ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে ভুয়া সাংবাদিকসহ গ্রেফতার ৬.

36

জনতার নিউজঃ

 

রাজধানীর মিরপুরে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগে এক নারী ও এক ভুয়া সাংবাদিকসহ ৬জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন মাহবুব আহাদ, আলমগীর হোসেন শুভ, আবু বক্কর সিদ্দিক, লিমন আনিছ মাহমুদ, মোছা মিয়া ও মাহমুদা আক্তার। সোমবার রাতে মিরপুর আনসার ক্যাম্প সংলগ্ন ২০৪/এ ছাপাখানা রোডের বাসায় এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতারকৃতদের পুলিশ গতকাল রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

পুলিশ জানায়, ঘটনার দিন সন্ধ্যা পৌনে ৭ টায় ঐ কলেজ ছাত্রী তার চাচির বাসায় বেড়াতে আসেন। এর কিছু পরে গ্রেফতারকৃত মাহমুদা আক্তার এক যুবককে নিয়ে ঐ বাসায় আসে। এ সময় মাহমুদা ঐ কলেজ ছাত্রীর চাচিকে জানায়, তার এক পরিচিত ব্যক্তি তাকে পাঠিয়েছে রাতে বাসায় থাকার জন্য। কথা বলার এক পর্যায় ৬/৭ জন যুবক দ্রুত বাসায় প্রবেশ করে। তারা নিজেদের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বলে, এই বাসায় অবৈধ ব্যবসাসহ নানা রকম অসামাজিক কার্যকলাপ পরিচালিত হয়। তারা এ বিষয়ে রিপোর্ট তৈরি করবে।

তাদের কথা শুনে কলেজ ছাত্রী ও তার চাচি প্রতিবাদ করলে সাংবাদিক পরিচয়দানকারী লোকজন তাদেরকে চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে। এক পর্যায় গ্রেফতারকৃত মাহবুব আহাদ অন্যদের সহযোগিতায় কলেজ ছাত্রীকে জোরপূর্বক পাশের রুমে নিয়ে যায়। এসময় আলমগীর হোসেন শুভ তার গায়ে থাকা ওড়না সরিয়ে নেয় এবং অন্যরা ভিডিওতে এ দৃশ্য ধারণ ও ছবি তোলে। কলেজ ছাত্রী চিত্কার করলে তারা ধারণকৃত ভিডিও দৃশ্য ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। পাশাপাশি মাহবুব আহাদ রুমের দরজা বন্ধ করে ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

একইভাবে আলমগীর হোসেন শুভ তাকে ধর্ষণ করে। এরপর তারা ঐ কলেজ ছাত্রীর চাচির কাছে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। অন্যথায় ভিডিও ফুটেজ ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবে বলে পুনরায় হুমকি দেয়। এ অবস্থায় কলেজ ছাত্রী ও তার চাচির চিত্কারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামিদের মধ্যে ৩/৪ জন ছবি ও ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজসহ ক্যামেরা নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজনেরা বাড়ির গেটে ৬ জনকে আটক করে মিরপুর থানায় সোর্পদ করে। এ ঘটনায় মিরপুর থানায় মামলা হয়েছে। ঐ কলেজ ছাত্রীকে ভর্তি করা হয়েছে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here