প্রথম দিনে সাতক্ষীরায় ৫ ও লক্ষ্মীপুরে ১ জন নিহত

17

সারাদেশে চলমান সহিংস কর্মকাণ্ড ও নাশকতামূলক তত্পরতার পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ, র্যাব ও বিজিবির যৌথ অভিযান শুরু হয়েছে। রবিবার দিবাগত মধ্য রাতে দেশজুড়ে শুরু হওয়া এ অভিযানের প্রথমদিনে সাতক্ষীরায় ৫ ও লক্ষ্মীপুরে একজন নিহত হয়।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত দেশজুড়ে যৌথ বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযান চলবে বলে পুলিশ ও র্যাবের শীর্ষ কর্মকর্তারা জানান।

সরকারবিরোধী ১৮ দলীয় জোটের ডাকা সাম্প্রতিক উপর্যুপরি অবরোধ ও হরতাল কর্মসূচিতে যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকসায় পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ, আগুন দিয়ে পুড়িয়ে নিরীহ মানুষ হত্যা, রেললাইন উপড়ে ফেলা, গাছ কেটে সড়ক-মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি, সেতুর পাটাতন খুলে ফেলা, রাস্তায় বিশাল পরিখা খননের মতো একের পর এক নাশকতামূলক ও ধ্বংসাত্মক তত্পরতা চালিয়ে যাচ্ছে অবরোধকারীরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তথ্যমতে ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, নাশকতাকারীদের বেশিরভাগই জামায়াত-শিবিরের বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থক। গত ১২ ডিসেম্বর মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় দোষী সাব্যস্ত জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের পর সহিংসতার ব্যাপকতা আরো বৃদ্ধি পায়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সরকারের শীর্ষ মহল কঠোর হস্তে সহিংসতা দমন করার জন্য নির্দেশ দেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে।

পুলিশের আইজি হাসান মাহমুদ খন্দকার বলেন, জনগণের জানমাল, রাষ্ট্রীয় সম্পদ রক্ষায় যে কোন ধরনের নাশকতা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হবে ততক্ষণ অভিযান চলবে।

র্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়া উল আহসান বলেন, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত অভিযান চলবে। যেখানে নাশকতা হবে সেখানেই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাতক্ষীরায় গুলিতে নিহত ৫: জামায়াতের হরতাল আহবান

আমাদের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, সাতক্ষীরায় পুলিশ, র্যাব ও বিজিবির যৌথ অভিযানে একজন জামায়াতকর্মীসহ পাঁচজন নিহত হয়েছে। সোমবার ভোরে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পদ্ম শাখবা এলাকায় দুইজন, দেবহাটা উপজেলার সখিপুরে দুইজন ও সদর উপজেলার আগরাদাড়ি সাতানী এলাকায় জাহাঙ্গীর হোসেন নামে এক জামায়াতকর্মী নিহত হয়েছেন। সাতক্ষীরার নবাগত পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীর ৫ জন নিহত হবার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চার জনের লাশ জামায়াত-শিবির লুকিয়ে ফেলেছে।

পুলিশ সুপার বলেন, রবিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে সোমবার ভোর ৬টা পর্যন্ত সাতক্ষীরার ৭টি উপজেলার ৭৮টি ইউনিয়নে অভিযান চলে। কয়েক জায়গায় জামায়াত-শিবির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে। পরে যৌথবাহিনীর পাল্টা গুলিবর্ষণে তারা পালিয়ে যায়। তিনি বলেন, যতক্ষণ সাতক্ষীরার মানুষ স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে না পারবে ততক্ষণ অভিযান চলবে।

সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান জানান, সমপ্রতি জামায়াত-শিবির জেলায় আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে। তাদের বাড়িঘর পর্যন্ত পুড়িয়ে দিয়ে সেখানে লুটপাট করা হয়।

তিনি জানান, সদরের পদ্মশাখরা এলাকায় যৌথবাহিনীর অভিযানে নিহত দুজনের নাম জানা যায়নি।

এদিকে পুলিশের অভিযানে কলারোয়া থেকে তিনজন এবং সদর ও দেবহাটা থেকে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি নুরুল হুদা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যৌথ বাহিনীর অভিযানে সদরের সাতানী ও শিয়ালডাঙ্গা এলাকায় জাহাঙ্গীর ও সাহেব বাবু নামের তাদের দুই কর্মী নিহত হয়েছে। এর প্রতিবাদে আজ সাতক্ষীরায় সকাল-সন্ধ্যা হরতার ডেকেছে জামায়াত।

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মারুফ হাসান জানিয়েছেন, অভিযানে গুলিবিদ্ধ রিয়াজুল ও আব্দুর রউফ নামে দুইজন ওই হাসপাতালে চিকিত্সাধীন আছেন।

সাতক্ষীরায় অভিযানের পর এলাকায় মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। জামায়াতের কয়েকজন নেতা-কর্মীর বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। আফগান যুদ্ধ ফেরত ‘আফগান জিয়া’র বাড়িতেও আগুন দেয় জনতা।

লক্ষ্মীপুরে শীর্ষ সন্ত্রাসী বাবুল নিহত

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি জানান, লক্ষ্মীপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী বাবুল বাহিনীর প্রধান আসাদুজ্জামান বাবুল র্যাবের অভিযানে নিহত হয়েছেন। এ সময় মো. খোরশেদ আলম সুমন নামের তার বাহিনীর আরেক সদস্য নিহত হয় বলে দাবি করা হয়। তবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তরফ থেকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়নি।

বাবুল সদর উপজেলা দিঘলী ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও একই উপজেলার রতনেরখীল গ্রামের মৃত আমিন উল্যার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রবিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে সদর উপজেলার দিঘলী ইউনিয়নে জামিরতরী এলাকায় আসাদুজ্জামান বাবুলের বাড়িতে অভিযান চালায় র্যাব সদস্যরা। এ সময় ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে বাবুল ও তার এক সহযোগী ঘটনাস্থলে নিহত হন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বাবুলের মৃতদেহ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বাবুলের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগে তিনটি, চাঁদাবাজির ৩টি, বিস্ফোরণ আইনে ২টি ও সরকারি কাজে বাধাদানের ২টিসহ ১০টি মামলা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here