চলচ্চিত্র ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে : রাষ্ট্রপতি

16

.hamidরাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, চলচ্চিত্র নির্মল বিনোদনের পাশাপাশি আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও স্বাধিকার আন্দোলনের গৌরবময় অধ্যায় তুলে ধরতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। জনগণকে মুক্তির সংগ্রামে উদ্বুদ্ধ করেছে। জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস-২০১৪ উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি এ কথা বলেন।
চলচ্চিত্র নির্মাতা ও কলাকুশলীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চলচ্চিত্র শিল্প তার হারানো ঐতিহ্য ফিরে পাবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করে আবদুল হামিদ বলেন, এদেশে নির্মিত হবে সুস্থ বিনোদনমূলক বিশ্বমানের চলচ্চিত্র। দর্শকরা আবারও প্রেক্ষাগৃহমুখী হবে। চলচ্চিত্র শিল্প দেশের জন্য বয়ে আনবে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি ও সম্মান।
তিনি বলেন, চলচ্চিত্র একটি শক্তিশালী গণমাধ্যম। চলচ্চিত্রের জীবনঘনিষ্ঠ ও হৃদয়গ্রাহী আবেদন সকল শ্রেনী-পেশার মানুষের হৃদয়কে প্রবলভাবে স্পর্শ করে।
দেশের জনগণকে চলচ্চিত্র সচেতন করার লক্ষ্যে ‘এগিয়ে চলি ভবিষ্যত্ সৃজনে’ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে ৩ এপ্রিল তথ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের আয়োজনে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস-২০১৪’ উদ&যাপিত হচ্ছে জেনে রাষ্ট্রপতি আনন্দ প্রকাশ করেন। একই সাথে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস-২০১৪’ এর সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করেন তিনি।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল তত্কালীন প্রাদেশিক পরিষদের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী হিসেবে চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন বিল উত্থাপন করেন। সরকার এই দিনটিকে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস হিসাবে ঘোষনা করে। দিনটিকে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস ও চলচ্চিত্রকে শিল্প ঘোষণা করায় সরকারকে ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here