যে সব পণ্যের দাম কমতে ও বাড়তে পারে

45

komকমতে পারে যে সব পণ্যের দাম

 

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বেশ কিছু পণ্যে শুল্ক, মূল্য সংযোজন কর (মূসক) ও সম্পূরক শুল্ক কমানো বা প্রত্যাহারের প্রস্তাব করেছেন। এসব প্রস্তাব অনুমোদন পেলে ওই সব পণ্যের দাম কমবে। যে সব পণ্যের দাম কমতে পারে—
সিম কার্ড: মোবাইল ফোনের সিম কার্ড আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে।
থ্রি হুইলার: দুই স্ট্রোক ও চার স্ট্রোকবিশিষ্ট থ্রি হুইলার বা অটোরিকশার ইঞ্জিন আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ২০ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশে প্রস্তাব করা হয়েছে।
চশমা: চশমা ও রোদচশমা আমদানির ওপর সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে ১৫ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব।
শিশুদের খেলনা: ট্রাইসাইকেল বা ত্রিচক্রযান, স্কুটার, প্যাডেল কার ও পুতুলসহ বিভিন্ন খেলনা আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ৩০ থেকে ২০ শতাংশে প্রস্তাব।
পটেটো চিপস: পটেটো চিপস আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ৬০ থেকে কমিয়ে ৪৫ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব।
ইন্টারনেট: ইন্টারনেট সংযোগ দ্রুত ও গতিশীল করতে এর উপকরণ মাল্টিপ্লেক্সার ও গ্র্যান্ডমাস্টার ক্লক আমদানিতে ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক ও ৫ শতাংশ নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্কের পরিবর্তে শুধু ৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।
মশার কয়েল: মশার কয়েল ও অ্যারোসল আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ৪৫ থেকে ৩০ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে।
সাবান ও ডিটারজেন্ট: সাবান ও ডিটারজেন্ট আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ২০ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশে ধার্যের প্রস্তাব করা হয়েছে।

জন্মনিরোধক সামগ্রী: জনসংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে সব ধরনের জন্মনিরোধক সামগ্রীর ওপর ব্যবসায়ী পর্যায়ে প্রযোজ্য মূসক অব্যাহতির প্রস্তাব।

রড: বিলেটের কাঁচামাল, স্পঞ্জ আয়রন ও রিডিউসড আয়রনের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের প্রস্তাব।ফলে রডসহ লৌহ ও ইস্পাত শিল্পের বিভিন্ন পণ্যের দাম কমতে পারে।

ডায়াপার: শিশুদের ডায়াপার তৈরির কাঁচামালের ওপর আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে।

ফিলামেন্ট ল্যাম্প: দেশে উত্পাদিত ফিলামেন্ট ল্যাম্পের ওপর আরোপিত ১৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে।

মেডিটেশন সেবা: এই সেবার ওপর বর্তমানে প্রযোজ্য মূসক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে।

ক্যানসারের ওষুধ: ক্যানসারের ওষুধ তৈরির ১৪টি কাঁচামালের ওপর থেকে বিদ্যমান শুল্কহার সম্পূর্ণ মওকুফের প্রস্তাব করা হয়েছে। সেই সঙ্গে থ্যালাসেমিয়া রোগীদের জন্য অত্যাবশ্যক ইনফিউশন পাম্পের আমদানি শুল্ক সম্পূর্ণ মওকুফের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

কিডনি রোগের চিকিত্সা: স্থানীয় পর্যায়ে কিডনি ডায়ালিসিস সলিউশনের ওপর প্রযোজ্য মূল্য সংযোজন কর (মূসক) সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে করা হয়েছে।

আয়ুর্বেদিক ওষুধ: আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরির ৪১টি কাঁচামালের ওপর ১০-২৫ শতাংশ হারে আরোপিত শুল্ক কমিয়ে ৫ শতাংশে আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

হাঁসমুরগি ও গবাদিপশু: হাঁস-মুরগি ও গবাদিপশু খাতের উপকরণ ও কাঁচামালের শুল্ক সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের প্রস্তাব রয়েছে বাজেটে।

অমসৃণ হীরা, ইমিটেশন গহনা: অমসৃণ হীরা, ইমিটেশন গহনা, স্টেইনলেস ব্লেড, রান্নার তৈজসপত্র, স্টিলের সিঙ্ক, বেসিন, পানির কল, বাথরুম সরঞ্জাম, স্যানিটারি আইটেমের শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশ করা হয়েছে।

 

