চারিদিকে শুধু খুন আর খুন ! চবিতে এক ছাত্রলীগ কর্মী,ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য,কুষ্টিয়ায় স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষককে খুন। কিন্ত আমরা অনেক নিরাপদ আছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

27

জনতার নিউজ

চবিতে এক ছাত্রলীগ কর্মীর চাকুর আঘাতে আহত আরেক ছাত্রলীগ কর্মী

চারিগিকে শুধু হত্যা, ধর্ষন, ঘুম, চিনতাই, হরদম চলছে, মানুষ আতংকে দিনাতিপাত করছেন, সরকারি কর্মচারি কর্মকর্তা যার যার ইচ্ছাই

কাজ করে যাচ্ছেন কোন কোন ক্ষেত্রে জনগনকে তারা দাস/দাসি মনে করে আচার ব্যবহার করেন, কোথাও যেন কেউ দেখার নাই, সংবাদ

কর্মিরা লাশ লাশ দেখতে দেখতে এখন নিজেরাই সার্জারী ডাক্তারের মত মন কে শক্ত করে যার যার রিপোর্ট করে যাচ্ছেন, কারন কিছু করার

নাই তবে আজকে একটু আশার আলো দেখা যাচ্ছে যেহেতু 

সারাদেশে নিরাপত্তাহীনতা বোধ করার কোনো কারণ নেই বলে মনে করছেন মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তার পরেও যদি নিচের খুন গুলো হয়ে থাকে এতে ভাবনার কিছু নাই । 

পরিস্থিতির কি অবনতি হচ্ছে না- প্রশ্ন করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “অবনতি হওয়ার কোনো কারণ নেই। সবকিছু দমন করা হচ্ছে। কেউ বাদ যাচ্ছে না। সবাইকে শনাক্ত করা হয়েছে। সেজন্য আমি মনে করি আমাদের দেশ, আমরা অনেক নিরাপদ আছি।

চবিতে এক ছাত্রলীগ কর্মীর চাকুর আঘাতে আহত আরেক ছাত্রলীগ কর্মী

 কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের একই গ্রুপের এক কর্মী চাকু দিয়ে জখম করেছে শরিফ উদ্দিন নামের আরেক ছাত্রলীগ কর্মীকে। গুরুতর আহত অবস্থায় শরিফকে প্রথমে চবি মেডিকেল সেন্টার থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) পাঠানো হয়েছে। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হলের দ্বিতীয় তলায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত ছাত্রলীগ কর্মী শরিফ উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুজনই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বি সুজন অনুসারী ছাত্রলীগের ‘বিজয়’গ্রুপের কর্মী।  বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিনান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী মো. আবির ড্যানিয়েল নামের এক কর্মী কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে একই গ্রুপের কর্মী  শরিফ উদ্দিনকে চাকু দিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় মো. আবির ড্যানিয়েলও আহত হয়। পরে শরিফকে গুরুতর আহত অবস্থায় চমেক এবং মো. আবির ড্যানিয়েলকে চবি মেডিকেল সেন্টার পাঠানো হয়।

 বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলের কর্তব্যরত চিকিৎসক ড. মোহাম্মদ আবু তৈয়ব জানান, ‘ শরীফের কানের পেছনে একটি ও পিঠের বিভিন্ন জায়গায় চাকু দিয়ে জখম করা হয়েছে। আবীরে মাথায় সামান্য চোট লেগেছে।’

এদিকে এ দুজন ছাত্রলীগ কর্মী নয় বলে দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বি সুজন।

এ বিষয়ে জানাতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন, ‘গুরুতর আহত অবস্থায় শরিফকে চমেকে পাঠনো হয়েছে। অন্য দিকে মো. আবির ড্যানিয়েলকে চবি মেডিকেল সেন্টার থেকে প্রাথমকি চিকিৎসা দিয়ে হাটহাজারী মডেল থানায় পাঠানো হয়েছে। তারা ছাত্রলীগ কর্মী কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, শুনেছি তারা দুজনই ছাত্রলীগের বিজয় গ্রুপের কর্মী। কি কারণে ঘটনাটি ঘটছে তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে জবাই করে হত্যা আটক ১

সোমবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহরতলীর পীরবাড়ি এলাকায় (অবঃ) সেনা সদস্য বাহার সরকার (৪৫) কে জবাই করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্বরা। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, রাত প্রায় ১০টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পীরবাড়ীর মিন্দে আলী বাড়ীর পাশে সরু রাস্তায় তাকে জবাই করে হত্যা করা হয়। তার বাড়ি নবীনগর উপজেলার বীরগাঁও গ্রামে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ফুলবাড়িয়া এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি।

ঠিক কি কারনে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা পুলিশ নিশ্চিত করতে পারেনি। ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন মামুন নামে একজনকে আটক করে পুলিশে দেয়। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাইনুর রহমান জানান, পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে টাকা পয়সার লেনদেন নিয়ে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হতে পারে।

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় প্রাইমারী স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যা

আহত-২, একজনের অবস্থা আশংকা জনক

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার পল্লীতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মজিবুর রহমান (৭০) নামে এক প্রাইমারী স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। আহত হয়েছে অন্তত আরো ২ জন। এদের মধ্যে গুরুতর জখম করা হয়েছে তার ছোট ভাই মিজানুর রহমানকে (৫৮)।

ভেড়ামারা থানা ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত ৯টার দিকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার ফকিরাবাদ এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। মজিবুর রহমান ফকিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

আরো জানা গেছে, ভেড়ামারা উপজেলার মোকারিমপুর ইউনিয়নের ফকিরাবাদ গ্রামের জামে মসজিদে এশার নামাজ শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন দুভাই মজিবুর রহমান ও মিজানুর রহমান এবং অপর এক এলকাবাসী। এ সময় ওঁৎ পেতে থাকা প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো এবং ভারি অস্ত্র দিয়ে দুভাইকে উপর্যুপরি কোপাতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলে নিহত হন প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান (৭০)। গুরতর আহত মিজানুর রহমান কে তৎক্ষণাৎ মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশংকা জনক হলে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার অবস্থা আশংকাজনক। মিজানুর রহমান মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। অপর এক আহতকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ভেড়ামারা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর হোসেন খন্দকার জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ৩ জনকে কোপানো হয়েছে। এদের মধ্যে ১ জন মারা গেছে। পুলিশ প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে দোষীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আমরা অনেক নিরাপদ আছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 

আমরা অনেক নিরাপদ আছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সারাদেশে নিরাপত্তাহীনতা বোধ করার কোনো কারণ নেই বলে মনে করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। একের পর এক হত্যাকাণ্ডে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে মনে করেন কি না- এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি না, সারাদেশে এ ধরনের হত্যাকাণ্ড চলছে। এটি বিছিন্নভাবে দু-একটা ঘটছে এবং আমাদের দেশে যারা আগে থেকে জঙ্গি তত্পরতায় সম্পৃক্ত ছিল, তাদেরই একটি ভগ্নাংশ কিংবা তারা প্রয়াস পাচ্ছে।’

সোমবার গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের মূল ফটকের কাছে অবসরপ্রাপ্ত এক কারারক্ষীকে গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয়। এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকেও মোটরসাইকেলে এসে খুন করে যায় দুর্বৃত্তরা। কারারক্ষী খুনের পর সোমবার দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার কার্যালয়ে সামপ্রতিক হত্যাকাণ্ডগুলো নিয়ে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের মুখে পড়েন।

পরিস্থিতির কি অবনতি হচ্ছে না- প্রশ্ন করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “অবনতি হওয়ার কোনো কারণ নেই। সবকিছু দমন করা হচ্ছে। কেউ বাদ যাচ্ছে না। সবাইকে শনাক্ত করা হয়েছে। সেজন্য আমি মনে করি আমাদের দেশ, আমরা অনেক নিরাপদ আছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here