ম্যাজিষ্ট্রেট হাসান শরীফ’র নেতৃত্বে ১৪ বছর পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন ও হত্যার রহস্য উদঘাটন, আটক ২

35

nk 1
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার পৌরসভাধীন ৩নং ওয়ার্ডের কৌশল্যারবাগ গ্রামে ১৪ বছর আগে নিখোঁজ হওয়া গৃহবধু নুর নাহার (৩০) এর হত্যা রহস্য ফাঁস হওয়ার ১ দিন পর ম্যাজিষ্ট্রেট হাসান শরীফের উপস্থিতিতে আজ বিকেল ৪টায় লাশ উত্তোলন করেছে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ। এ ঘটনায় সামছুন নাহার (৪৮) ও মনোয়ারা বেগম (৭০) কে পুলিশ আটক করে আদালতে সোপর্দ করে এবং ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল সামাদ ও ভিকটিম নুরনাহারের ছেলে নুরুল ইসলাম জানায়, সোনাইমুড়ী পৌরসভাধীন কৌশল্যারবাগ গ্রামের জমাদার বাড়ীর আলী হোসেনের স্ত্রী নুর নাহার ১৯৯৯ সালের অক্টোবর মাসে তার নানার বাড়ী ও পিতার বাড়ী থেকে পাওয়া কিছু জমি বিক্রি করে স্থানীয় চাষীদের কাছে ধানের জমিতে নগদ টাকা দাদন খাটাতো। একই গ্রামের সামছুন নাহার ও তার স্বামী নুরুল আমিন এক মৌসুমে ৩০মন ধান লভ্যাংশ হিসেবে ধান কাটার মৌসুম শেষ হলে লাভসহ মূল টাকা দেওয়ার প্রতিশ্র“তিতে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা দাদন দেয়। সময়মত দাদনের টাকা ও ধান না দেওয়ায় নুর নাহারের সঙ্গে সামছুন নাহার ও তার স্বামীর নুরুল আমিনের বিভিন্ন সময় কথা কাটাকাটি ও ঝগড়া ঝাটি হয়। এক পর্যায়ে তারা নুর নাহারকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। এরপর ২০০০ সালের ৫ জানুয়ারী থেকে নুর নাহার নিখোঁজ হয়। নুর নাহারের আত্মীয় স্বজন ও পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করেও তার কোন সন্ধান পায়নি। আত্মীয় স্বজন ও পরিবারের লোকজন অশিক্ষিত হওয়ার কারণে ভৌতিক বা অন্য কোন অলৌকিক কারণে নিখোঁজ হয়েছে ভেবে থানায় জিডি বা আইনগত কোন ব্যবস্থা নেয় নি। গত ২৩ মার্চ ২০১৪ নুরুল আমিন তার শ্বাশুড়ী মনোয়ারা বেগম এর যোগসাজসে নুরুল আমিনের শ্যালক রইস উদ্দিন ও মাইন উদ্দিনের মালিকীয় ৪৮ শতক ভূমি জাল দলিল করে ১৬ লক্ষ টাকায় বিক্রি করে দেয়। এ ঘটনা জানাজানি হলে রইস উদ্দিনের স্ত্রী সামছুন্নাহার সোনাইমুড়ী থানায় এসে নালিশ করে এবং নুরুল আমিন কর্তৃক নুর নাহার হত্যার ঘটনারও বর্ণনা দেয়। এ বিষয়ে নুরুন্নাহারের ছেলে নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে সোনাইমুড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এলাকায় এ নিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here