গিনেস বুকে লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা

18

amar sonarগিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের লাখো কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার রেকর্ডের স্বীকৃতি দিয়েছে। এর ফলে এক সুরে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে সারা বিশ্বের সামনেই নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ। লাখো কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার রেকর্ডের স্বীকৃতির বিষয়টি মঙ্গলবার গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের এক বিবৃতিতে জানানো হয়। গিনেস বুকের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে ঢাকার জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে ২ লাখ ৫৪ হাজার ৫৩৭ জন সমবেতভাবে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছিলেন। এটা বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একটি বড় অর্জন। এ অনুষ্ঠান বাস্তবায়নে সহায়তা করেছে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ। জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার ১৩ দিনের মাথায় স্বীকৃতি পেল বাংলাদেশ।

এর আগে গত বছরের ৬ মে ভারতে ১ লাখ ২১ হাজার ৬৫৩ জন লোক একসঙ্গে জাতীয় সংগীত গেয়ে রেকর্ড করেছিলো। গিনেস ওয়ার্ল্ডের স্বীকৃতির পর এই রেকর্ডটি নিজের করে নিল বাংলাদেশ। এছাড়া বাংলাদেশির সংখ্যা ভারতের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি।

২৬ মার্চ বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, পোশাক ও পরিবহনসহ বিভিন্ন খাতের কর্মীসহ সব শ্রেণিপেশার মানুষ প্যারেড মাঠে উপস্থিত হয়েছিলেন জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মেলানোর জন্য। তাদের প্রচেষ্টার স্বীকৃতি মিলেছে। সেদিন সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীতে সুর মেলান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সরকারের মন্ত্রী, সংসদ সদস্যসহ শিল্প-সংস্কৃতি অঙ্গনের মানুষেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here