মন্ত্রনালয়ে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যরা

17

5291bfab3be60-1

52919e17a6f77-Minister

নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যরা আজ রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করেছেন। নতুন মন্ত্রী হিসেবে যাঁরা শপথ নিয়েছিলেন, তাঁরা সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে গেছেন।
সকালে সচিবালয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত এবং শিল্পমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ তাঁর দপ্তরে যান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তাঁর বিশ্বাস বিরোধী দল নির্বাচনে আসবে। দায়িত্ব গ্রহণের পর তিনি আজ গৃহায়ণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিচিতি সভা করেন। এরপর তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।
তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমরা সবার অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে একটি অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। আমরা মনে করি বিরোধী দল অরাজক পরিস্থিতির দিকে প্রবেশ করবে না। কারণ হরতাল দিয়ে, অগ্নিসংযোগ করে ফল যে ভালো হয় না, তা বিরোধী দল উপলব্ধি করতে শুরু করেছে বলে আমি মনে করি। এই উপলব্ধি থেকে তারা নির্বাচনে আসবে বলে আমার বিশ্বাস। আগামী ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন হতে হবে। আমাদের মূল কাজ হবে নির্বাচন কমিশনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা। যাতে তারা দেশের মানুষকে একটি অবাধ নির্বাচন উপহার দিতে পারে।’
মন্ত্রণালয় যেন রাজনৈতিক কার্যালয়ে রূপান্তর না হয়, সেজন্য নতুন এই মন্ত্রী মন্ত্রণালয়ের সবার সহযোগিতা চান। তিনি বলেন, ‘আমার শেষ জীবনে সততা নিয়ে কেউ যেন প্রশ্ন তুলতে না পারে।’
ভূমি এবং দুর্যোগ-ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়া আমির হোসেন আমু প্রথমে ভূমি মন্ত্রণালয়ে যান। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘নির্বাচন হবেই। কে এল, না এল তা বড় কথা নয়। নির্বাচনে কতজন ভোট দিল, সেটাই বিবেচ্য হওয়া উচিত। এখনো আলোচনার দ্বার খোলা আছে। সংলাপের উদ্যোগ থাকবেই।’

মন্ত্রণালয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিচিতি অনুষ্ঠানে নির্বাচনকালীন সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচনে হতে হবে। সাংবিধানের বাইরে যাওয়া যাবে না। সাংবিধানিক সংকট তৈরি করা যাবে না। বিরোধী দল নির্বাচনে না এলে কী হবে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ নির্বাচনে অংশ নিলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে।

রাশেদ খান মেনন আরও বলেন, ‘আমাদের প্রধান কাজ হবে একটা অবাধ নির্বাচন নিশ্চিত করা। একই সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করা। প্রথমত, রাজনৈতিক দায়িত্ব পালন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে পত্রিকায় খবর বের হয়েছে।’ তিনি মনে করেন, দেশ অচল হবে না। এগিয়ে যাবে। বিরোধী দলের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আসুন আমরা সবাই মিলে নির্বাচনে অংশ নিই।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী রওশন এরশাদও আজ অফিস করেছেন। তিনি বলেছেন, মন্ত্রণালয় চালানোর অভিজ্ঞতা তাঁর নেই। কিন্তু তিনি আন্তরিকভাবে কাজ করতে চান। এ জন্য সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম নিজ কক্ষে সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচন যেন সঠিকভাবে হয় সেটাই চ্যালেঞ্জ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here