জামায়াত আসবে না বলে তারা নির্বাচনে আসবে না : সজীব ওয়াজেদ জয়

12

joyপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে ও তাঁর তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে তিনি সন্তুষ্ট। কারণ নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। তিনি বলেন, ‘একটি খেলা খেলতে গেলে যদি পরাজয় হবে জেনে কোনো দল না আসে, তাহলে আমরা পয়েন্ট পাব না কেন?’
আজ সোমবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি নিয়মিত ফ্লাইটে দেশে ফেরেন জয়। ফেরার পর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর পাকিস্তানের সংসদে প্রস্তাব পাস হয়েছে। কিন্তু আমাদের বিরোধী দলের নেতা কোনো বিবৃতি দেননি। এটা খুব লজ্জার।’ এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এটা আওয়ামী লীগ, বিএনপির বিষয় নয়। এ দেশের স্বাধীনতার বিষয়। এ সময় কোনো রাজনীতিবিদের চুপ করে থাকা অসম্ভব।’

বিরোধী দলের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে বলে উল্লেখ করে জয় বলেন, ‘তাদের সঙ্গে অনেক দিন ধরে গোপনে আলোচনা হয়েছে। অনেক সুযোগ সুবিধার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু জামায়াত আসবে না বলে তারা নির্বাচনে আসবে না।’
বিরোধী দল না এলেও নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে বলে জানিয়ে জয় বলেন, ‘একটা দল বয়কট করতে পারে। ভোটে অংশ না নেওয়ার গণতান্ত্রিক অধিকার তাদের আছে। তাদের তো আমরা জোর করে নির্বাচনে আনতে পারি না। যুদ্ধাপরাধীদের জন্য তারা না এলেও নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।’
যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কমনওয়েলথ নির্বাচন পর্যবেক্ষণে না এলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পাবে কি না, জানতে চাইলে জয় বলেন, ‘তাদের তো প্রয়োজন নেই। কারণ সংস্থাগুলো বলেছে বিরোধী দল না থাকায় পর্যবেক্ষক পাঠাবে না। কিন্তু নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে না, একথা তো তারা বলেনি।’
প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না, জানতে চাইলে জয় বলেন, যে প্রধানমন্ত্রীর অধীনে পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে, তাঁর অধীনে কেন জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না? তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছেন বলেই কি তাঁকে পদত্যাগ করতে হবে?’
নির্বাচনে ভোট দিতে এসেছেন বলে জানান জয়। তিনি বলেন, ‘আগামী নির্বাচন পর্যন্ত থাকব। নির্বাচনী সফর করব।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here