বিএনপির নিলোফার চৌধুরী ‘মনি’ বিছানায় অনেকেরই চোখের মণি

88

জনতার নিউজ ডেস্কঃ

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ও ইলেক্ট্রনিক প্রচার মাধ্যমের  টিভি টক শো’র নিয়মিত মুখ নিলোফার চৌধুরী মনি’র রাজনীতিক হওয়ার নেপথ্য বাস্তবতার তথ্য এখন জননেতাডটকমের কাছে। দেশের রাজনীতিবিদ দের ব্যক্তিগত নৈতিক চরিত্রের অবক্ষয় তুলে ধরার গোয়েন্দা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘বার্ডস আই’ এবার রাজনীতিক নিলোফার চৌধুরীর গোপন খবর প্রকাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে।

monippppppppppppppppppকবিতার পঙক্তিতে হারিয়ে যাওয়া টিভি টক শোতে উপস্থিত থেকে নিজেকে ধোয়া তুলসী পাতা সাজিয়ে কাব্যিক নিলোফারের অজানা কাহিনীতে দেখা গেছে তাঁর জীবনের সতীত্ব বিকিয়ে দেয়ার বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য পর্যায়ের তথ্য।

নিলোফার চৌধুরী মনি, জাতীয়তাবাদী রাজনীতির মাধ্যমে রাজপথ,সংসদ ও টিভি টক শো’র আলোচিত নারী রাজনীতিক হিসাবে নিজ দলের অপরিহার্য কন্ঠ বটে।

ছাত্রীবস্থায় নিজেকে বড় সড় আদলের নেত্রী হিসাবে পরিচিত করার বাঁধা ছিল শিরিন সুলতানা ও হেলেন জেরিন খানে’রা। কিন্তু মনি ছিলেন আপোষহীন, সে কারনেই ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের ছাত্রী হিসাবে দলের পুরুষ জ্যেষ্ঠ রাজনীতিকদের কাছে সঁপে দিয়েই তিনি ৯০’দশক থেকেই অনেকের চোখের মনিও হয়ে ওঠেন।

moni2নিজের পলিটিক্যাল ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে একসময়  নিলোফার চৌধুরী মনি শেরপুর জেলার সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত জাহেদ আলী চৌধুরীর রক্ষিতা বনে যান। জাহেদ আলী’র সাথে মনি’র সম্পর্কের নেপথ্যের কারন খুজতে যেয়ে ‘বার্ডস আই’ অনুসন্ধানে দেখে, জাহেদ আলী চৌধুরীর ধনবান অবস্থা ও আঞ্চলিক রাজনীতির অবস্থান টিকিয়ে রাখাই ছিল  প্রধান উদ্দ্যেশ্য। উল্লেখ্য, নিলোফার চৌধুরী মনি জামালপুরের অধিবাসী।

প্রায় অর্ধযুগ মনি ঐ জাহেদ আলী চৌধুরীর সঙ্গে লিভ টুগেদার করেন।রাজনীতির ময়দানে তা ছিল কার্যত ওপেন সিক্রেট।

‘বার্ডস আই’ এও প্রমান সহকারে দেখে, মনি’র সাথে বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের প্রায় হাফ ডজন নেতার সঙ্গে দহরম মহরমও ছিল। যখন যাকে কাজে লেগেছে তার সঙ্গেই মনি বিছানায় যেতেন বলে কথিত আছে।

khaledaসূত্রমতে, এরপর নারী খেকো জ্যেষ্ঠ রাজনীতিবিদ দের জন্যই নিলোফার মনির অফিসিয়াল বিয়েতে যোগ দেন দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। কারন বেগম জিয়ার কাছে মনি সম্পর্কে লম্পট সিনিয়র নেতারা তার সম্পর্কে উচ্চ ধারণা দিয়ে আসছিলেন। সে ধারাবাহিকতায় বেগম জিয়া তার বিয়েতে উপস্থিত থাকেন।

ব্যক্তি জীবনে নীরিহ স্বামী ও দুটি সন্তান রয়েছে আজ মনি’র। গেল ৭ বছর ধরে মনি বিএনপির রাজনীতিতে বেশ কট্টর পন্থা অবলম্বন করার কারনেই লাইম লাইটে চলে আসেন। কিন্তু এসব জুটে যখন তিনি নবম সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হিসাবে মনোনয়ন পান। ঐ সংসদ সদস্য হতে যেয়েই তিনি সর্বাধিক স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে পড়েন।

বার্ডস আই এর গোয়েন্দা তৎপরতায় দেখা যায়, নবম সংসদ নির্বাচনের ফলাফল অনুযায়ী বিএনপি মাত্র ৫ টি নারী সংরক্ষিত আসন পেলে ঐ টিকিট পেতে সারাদেশের প্রায় ১০০ জন বিএনপি নেত্রী তদবির farukখেলায় মাঠে নেমে পড়েন। ঐ ৫ জনের একজন হবার জন্য সে সময়ের নারী খেকো রাজনীতিক জয়নাল আবদীন ফারুক এর দৃষ্টিতে পড়েন এবার নিলোফার চৌধুরী মনি। কারণ  ততক্ষনে ফারুক বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ বনে গেছেন। এই সুযোগে ফারুকের সঙ্গে মনির অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে ওঠার মাধ্যমেই মনি পেয়ে যান সংসদে বসার টিকিট।

সেই যে পরকীয়া প্রেমের নামে অনৈতিকতা  শুরু হয়েছে তা এখনো চলছে এবং তার প্রমাণাদি এখন বার্ডস আই এর কাছে রয়েছে। মনি’র কাছের একজন বার্ডস আই কে জেরার মুখে বলেন, আসলে আপা খুব ধূর্ত monikkkkkkkkkkkkkkkkও চালাক প্রকৃতির। এসব প্রেম-ট্রেম কিছু না, উনি ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ফারুক ভাইয়ের সাথে সম্পর্ক টিকিয়ে রেখেছেন। কারন আপা’র ইচ্ছা হল জামালপুর-৫ আসন হতে ভবিষ্যতে সরাসরি নির্বাচন করার। কিন্তু সে ক্ষেত্রে দল মনোনয়ন না দিলে আবারো নারী টিকিট পাওয়ার জন্যই এসব অনৈতিক সম্পর্ক ধরে রেখে চলছেন। তবে একসঙ্গে সব কিছু করতে করতে দু’জনের মধ্যকার মন দেয়া নেয়ার সম্পর্ক হওয়াটাও বিচিত্র কী!

আরেক অনুসন্ধানে দেখা গেছে, মহাজোট সরকারের মেয়াদে জয়নাল আবদীন ফারুক ও নিলোফার চৌধুরীর বিদেশেও সেক্স মিশন চলেছে। ডেনমার্ক সফর ছিল নিলোফারের ঐ মিশন সফল করার প্রধান ও একমাত্র কারণ!

সুত্রঃ  জননেতাডটকম

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here