থামছে না পেট্রোল বোমা বার্ন ইউনিটে স্বজনদের আহাজারি

10

Burnহরতাল-অবরোধে সর্বনাশা ঘাতক পেট্রোল বোমা হামলা থামছে না। বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পেট্রোল বোমা মেরে কিংবা যানবাহনে আগুন লাগিয়ে মানুষ হত্যা বন্ধের কয়েকদফা আহ্বান জানিয়েছেন। হরতাল-অবরোধে পিকেটাররা সেই আহ্বানের তোয়াক্কা করেনি, সাড়াও দেয়নি। তারা একের পর এক যানবাহনে নিরীহ পথচারীদের ওপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে যাচ্ছে। জীবন হারাচ্ছেন পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। প্রশাসন থেকে কঠোর অবস্থানের কথা বলা হলেও হরতাল অবরোধে পেট্রোল বোমা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার পরিচয় দেয়া হচ্ছে। কোন কোন জেলা ও থানার পুলিশ কর্মকর্তাদের পেট্রোল বোমা হামলায় জড়িতদের সঙ্গে দলীয় সংখ্যতার অভিযোগ উঠেছে। ইতিমধ্যে একজন পুলিশ সুপার ও একজন ওসির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ সদর দফতর থেকে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নির্বাচনকালে পেট্রোল বোমা হামলার শিকার এক প্রিজাইডিং অফিসার ও দুই পুলিশ কনস্টেবল। তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিত্সাধীন। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম সদস্য। তাদের শয্যা পাশে স্বজনদের আহজারি। এ তিনজন নিয়ে গতকাল পর্যন্ত বার্ন ইউনিটে হরতাল অবরোধে দগ্ধ অবস্থায় ৩৮ জন চিকিত্সাধীন। তাদের ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা খুবই সংকটজনক। যে কোন সময় তারা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারেন বলে বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন ডা. পার্থ শংকর পাল জানান। পেট্রোল বোমায় দগ্ধ হওয়ার সময় তাদের শ্বাসনালী পুড়ে যায়। এটাই তাদের জন্য বিপজ্জনক বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। এদিকে সর্বশেষ গতকাল রাত ৮টায় সিরাজগঞ্জে আলু বোঝাই ট্রাকে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে শিবির ক্যাডাররা। এতে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যায়।এছাড়া তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গত রবিবার গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার পোনতাইর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার সাইদুল ইসলাম (৪৮) ভোট গণনা শেষে ব্যালট পেপারসহ অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে টেম্পোযোগে জেলা সদরে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন। সঙ্গে কয়েকজন পুলিশ সদস্য ছিল। গোবিন্দগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের কাছে আসলে জামায়াত-শিবিরের ক্যাডাররা টেম্পোতে পরপর কয়েকটি পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। টেম্পোতে আগুন ধরে যায়। ব্যালট পেপারসহ অন্যান্য সামগ্রী পুড়ে যায়। দগ্ধ হন প্রিজাইডিং অফিসার সাইদুল ইসলাম ও পুলিশ কনস্টেবল আবুল কালাম আজাদ (৪০)। তাদেরকে উক্ত বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। প্রিজাইডিং অফিসারের দুই হাত ও মুখমন্ডল ঝলসে যায়। তার দেহের ১২ ভাগ দগ্ধ হয়েছে। চিকিত্সকরা জানান, আগুনে তার শ্বাসনালী পুড়েছে। পুলিশ কনস্টেবল আজাদের মুখমণ্ডল পুড়েছে। তারও শ্বাসনালী পুড়েছে বলে চিকিত্সকরা জানান।

গোবিন্দগঞ্জ মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক সাইদুল ইসলামকে নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে নিয়োগ দেয় নির্বাচন কমিশন। স্ত্রী ও ২ ছেলে নিয়ে সংসারে সুখেই ছিলেন সাইদুল ইসলাম।

সংসারের উপার্জনক্ষম একমাত্র ব্যক্তি তিনি। পেট্রোল বোমা তার সেই সুখ কেড়ে নিয়ে গেছে বলে কান্না জড়িত কণ্ঠে জানান স্ত্রী মাহফুজা। পুলিশ কনস্টেবল আজাদের পরিবারেরও একই অবস্থা। তিনিও পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি।

নির্বাচনের আগের দিন গত শনিবার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ কমলতলা ভোট কেন্দ্রের বারান্দায় বসা ছিলেন পুলিশ কনস্টেবল ইমাম উদ্দিন (৪৮)। ঐসময় তাকে লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে শিবির ক্যাডাররা। মাথা, মুখমণ্ডল, দুই হাত ও কোমর ঝলসে যায়। পুড়ে যায় তার শ্বাসনালী। ৩ কন্যা ও স্ত্রীকে নিয়ে ছিল তার সুখের সংসার। পেট্রোল বোমা তার সেই সুখের সংসার কেড়ে নিয়েছে বলে স্ত্রী আয়েশা খাতুন জানান। পুলিশ কনস্টেবল ইমামই সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন জানান।

বার্ন ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, পেট্রোল বোমায় দগ্ধ ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের সদস্যদের আহাজারি আর সহ্য হয় না। এ নির্মম বর্বরতা বন্ধ করার আহ্বান জানান তিনি ।

সিইসি ও আইজিপি দগ্ধদের

দেখতে যান বার্ন ইউনিটে

গতকাল প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ ও পুলিশের আইজি হাসান মাহমুদ খন্দকার বার্ন ইউনিটে চিকিত্সাধীন প্রিজাইডিং অফিসার এবং পুলিশ কনস্টেবলদের দেখতে যান। তারা বেশ কিছুক্ষণ তাদের শয্যা পাশে অবস্থান করেন। চিকিত্সা সেবা নিয়ে চিকিত্সকদের সঙ্গে আলাপ করেন।

পুলিশের আইজি হাসান মাহমুদ খন্দকার বলেন, পেট্রোল হামলা ও যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করে নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার ও পুলিশ সদস্যদের ঝলসে দেয়ার সঙ্গে জড়িতদের কোন অবস্থায় ছাড় দেয়া হবে না।

বোমা মেরে মানুষ হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ আরও কঠোর অবস্থানে যাবে বলে তিনি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here