নিখোঁজ তানোরের বাসারুজ্জামানও নর্থ সাউথের শিক্ষার্থী

21

জনতার নিউজ

নিখোঁজ তানোরের বাসারুজ্জামানও নর্থ সাউথের শিক্ষার্থী

গুলশানের জঙ্গি হামলার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নিখোঁজ যে ১০ যুবকের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে তাদের মধ্যে মোহাম্মদ বাসারুজ্জামানও লেখাপড়া করেছেন ঢাকার নর্থ সাউথ  বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি রাজশাহীর তানোর উপজেলার লালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সিরাজ উদ্দিনের ছেলে।

মামা তালন্দ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জানান, ২০০৭ সালে বাসারুজ্জামান নর্থ সাউথের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির পর থেকে বাড়ির সঙ্গে তার যোগাযোগ কমে যায়। বছর দুই আগে ঢাকায় বিয়ে করার পর তা সে তেমন বাড়ি আসত না। গণমাধ্যমে ছবিসহ সংবাদ প্রকাশের পর বাড়ির লোকজন বাসারুজ্জামানের নিখোঁজ থাকার বিষয়টি জানতে পারেন।

গত ১ জুলাই গুলশানে হামলাকারী যুবকদের সবাই বেশ কয়েক মাস ধরে নিখোঁজ ছিলেন, যাদের মধ্যে নিবরাস ইসলাম ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভারসিটির ছাত্র। এর এক সপ্তাহের মাথায় শোলাকিয়ায় হামলা চালাতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে নিহত আবীর রহমানও একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনিও চার মাস আগে নিখোঁজ হন বলে পরিবারের ভাষ্য।

বাসারুজ্জামানের স্বজনরা জানান, সে নিখোঁজ তা তারা এতদিন জানতেন না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঢাকার তেজগাঁওয়ে তার যে ঠিকানা দিয়েছে, সেটি তার শ্বশুরবাড়ি। নিখোঁজের আগে ওই বাসাতেই তিনি ছিলেন।

মামা আবুল কাশেম আরও জানান, বাসারুজ্জামান দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে সবার বড়। সংবাদ মাধ্যমে ছবি আসার পর তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, গত ৬-৭ মাস ধরে শ্বশুরবাড়ির কারও সঙ্গেও তার যোগাযোগ নেই। তিনি শুনেছিলেন, বাসারুজ্জামান দুই বছর আগে বিদেশি কোম্পানিতে চাকরি নিয়েছেন। তবে ওই কোম্পানির নাম জানতেন না।

আবুল কাশেম জানান, গ্রামের স্কুল থেকে এসএসসি পাসের পর রাজশাহী নিউ গভ. ডিগ্রি সরকারি কলেজে এইচএসসি পড়েন। সে বিয়ের পর গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিল মাত্র একবার।

তানোর থানার ওসি আব্দুস সালাম বলেন, ঈদের আগে বাসারুজ্জামানের শ্বশুর তেজগাঁও থানায় জিডি করেছেন। সে সত্যিই বিদেশে গেছেন না দেশেই আত্মগোপন করেছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here