মানুষ চায় উপজেলা নির্বাচনে জিতে বিএনপি -জামায়াত খুশি থাকু্‌ক, তবু রাজপথে এসে যেন আর সহিংসতা না চালায়।’ তোফায়েল

27

tofayelবাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ‘উপজেলা নির্বাচনের ফলাফল দিয়ে সরকারের জনপ্রিয়তা যাচাই করা যাবে না। মানুষ সহিংসতা এড়াতে বিএনপি-জামায়াতকে ভোট দিচ্ছে। মানুষ চায় উপজেলা নির্বাচনে জিতে বিএনপি-জামায়াত খুশি থাকুক। তবু রাজপথে এসে যেন আর সহিংসতা না চালায়।’ আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘নেতৃত্বের বিচক্ষণতা: নির্বাচনোত্তর রাজনৈতিক ও সাংবিধানিক চ্যালেঞ্জ’ র্শীষক রাষ্ট্রবিজ্ঞান সমিতির এক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এ সব কথা বলেন। বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. গিয়াসউদ্দিন মোল্যা।

‘উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ কোনো রকম হস্তক্ষেপ করেনি’ উল্লেখ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘যদি আওয়ামী লীগ হস্তক্ষেপ করত, তাহলে উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি আসন পেত না।’

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচনে কখনো দলীয়করণ হয় না। গাজীপুর নির্বাচন থেকেই বিএনপি ভোট কারচুপির কথা বলছে। অথচ গাজীপুর নির্বাচন এমনকি উপজেলা নির্বাচনেও বিএনপি আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি আসন পেয়েছে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচন বন্ধ করার জন্য এমন কিছু নেই, যা বিএনপি করেনি। কিন্তু এতে করে কোনো লাভ হয়নি। শত বাধার পরও বিএনপি আমাদের রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জ ব্যাহত করতে পারেনি। আওয়ামী লীগ শেষ পর্যন্ত সরকার গঠন করেছে।’

তোফায়েল বলেন, ‘রাজনীতির এই অবস্থার জন্য দায়ী জিয়াউর রহমান। রাজনীতিবিদদের জন্য রাজনীতি কঠিন করে দিয়ে গেছেন তিনি। এ ছাড়া জিয়াউর রহমান দুর্নীতি, রাজনীতিবিদদের কেনা-বেচা এবং যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতিতে সুযোগ করে দিয়েছেন।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. খুরশীদা বেগমের সঞ্চালনায় গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারাকাত, সাংবাদিক সোহরাব হাসান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here