বিস্ময়কর জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের শুভযাত্রা

21

cricketঅবশেষে সব সংশয় পাশ কাটিয়ে বিস্ময়কর জয় দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শুভযাত্রা হলো বাংলাদেশ। দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠতে হলে বাংলাদেশকে এই গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার বাধ্যকতা ছিল। আর সেক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বাঁধা ছিল আফগানিস্তান। আর এশিয়া কাপের বিচারে একটা অঘটন তো ঘটতেই পারত। তবে, আফগানদের বিপক্ষে আগেই জয়ের নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন মুশফিক। তবে, তাঁর নিশ্চয়তায় সংশয় একটুও কমেনি টাইগার ভক্তদের। সবার মুখেই ছিল একই কথা। খেলা মাঠে গড়ানোর আগে কিছুই বলা যায় না। তবে, আজকের জয়টা প্রথমেই আসে টস থেকে। টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মুশফিক। ব্যাস, বোলাররা গর্জে ওঠে আফগানদের কম রানে আটকে ফেলার টার্গেটে। আর সেই গর্জনে খেলার প্রথম বলেই পরাস্ত হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ। এই শূন্য রানে প্রথম উইকেট হারানোর চাপ শেষ পর্যন্ত আর সামলাতে পারেনি আফগানিস্তান। দলের জন্য কোনো দায়িত্বশীল ইনিংস খেলতে পারেনি আফগান অধিনায়ক নবীও।
মাশরাফির পর আফগান ব্যাটিং লাইনে ধ্স নামান সাকিব আল হাসান। ইনিংসের পঞ্চম ওভারের দ্বিতীয় বলে আউট হন গুলবাদিন নবী, তৃতীয় বলে নজিবুল্লাহ তারাকাই। এ ক্ষেত্রে সাকিবের হ্যাট্রিকের সুযোগ তৈরি হলেও তা ব্যর্থ করে দেন আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বলে টোকা দিয়ে রান নেওয়ার চেষ্টাকালে সাব্বির রহমানের থ্রোকে স্ট্যাম্প উড়ে গেলে আউট হন নওরোজ মঙ্গল। আব্দুর রাজ্জাক প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান সামিউল্লাহ শেনওয়ারিকে। এর আগে ফরহাদ রেজার থ্রোতে আউট হন করিম সাদিক। আব্দুর রাজ্জাকের বলে সাজঘরে যান আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। শফিকুল্লাহকে আউট করেন মাহমুদুল্লাহ। দৌলত জারদানের উইকেট পান ফরহাদ রেজা। আর শাপুর জারদানকে সাকিব ফিরিয়ে দিলে ১৭ ওভার ১ বলে ৭২ রানে থেমে যায় আফগান ইনিংস। আফগানিস্তানের পক্ষে ২৫ বলে সর্বোচ্চ ২১ রান করেছেন গুলবাদিন নবী। বাংলাদেশের পক্ষে সাকিব আল হাসান তিনটি, আব্দুর রাজ্জাক দুটি এবং মাশরাফি, মাহমুদুল্লাহ, ফরহাদ রেজা একটি করে উইকেট পেয়েছেন।
বিরতির পর বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নামলে মারমুখী সূচনা করেন তামিম ইকবাল। ওপেনার ব্যাটসম্যান হিসেবে ছক্কা এবং চার হাঁকিয়ে সপ্তম ওভারে ২৭ বলে ২৫ রান করে সাজঘরে যান তিনি। সামিউল্লাহ শেনওয়ারির বলে এলবিডাব্লিউ হন তিনি। এরপর ব্যাটিংয়ে নামেন সাকিব আল হাসান। অপর প্রান্তে থাকেন ওপেনার এনামুল শেষ পর্যন্ত ৩৩ বলে করেন ৪৪ রান। এনামুলের সংগ্রহে চারটি চার ও তিনটি ছক্কার মার ছিল। সাকিব করেছেন ১২ বলে ১০ রান। যখন জিততে হলে এক রান দরকার টাইগারদের তখন এনামুল উপহার দেন ছক্কা। আর খেলা শেষ হলো এনামুলের ওই দৃষ্টি নন্দন ছক্কা দিয়েই। ৭৩ রান করতে বাংলাদেশকে খোয়াতে হয়েছে মাত্র এক উইকেট। বোলিংয়ে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট নেওয়ায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছেন সাকিব আল হাসান।
বাংলাদেশ : মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), আব্দুর রাজ্জাক, আল-আমিন হোসেন, এনামুল হক, ফরহাদ রেজা, মাহমুল্লাহ, মাশরাফি বিন মোরতুজা, মুমিনুল হক, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন,সাব্বির রহমান,শামসুর রহমান, সাকিব আল হাসান, সোহাগ গাজী ও তামিম ইকবাল।
আফগানিস্তান : মোহাম্মদ নবী (অধিনায়ক), আফতাব আলম, আজগর স্তানিকজাই, দৌলত জারদান, গুলবাদিন নবী, হামজা হোতাক, করিম সাদিক, মিরবাইস আশরাফ, মোহাম্মদ শাহজাদ, নজিবুল্লাহ, তারাকাই, নজিবুল্লাহ জারদান, নওরোজ মঙ্গল, সামিউল্লাহ শেনওয়ারি, শফিকুল্লাহ ও শাপুর জারদান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here