বিশ্ব ইজতেমা আজ শুরু তুরাগ তীরে মুসল্লিদের ঢল

11

tableagueধর্মপ্রাণ লাখো মুসলমানের সমাগমে পবিত্র হজ্বের পর মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা আজ শুক্রবার শুরু হচ্ছে। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের সান্নিধ্য লাভের আশায় ইজতেমায় যোগ দিতে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে এখন মুসল্লিদের ঢল নেমেছে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাস-ট্রাক, ট্রেন ও লঞ্চযোগে লাখ লাখ মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে এসে সমবেত হচ্ছেন। মানুষের এ স্রোত আখেরী মোনাজাতের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ইজতেমা ময়দানের সার্বিক প্রস্তুতিমূলক কাজ পরিদর্শন করেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, স্থানীয় সংসদ সদস্য মো: জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর সিটি মেয়র অধ্যাপক এম.এ মান্নান।

তাবলীগ জামাত আয়োজিত ৪৯তম এ বিশ্ব ইজতেমার ১ম পর্বের আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে আগামী রবিবার। এরপর মাঝে ৪ দিন বিরতি দিয়ে ২য় পর্ব শুরু হবে ৩১ জানুয়ারি। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার বাদ ফজর থেকে ময়দানে সমবেত মুসল্লিদের উদ্দেশে তাবলীগের ৬ উসূল সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনামূলক বয়ান শুরু হয়েছে।

দেশ-বিদেশের বিভিন্ন বুজুর্গ আলেমগণ ঈমান, আমল, আখলাক ও কালেমা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বয়ান শুরু করেন। বাদ জোহর দিল্লীর মাওলানা ফারুক হোসেন বয়ান করেন। তিনি ইসলাম ধর্মে দাওয়াতের গুরুত্বসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করেন।

আশা করা হচ্ছে, আজ শুক্রবার বিশ্ব ইজতেমায় স্মরণকালের বৃহত্তম জুমা’র নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা ছাড়াও রাজধানীর আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশ নেবেন।

তাবলীগ জামাতের এই মিলন মেলায় বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের প্রায় শতাধিক দেশের ৩০ হাজারের বেশি বিদেশি মেহমানসহ প্রায় ২০ থেকে ২৫ লাখ মুসল্লি¬র সমাবেশ ঘটবে বলে আয়োজক কমিটির মুরব্বিরা আশা করছেন।

ইজতেমার ময়দানে খিত্তাওয়ারী বিভিন্ন জেলার মুসল্লিদের অবস্থান ঃ এবারের বিশ্ব ইজতেমায় প্রথম পর্বে দেশের ৩২ জেলার মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করবেন। এ উপলক্ষে পুরো ইজতেমা ময়দানকে ৪০টি খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। খিত্তা নম্বরসহ জেলাগুলো হচ্ছে-গাজীপুর (১-২), ঢাকা (৩-১২), সিরাজগঞ্জ (১৩), ফরিদপুর (১৪), নরসিংদী (১৫), কিশোরগঞ্জ (১৬), রাজবাড়ী (১৭), শরিয়তপুর (১৮), নাটোর (১৯), শেরপুর (২০), দিনাজপুর (২১), হবিগঞ্জ (২২), রংপুর (২৩), লালমনিরহাট (২৪), গাইবান্ধা (২৫), জয়পুরহাট (২৬), রাজশাহী (২৭), সিলেট (২৮), চাঁদপুর (২৯), ফেনী (৩০), চট্টগ্রাম (৩১), বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি (৩২), বাগেরহাট (৩৩), কুষ্টিয়া (৩৪), নড়াইল (৩৫), চুয়াডাঙ্গা (৩৬), যশোর (৩৭), ভোলা (৩৮), বরগুনা (৩৯) ও ঝালকাঠি (৪০)।

বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঃ র্যাবের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইং এর পরিচালক উইং কমান্ডার এটিএম হাবিবুর রহমান জানান, ইজতেমা মাঠের নিরাপত্তা বিধানে ৫ স্তরে দায়িত্ব পালন করবেন তারা। হেলিকপ্টার টহল ছাড়াও খিত্তায় খিত্তায় সাদা পোশাকে র্যাব সদস্যরা অবস্থান করবেন। তিনি বলেন, ইজতেমা মাঠের প্রবেশ পথে ও আশেপাশে ৬০টি সিসি টিভি ক্যামেরায় সার্বিক কার্যক্রমের চিত্র ধারণ করা হচ্ছে।

স্বাস্থ্যসেবা ঃ ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা: সিফায়েত উল্লাহ বলেন, টঙ্গী হাসপাতালে একটি নিজস্ব কন্ট্রোল রুম ছাড়াও কার্ডিয়াক, বার্ণ, অ্যাজমা, ট্রমাসহ বিভিন্ন ইউনিট খোলা হয়েছে। শয্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে ৫০টি। টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের উদ্যোগে মুন্নগেট, বাটা গেট ও হোন্ডা রোডে মুসল্লিদের তাত্ক্ষণিক সেবা দেয়ার জন্য ৩টি মেডিক্যাল সেন্টার খোলা হয়েছে। ১২টি এ্যাম্বুলেন্স সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এছাড়াও হামদর্দ, জনকল্যাণ ফার্মা, রেনাটা, বিএমএ, র্যাব, টঙ্গী পৌরসভা, টঙ্গী থানা প্রেসক্লাব, ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, ইসলামী ফাউন্ডেশন, ইস্পাহানী ইসলামীয়া চক্ষু ইন্সটিটিউট, যমুনা ব্যাংক, এপেক্স বাংলাদেশ, কিউআইএস মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনসহ প্রায় ৪০টি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ফ্রি চিকিত্সা কেন্দ্র চালু করেছে। হোটেলে খাবারের মান ও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ম্যাজিস্ট্রেটসহ সেনিটেশন টিম কাজ করছে।

ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের মধ্যে অসুস্থ যারা ঃ ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের মধ্যে গতকাল ফরিদপুরের ইয়াহিয়া মোল্লা, ঢাকার ধামরাইয়ের রবিউল ইসলাম, উত্তরার মোস্তাক আহমেদ ও আবুল হোসেনসহ টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে ঠাণ্ডা ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে চিকিত্সা নিয়েছেন ২৫ জন।

৬টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা ঃ খাবারের মান নিয়ন্ত্রণে টঙ্গী ও আশপাশ এলাকায় ১২টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টঙ্গীর বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁয় অভিযান পরিচালনা করে ৬টি প্রতিষ্ঠানকে খাদ্যদ্রব্য ও মাদকদ্রব্য আইনে ৯ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জেপি’র শুভেচ্ছা

জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান ও বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এবং মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম টঙ্গীতে আজ থেকে শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার সফলতা কামনা করেছেন। এক বিবৃতিতে জেপি নেতৃদ্বয় ইজতেমায় আগত সকল মুসল্লিকে আন্তরিক মুবারকবাদ জানিয়ে বলেন, তারা যে সুমহান উদ্দেশ্য নিয়ে এই বিশ্ব ইজতেমায় সমবেত হয়েছেন এবং দীনের জন্য যারা মেহনত করছেন পরম করুণাময় আল্লাহতায়ালা তাদের ইচ্ছা পূরণ করুক এটাই আমাদের পরম করুণাময় আল্লাহতায়ালার কাছে প্রার্থনা। আমরা ইজতেমায় আগত সকল মুসল্লির সুস্বাস্থ্য কামনা করি এবং বিশ্ব ইজতেমার সর্বাত্মক সফলতা কামনা করি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here