দাম কমতে পারে আরও যে সব পণ্যের

বৈদ্যুতিক বাতি ও এর ফিটিংস, সার্চ ও স্পট লাইটসহ এ ধরনের যন্ত্রাংশ; মিষ্টি বিস্কুট ও ওয়েফার; সাবান তৈরির কাঁচামাল ন্যুডল; বিভিন্ন ধরনের পেইন্ট ও ভার্নিশ (এনামেল লেকারসহ; বিভিন্ন সুগন্ধি; প্রসাধনী ও সৌন্দর্য পরিচর্যার পণ্য; গ্যাস টিউব, ফ্লোট গ্লাস, পলিশড গ্লাস, ফ্রেমযুক্ত ও ফ্রেমবিহীন কাচের আয়না; ইট, টাইলস, মোজাইকসহ নানা নির্মাণসামগ্রী; গ্যাস পাইপ; অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল; ফিল্টার; ট্রান্সফরমার (১-৫০০ কেভি পর্যন্ত); দিয়াশলাই; সব ধরনের পার্টিক্যাল বোর্ড, হার্ড বোর্ড, প্লাইউড, দরজা, জানালা, অ্যাঙ্গেল ও প্যানেল; তাজা ও হিমায়িত মাছ; মাখন ও অন্যান্য দুগ্ধজাত পণ্য; চর্বি ও তেল; টমেটো; তাজা ও শুকনা সুপারি; গ্লুকোজ ও গ্লুকোজ সিরাপ; কোকাবিহীন সুগার কনফেকশনারি; কোকাযুক্ত চকলেট ও তা দিয়ে অন্যান্য খাদ্য তৈরির উপাদান; ফিনিশড বা সম্পূর্ণ তৈরি চকলেট; পাস্তা ও পাস্তাজাতীয় খাবার; খাদ্যশস্য; ফলের রস; সস ও একই জাতীয় পণ্য; আইসক্রিম; সালফিউরিক এসিড ও ওলিয়াম; স্যাকস ও ব্যাগ; প্রিন্টেড লেভেল; ছাপানো বই, ব্রশিউর, লিফলেট ও সমজাতীয় পণ্য; ছাপানো ছবি; রেশম বস্ত্র, ওভেন ফ্যাব্রিক্স, ট্র্যাকস্যুটসহ অন্যান্য পোশাক; ব্রেসিয়ার, রুমাল, শাল, টাই, গ্লাভস, গার্ডল ও করসেট; কৃত্রিম ফুল ও ফল; ম্যাঙ্গানিজ ডাই অক্সাইড; সাউন্ড রেকর্ডিংস ও ভিডিও রেকর্ডিংস; ডিশের তার ও অন্যান্য বিদ্যুত্ পরিবাহী; ল্যাম্প কার্বন, ব্যাটারি কার্বন ও ইলেকট্রিক্যাল কাজে ব্যবহূত পণ্য; মোটর সাইকেলের সিট ও ঘূর্ণমান চেয়ারের সিট; আসবাবপত্র ও এর যন্ত্রাংশ; ম্যাট্রেস; তাস ইত্যাদি।

দাম বাড়তে পারে যে সব পণ্যের

bar

প্রস্তাবিত বাজেটে বেশ কিছু পণ্যের শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। একই সঙ্গে সম্পূরক শুল্ক আরোপ, মূল্য সংযোজন কর (মূসক) আরোপ, সারচার্জ আরোপ, ট্যারিফ বৃদ্ধিসহ রেয়াতি সুবিধা প্রত্যাহার করা হয়েছে। ফলে ওইসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে। যে সব পণ্যের দাম বাড়তে পারে—
মোবাইল ফোনবাজেটে মোবাইল ফোন আমদানিতে মূল্য সংযোজন কর (মূসক) ১০ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশে নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে। মোবাইল ফোন সংযোজনকারী দেশীয় কোম্পানিগুলোর ওপরও অবশ্য উত্পাদন পর্যায়ে ১৫ শতাংশ মূসক প্রযোজ্য আছে।
সিগারেটমানভেদে সিগারেটের ওপর প্রায় ১০ থেকে ১৯ শতাংশ পর্যন্ত কর বাড়ানো হয়েছে। একই সঙ্গে বিড়ি, জর্দা ও গুলের ওপর কর ও শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব আছে বাজেটে।
বাসের টায়ার১৫-১৬ ইঞ্চি রিম সাইজের বাসের টায়ার আমদানিতে বিদ্যমান শুল্ক ও করের সঙ্গে অতিরিক্ত ৫ শতাংশ হারে নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।
এলপিজি সিলিন্ডারদেশীয় শিল্পের রক্ষায় বিদেশি এলপিজি সিলিন্ডারের ওপর আরোপিত আমদানি শুল্ক ৫ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশে প্রস্তাব করা হয়েছে।
বাইসাইকেলের টিউববাইসাইকেলের টিউব আমদানিতে শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ নির্ধারণ করতে বলা হয়েছে।মোটর গাড়িবিভিন্ন হারে সম্পূরক শুল্কহার বাড়ানোর প্রস্তাব থাকায় ১৫০১-২০০০ সিসি পর্যন্ত মোটরগাড়ি, ১৫০০-২৫০০ সিসি পর্যন্ত হাইব্রিড গাড়ি, ২০০০ সিসির ঊর্ধ্বে সিকেডি জিপ, ১৫০১-১৮০০ সিসির মাইক্রোবাস, ১৫ আসনবিশিষ্ট গাড়ি এবং ১৫০০ সিসি ও ১৫০১-২৭৫০ সিসির ডবল কেবিন পিকআপের দাম বাড়বে।

সিম কার্ড প্রতিস্থাপনমোবাইল ফোনের সিম কার্ড হারিয়ে বা খোয়া গেলে কিংবা একই নম্বরের সিম কার্ড পুনরায় প্রতিস্থাপন করতে বা নিতে গেলে ক্রেতাদের ১০০ টাকা হারে শুল্ক/কর দিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here