জামায়াত ও হেফাজত থেকে দূরে থাকতে বিএনপির প্রতি ইইউর আহ্বান –

14

EEUইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) প্রতিনিধিদল জামায়াতে ইসলামী ও হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে বিএনপির প্রতি পুনরায় আহ্বান জানিয়েছে। ইইউ প্রতিনিধিদল বলেছে, বাংলাদেশের ভবিষ্যতের স্বার্থে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধের সংস্কৃতি চালু করা প্রয়োজন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বাংলাদেশে সফররত ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) সংসদীয় প্রতিনিধিদল আজ সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ ভবনে তাঁর কার্যালয়ে সাক্ষাত্কালে এ কথা বলে। প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ইউরোপীয় প্রতিনিধিদলের চেয়ারম্যান জিন ল্যাম্ববার্ট।
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন। তিনি বলেন, ইউরোপীয় সংসদীয় প্রতিনিধিদল সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত, এমন দলগুলোকে নিষিদ্ধ করার ওপর পুনরায় গুরুত্বারোপ করেন। তাঁরা বলেছেন, যেসব দল সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকবে, সেসব দল নিষদ্ধি করা উচিত।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী করতে তাঁর সরকার গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ ভোট কারচুপির সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসেছে।
এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের গঠিত সার্চ কমিটির মাধ্যমে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী ২০০৭ সালে লন্ডন থেকে দেশে ফিরে আসার ক্ষেত্রে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সৃষ্ট বাধা দূর করতে তার পক্ষে প্রস্তাব গ্রহণ করায় ইউরোপীয় ইউনিয়নকে ধন্যবাদ জানান।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার দেশকে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরিয়ে এনেছে। বাংলাদেশের নির্বাচনকে আরো স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য করতে ত্রুটিমুক্ত ইভিএম পদ্ধতি চালু করার কথা ভাবছে তাঁর সরকার। এ বিষয়ে ইইউ সরকারকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।
গার্মেন্টস শিল্পের বিভিন্ন উন্নয়নের লক্ষ্যে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের বর্ণনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সরকার গার্মেন্ট শ্রমিকদের বেতন এক হাজার ৬০০ থেকে পাঁচ হাজার ৩০০ টাকায় উন্নীত করেছে। গার্মেন্ট শ্রমিকদের জন্য ডরমেটরি ও তাদের জন্য নিরাপদ কর্মপরিবেশ সৃষ্টি করেছে।’
তিনি বলেন, গার্মেন্টসে যখন কোন দুর্ঘটনা ঘটেছে তখনই আমাদের সরকার সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। গার্মেন্ট ভিলেজ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান সরকার।
ইইউ প্রতিনিধিদল গার্মেন্ট শিল্পে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ায় সরকারের প্রশংসা করেন।
বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর পরররাষ্ট্রবিষয়ক উপদষ্টো ড. গওহর রিজভী, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও বেলজিয়ামে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইসমত জাহান এবং ঢাকায় নিযুক্ত ইইউ রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হানা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here