নিজামীর বিরুদ্ধে মামলার রায় যে কোন দিন

16

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায় যেকোন দিন ঘোষণা করা হবে। গতকাল বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বাধীন যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ মামলার কার্যক্রম সমাপ্ত ঘোষণা করে রায় অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখেন।

এর আগে আসামিপক্ষের সময় চেয়ে করা এক আবেদন খারিজ করে পাঁচদিনের মধ্যে তাদের লিখিত যুক্তিতর্ক ট্রাইব্যুনালে জমা দেয়ার জন্য বলেন ট্রাইব্যুনাল। এটি হবে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার দশম রায়।

এখন পর্যন্ত ট্রাইব্যুনাল-১ থেকে তিনটি ও ট্রাইব্যুনাল-২ থেকে ছয়টি মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। এসব রায়ে জামায়াতের সাবেক ও বর্তমান আটজন এবং বিএনপির দুই নেতার সাজা হয়েছে। এদিকে, সিএভির আদেশ প্রত্যাহার করে অসমাপ্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সুযোগ চেয়ে আসামিপক্ষের আবেদন গ্রহণ করেননি ট্রাইব্যুনাল। চারদিনে আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন ধার্য করে দিয়েছিল যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল। গত বৃহস্পতিবার প্রথমদিনে আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন আইনজীবী মিজানুল ইসলাম। এর পর রবিবার থেকে অসমাপ্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন ধার্য ছিলো। কিন্তু ১৮ দলের ডাকা চারদিনের হরতালের কারণে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে আসামিপক্ষের সিনিয়র কোনো আইনজীবী ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত হননি। এসময় সহকারী আইনজীবী মো. আসাদ উদ্দীন পর পর তিন দিন সময় চেয়ে আবেদন করেন। মঙ্গলবার ট্রাইব্যুনাল এক দিনের সময় বৃদ্ধি করে আসামিপক্ষকে জানান, বুধবার হলো আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের শেষ সুযোগ। কিন্তু গতকালও হরতালের কারণে সিনিয়র আইনজীবী উপস্থিত না থাকায় সহকারী আইনজীবী সময় চেয়ে আবেদন করেন। কিন্তু ট্রাইব্যুনাল এ আবেদন খারিজ করেন।

পরে গতকাল বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী তারিকুল ইসলাম আদেশ রি-কলের আবেদন নিয়ে ট্রাইব্যুনাল রেজিস্ট্রারের কাছে যান। কিন্তু রেজিস্ট্রার তা গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানান। পরে তিনি আবেদন নিয়ে যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল ১-এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের চেম্বারে যান। বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরও আবেদন গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেন, যেহেতু যুক্তি উপস্থাপন সমাপ্ত করে মামলার রায় অপেক্ষমাণ ঘোষণা করা হয়েছে- তাই আসামিপক্ষ শুধু রিভিউ আবেদন করতে পারেন। এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, এটা ট্রাইব্যুনালের সহজাত ক্ষমতা। আমরা অতীতে অনেক রি-কল আবেদন করেছি। আমরা আদেশের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করব।

গত বছরের ২৮ মে মতিউর রহমান নিজামীর বিচার শুরু হয়। ওই দিন যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ নিজামীর বিরুদ্ধে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের অভিযোগসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ১৬টি অভিযোগ গঠন করে আদেশ দেন। নিজামীর বিরুদ্ধে হত্যা, গণহত্যা, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ ও এ ধরনের অপরাধে সহযোগিতা এবং ষড়যন্ত্র করার জন্য ১৬টি অভিযোগ আনা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here