ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শশী থারুরের স্ত্রীর মৃতদেহ নয়াদিল্লির হোটেল থেকে উদ্ধার।

11

shashi-sunanda.লেখক ও ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শশী থারুরের স্ত্রী সুনন্দা পুষ্করের মৃতদেহ পাওয়া গেল দিল্লির একটি পাঁচ তারকা হোটেলে। লীলা হোটেলের একটি কক্ষ থেকে আজ রাতে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। আজ রাত আটটায় হোটেল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনাটি জানায়।
পুলিশের স্পেশাল কমিশনার দীপক মিশ্র টাইমস অব ইন্ডিয়াকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন। পুলিশ এখনও নিশ্চিত নয় এটি আত্মহত্যা কি না। তদন্ত চলছে। পুলিশ রুমটি সিল করে দিয়েছে।
গতকাল সুনন্দা ও শশী একটি অনাকাঙ্ক্ষিত টুইটার বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে মুখরোচক খবরও ছড়িয়ে পড়ে। শশীর সঙ্গে পাকিস্তানী সাংবাদিক মেহর তারারের প্রেম নিয়ে সে ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনার পর সুনন্দা ও শশী সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন তারা বিবাহিত জীবনে সুখী।
শশী সুনন্দাকে বিয়ে করেছিলেন ২০১০ সালে। গতকাল শশী বলেছিলেন, সুনন্দা অসুস্থ এবং বিশ্রাম নেবে। মিডিয়া যদি আমাদের প্রাইভেসিকে সম্মান দেখায় তবে আমরা কৃতজ্ঞ থাকবো।
শশী আগে জাতিসংঘে ভারতের প্রতিনিধি ছিলেন। জাতিসংঘের উচ্চতর পদেও অধিষ্ঠিত ছিলেন তিনি। তার মতে, টুইটারে যে মেসেজগুলো গিয়েছিল সেগুলো অনুমোদনহীন।
সুনন্দা বলেছিলেন, ৪৫ বছর বয়সী পাকিস্তানি সাংবাদিক তাদের সংসার ভাঙার চেষ্টা করেছিলেন। সেসময় তিনি চিকিৎসার জন্য বাইরে ছিলেন।
শশী থারুর ও সুনন্দা পুষ্কর দুজনেই এ বিয়ের আগে দুটি করে বিয়ে করেছিলেন। শশী ভারতের মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী এবং ত্রিঅন্তপুরম থেকে নির্বাচিত সাংসদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here