মেঘনায় লঞ্চডুবি: ৪৭ লাশ উদ্ধার

15

meghnaমুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার মেঘনায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ এম ভি মিরাজ-৪ এর উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছেন বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান ড. শামসুদ্দোহা খন্দকার। আজ শনিবার সকাল ৯টায় এ ঘোষণা দেন। পরে সকাল সাড়ে ১০টায় স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস ও জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদলের নির্দেশে উদ্ধার কাজ পুনরায় শুরু হয়।

দীর্ঘ ৪১ ঘণ্টা চেষ্টার পর সকাল ৯টায় লঞ্চটিকে উদ্ধার করে তীরের কাছাকাছি নিয়ে আসা হয়। লঞ্চটি উদ্ধারের সাথে সাথেই বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান ড. শামছুদ্দোহা খন্দকার উদ্ধার কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করে বলেন, লঞ্চ উদ্ধার সম্পন্ন হয়েছে। এর চেয়ে বেশি উদ্ধারের কিছু নেই। লঞ্চটি কাত হয়ে তীর থেকে ১৫ গজ দূরে ভেসে আছে। পানির গভীরতা কম থাকায় আর সামনে নেয়া যাবে না। তিনি আরও বলেন, উদ্ধার কজের আর কিছু নেই। তবে এখন লাশ উদ্ধার চলবে ।

উদ্ধার কাজ বন্ধ ঘোষণায় স্বজনহারা জনতা উত্তেজিত হয়ে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়ে হামলা চালায়। তারা পানির উপর কাত হয়ে থাকা লঞ্চটি সোজা করার দাবি জানিয়ে বলেন, লঞ্চটি সোজা করার পর লঞ্চের ভিতর ঢুকে দেখবে আর কোনো লাশ আছে কিনা। সে পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চালাতে হবে। এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস ও জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের আশ্বাস দেন। তারা বলেন, নিখোঁজদের ব্যাপারে নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলবে। এছাড়া, স্বজনহারাদের সার্বিক নিরাপত্তা ও সহযোগিতার সকল প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

শনিবার এ পর্যন্ত ( সকাল ১০টা) আরও ১৬ যাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে ডুবরীরা। এ নিয়ে মোট লাশের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৭। এর মধ্যে ৪২টি লাশ স্বজদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এসব তথ্য দিয়ে গজারিয়ার ইউএনও ড. এটি এম মাহাবুবুল করিম জানান, এ ঘটনায় এখনও কোনো মামলা হয়নি। কতজন নিখোঁজ আছে তা এ মুহূর্তে নিশ্চিত করা যাচ্ছে না।

লঞ্চটি উদ্ধারের পর মেঘনা তীরের খোলা আকাশের নীচে অপেক্ষমান স্বজনদের আহাজারিতে মেঘনা পাড়ের বাতাস ভারি হয়ে উঠে। তারা এমভি মিরাজ ও এর আশপাশের এলাকায় লাশ খোঁজা অব্যাহত রেখেছে। নিহতদের অধিকাংশই শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বাসিন্দা। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন প্রায় শতাধিক।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টার দিকে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার দৌলতপুরের কাছে ঝড়ের কবলে পড়ে মেঘনায় আড়াই’শ যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি মিরাজ-৪। লঞ্চটি বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় শরীয়তপুরের সুরেশ্বরের উদ্দেশে ঢাকার সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here