দুই দিনে অ্যান্টি কিডন্যাপিং স্কোয়াডে ১৭ অভিযোগ

29

dmp-pollice-logoঅপহরণ প্রতিরোধে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কর্তৃক গঠিত অ্যান্টি কিডন্যাপিং স্কোয়াডে গত দুই দিনে ১৭টি অভিযোগ এসেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা অপরাধ তথ্য (দক্ষিণ) বিভাগের উপকমিশনার কৃষ্ণপদ রায়। আজ সোমবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, অ্যান্টি কিডন্যাপিং স্কোয়াড গঠন হওয়ার পর কেবল একটি ঘটনা এসেছে। বাকি ১৬টি ঘটনা আগে এসেছে বিভিন্ন থানা থেকে। একটি তরুণী অপহরণের যে ঘটনা এসেছে, সেটি প্রেমঘটিত বলে আমরা মনে করছি। তিনি আরো জানান, অ্যান্টি কিডন্যাপিং স্কোয়াড অপহরণের বাইরেও প্রয়োজনে বিশেষ কাজ করবে।
এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি অভিযান পরিচালনা করে স্কোয়াড। এ সময় রাজধানীর বাড্ডা থানাধীন আফতাবনগর এলাকা থেকে অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায়কারী আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিল। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি ওয়াকিটকি, একটি হ্যান্ডকাফ, ২০টি ককটেল ও একটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হয়। আটকতৃতদের নাম : দলনেতা কাজল মৃধা সুজন (৩২), মো. জামাল উদ্দিন (৩৫), মো. শিপন (৩০), মো. ইয়াকুব (৩১), মো. মামুন খলিফা (২৮), মো. রুবেল (২৫), মো. শিমুল সরদার (২৭) ও রফিকুল্লাহ শাহেদ (৪৭)।
উপকমিশনার কৃষ্ণপদ রায় আরো জানান, গোয়েন্দা পুলিশ যেকোনো অভিযানে গেলে অবশ্যই তাদের পরিচয় প্রদান করবে। প্রথমে পরিচয় প্রদান না করলেও অভিযান শেষে গ্রহণযোগ্য পরিচয় প্রদান করে তারা স্থান ত্যাগ করবে। যদি কেউ পরিচয় দিতে না চায় তাহলে নিকটস্থ থানা অথবা মহানগর গোয়েন্দা কার্যালয়ে ভুক্তভোগীদের যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here