ডোম ছুরি চালানোর আগেই মর্গে উঠে বসল ‘লাশ’

16

dead-bodytজীবনের প্রতি বীতশ্রদ্ধ হয়ে কীটনাশক খেয়ে ফেলেছিলেন কেনিয়ার নাগরিক পল মুতোরা। হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিত্সকেরা চেষ্টা করলেন তাঁকে বাঁচানোর। তবে শেষ পর্যন্ত তাঁরা মৃত ঘোষণা করলেন মুতোরাকে।

ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হলো মুতোরার ‘লাশ’। তবে ডোম ছুরি চালানোর আগেই জেগে উঠলেন তিনি। বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।
কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবি থেকে ৯০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে নাইভাশা সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। মুতোরা বর্তমানে ওই হাসপাতালেই চিকিত্সা নিচ্ছেন।

চিকিত্সকেরা বলেন, মুতোরার চিকিত্সায় যে ওষুধ দেওয়া হয়েছিল, তাতে তাঁর হূত্স্পন্দন খুবই ধীর হয়ে যায়। এ কারণেই তাঁকে মৃত ভাবা হয়েছিল। গত বুধবার মুতোরাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।
মৃত ঘোষণার পর মুতোরাকে একনজর দেখতে পরদিন (গত বৃহস্পতিবার) সকালে হাসপাতালে ছুটে যান তাঁর বাবাসহ অন্য স্বজনেরা। সেখান থেকে ফিরে তাঁরা শেষকৃত্যের আয়োজনেও নেমে পড়েন। কিন্তু বিকেলে খবর আসে, মুতোরা মরেননি, তিনি বেঁচে আছেন।
একজন জীবিত মানুষকে মৃত ঘোষণা করে মর্গে পাঠানোর ঘটনায় কর্তৃপক্ষ তদন্ত শুরু করেছে। হাসপাতালের প্রধান দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা যোসেফ এমবুরু বলেন, এ ঘটনায় চিকিত্সকেরা হয়তো দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন ঠিকই, কিন্তু কাটাছেঁড়ার হাত থেকে ভুক্তভোগী বেঁচে গেছেন।
আর যাঁকে নিয়ে এত কাণ্ড, সেই মুতোরা বললেন, ‘গোড়া থেকেই আমার ভুল হয়ে যাচ্ছে। আমি আমার বাবার কাছে ক্ষমা চাইছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here