দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের পদত্যাগ

15

CM Delhiঅনেক নাটকীয়তার পর গতকাল শুক্রবার ভারতের দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কংগ্রেস ও বিজেপির বাধার কারণে লোকপাল বিল পাস না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। পদত্যাগের পরই তিনি বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার সুপারিশ করে নতুন নির্বাচন দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। খবর জি নিউজের।

সূত্র জানায়, গতকাল সারাদিন কেজরিওয়ালের পদত্যাগের গুজব ছিল দিল্লিতে। রাতে সব জল্পনার অবসান হয়। ৪৯ দিন সরকার চালানোর পর নিজের অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন তিনি। প্রতিশ্রুত লোকপাল বিল পাস না করতে পারায় মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর ইস্তফার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ফ্যাক্স মারফত পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দেন উপরাজ্যপালকে। এরপর চলে যান দলীয় কার্যালয়ে।সেখানে তিনি বলেন, বিধানসভায় জনলোকপাল বিল পেশের বিরুদ্ধে কংগ্রেস, বিজেপি এক সঙ্গে বিরোধীতা করেছে। ৪২ জন বিধায়ক এই বিল পেশের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন। সমর্থকদের সামনে কেজরিওয়াল জানিয়েছেন তাঁর সরকার মুকেশ আম্বানির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার জন্যই বিধানসভায় জনলোকপাল বিল পেশ করতে দেয়নি কংগ্রেবিজেপি। দিল্লির প্রদ্ধন মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সরকার আসলে মুকেশ আম্বানির টাকায় চলে। বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদীর ভোট প্রচারে বিপুল অর্থব্যায়ের পিছনেও মুকেশ আম্বানির টাকা আছে বলে অভিযোগ এনেছেন তিনি। কেজরিওয়ালের অভিযোগ, কংগ্রেস-বিজেপি ভয় পেয়েছে। এরপর জনলোকপাল বিল আনলে শিন্ডেকেও হয়ত বিপাকে পড়তে হবে। তাই আজ জনলোকপাল বিল পেশ করতে দিল না ওরা। পরে উপরাজ্যপালের কাছে দিল্লির বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার আবেদন করেন কেজরিওয়াল। তিনি বলেন, দিল্লিতে ফের নির্বাচন দিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here