যাব সদস্যরা। এসময় তারা লক্ষ্মীপুর পুলিশ লাইনে অবস্থান নেয়। র‌্যাব সদস্যদের উদ্ধারের জন্য দুপুর আড়াই টার সময় র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে ২টি হেলিকপ্টার এসে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যায়। জেলা সদরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here