নির্বাচনে না গেলে দেশের সর্বনাশ হবে :হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ

17

Ershad
জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেছেন, তিনি নির্বাচনে যাবেন। নির্বাচনে না গেলে দেশের সর্বনাশ হবে। মহাজোটে থেকে নির্বাচন করলে লোকে বেঈমান বলবে। আবার নির্বাচনে না গেলে দেশের ভবিষ্যত্ অনিশ্চিত। তাই আমরা নির্বাচন করব। গতকাল শনিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় যুব সংহতির কাউন্সিল অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

এরশাদ বলেন, নির্বাচনের প্রশ্নে কোনো পথ খুঁজে পাচ্ছি না। কোনদিকে যাবো। যদি নির্বাচন না করি তাহলে পরবর্তী সরকার কীভাবে আসবে। যেখানে যাই লোকে বলে, দুই মহিলাকে চাই না, আপনাকে ভোট দেব। আমি কী বোঝা যে বহন করছি, তা জানি না। পথ হারিয়ে ফেলেছি। দিশেহারা হয়ে পড়েছি। মানুষ মুক্তি চায়। জাপা চেয়ারম্যান বলেন, তিনভাবে সরকার পরিবর্তন হতে পারে। ভোট, সশস্ত্র সংগ্রাম এবং অপরটি হচ্ছে সামরিক অভ্যুত্থান। বঙ্গবন্ধুকে সেনা শাসকেরা হত্যা করেছিল। মোশতাককেও উত্খাত করেছিল সেনা শাসকেরা। সাত্তারের পর আমি এসেছিলাম। এরপর দেশে আর কোনো সামরিক শাসন আসেনি। এখন সরকার পরিবর্তন হয় ভোটের মাধ্যমে। বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজেই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। জানি আমি নির্বাচনে গেলে জনগণ বলবে ‘দুর্নীতিবাজ’ ও ‘অত্যাচারী’ আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখার জন্য গিয়েছি। যদি আমরা নির্বাচনে না যাই তাহলে দেশে একতরফা একটি নির্বাচন হবে, সেই সরকার আরও এক বা দুই বছর ক্ষমতায় থাকবে। এরপর কী হবে জানি না।

বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে এরশাদ বলেছিলেন, দু’এক দিনের মধ্যেই আমরা মহাজোট ছাড়ার ঘোষণা দেব। একইসঙ্গে নতুন জোটের ঘোষণা দেব। গতকালের বক্তব্যে এরশাদ মহাজোট ছাড়ার আনুষ্ঠানিক কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, শিগগিরই মহাজোট ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেব। দু’এক দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন জোটেরও ঘোষণা দেয়া হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, যেদিন জোট করার কথা বলেছি, মানুষ আমাকে স্বাগত জানিয়েছে।

রেজাউল যুব সংহতির সভাপতি, বেলাল সম্পাদক

জাতীয় যুবসংহতির এই সম্মেলনে সংগঠনের নতুন নেতৃত্ব ঠিক করে দেন এরশাদ। সভাপতি হিসেবে এডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বেলাল হোসেনকে মনোনীত করেন তিনি। সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে জাপার মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, দলের জ্যেষ্ঠ নেতা কাজী জাফর আহমদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here