বগুড়ায় গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশে হাতবোমা ও মঞ্চের গাড়ি বহরে ককটেল হামলা

12

Bograবগুড়ায় গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশে হাতবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। আজ শুক্রবার বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে শহরের সাতমাথায় সমাবেশ লক্ষ্য করে হাতবোমা ছোড়া হয়। এতে হতাহত হওয়ার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধে গণজাগরণ মঞ্চ ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁও অভিমুখে রোডমার্চ কর্মসূচির অংশ হিসেবে বগুড়ায় সমাবেশ চলছিল। তবে হামলার সময় সেখানে মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে রোডমার্চে অংশগ্রহণকারীরা পৌঁছাননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে গণজাগরণ মঞ্চের রোডমার্চ বিকেলে বগুড়ায় পৌঁছানোর কথা ছিল। এ জন্য দুপুরের পর থেকে বগুড়ার সাতমাথায় গণজাগরণ মঞ্চে সমাবেশ শুরু হয়। এতে স্থানীয় নেতারা বক্তব্য রাখছিলেন। সমাবেশ চলাকালে মঞ্চের কাছে সাতমাথায় দুর্বৃৃত্তরা পাঁচ থেকে ছয়টি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় সমাবেশে আসা কর্মীরা আতঙ্কে ছোটাছুটি করতে থাকেন। একপর্যায়ে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা পতাকা হাতে হামলাকারীদের ধাওয়া দেন। পুলিশ হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

গণজাগরণ মঞ্চের স্থানীয় নেতারা অভিযোগ করেন, গণজাগরণ মঞ্চবিরোধী ও একাত্তরের স্বাধীনতাবিরোধী চক্র এ হামলা চালিয়েছে।

বগুড়ার গণজাগরণ মঞ্চের আহ্বায়ক মাসুদার রহমান  জানান, গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশ ভন্ডুল করতেই স্বাধীনতাবিরোধী মৌলবাদী চক্র এই বোমা হামলা চালিয়েছে। কিন্তু মঞ্চের কর্মীরা হামলাকারীদের প্রতিহত করেছে।

বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. মোজাম্মেল হক  বলেন, ‘আতঙ্ক সৃষ্টির জন্যই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। ঘটনার পর সমাবেশকে ঘিরে শহরজুড়ে তল্লাশি এবং নজিরবিহীন নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়েছে। রাত সাড়ে আটটার দিকে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার বগুড়ার গণজাগরণ মঞ্চে পৌঁছান।

ঠাকুরগাঁও অভিমুখী গণজাগরণ মঞ্চের রোডমার্চের বাসে ককটেল হামলা করেছে দুর্বৃত্তরা। এতে ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক আহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টায় শেরপুর বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছানোর দুই মিনিট আগের রাস্তায় গণজাগরণ মঞ্চের গাড়ি বহরে এ ককটেল হামলা হয়েছে।
গাড়ী বহরের সঙ্গে থাকা কালের কণ্ঠের নিজস্ব প্রতিবেদক নূরে আলম দুর্জয় জানান, গণজাগরণ মঞ্চের গাড়ি বহরের তিন নম্বর বাসে এ হামলা হয়। ওই বাসে ইমরান এইচ সরকারও ছিলেন। তবে তিনি সুস্থ আছেন।
দুর্জয় আরও জানান, ককটেল হামলায় ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক তানভীর রুস্মত গুরুতর আহত হয়েছেন। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় স্প্লিন্টার বিদ্ধ হয়েছে। হাতবোমার বিস্ফোরণে বাসের কয়েকটি জানালার কাঁচ ভেঙে গেছে বলেও তিনি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here