গাড়িতে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ ফখরুল-খোকা-রিজভীসহ ১৭ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

13

529865946157b-Untitled-1শাহবাগে গতকাল গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ১৮-দলীয় জোটের ১৭ জনের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় একটি মামলা হয়েছে। এ ছাড়া মামলায় দুই থেকে তিনজনকে অজ্ঞাত আসামি হিসেবে দেখানো হয়েছে। মামলার অপর আসামিরা হলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব আবদুস সালাম, বিএনপির নেতা আমানউল্লাহ আমান, বরকত উল্লাহ বুলু, সালাহউদ্দিন আহমেদ, ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল কাদের ভূঁইয়া, ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক নাসির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি মাহিদুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, ঢাকা মহানগর উত্তরের ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির রওশন, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম ওরফে নিরব, যুবদলের মহানগর উত্তর সভাপতি মামুন হাসান এবং জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ও শিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি শফিকুল ইসলাম মাসুদ। এ ছাড়া অজ্ঞাত আরও দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পরিকল্পিতভাবে গাড়ি পুড়িয়ে মানুষ হত্যার অভিযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১২টার দিকে শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সোহেল রানা বাদী হয়ে মামলাটি করেন। রমনা বিভাগীয় পুলিশের উপকমিশনার মারুফ হাসান সরদার এই মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আজ শুক্রবার এসআই সোহেল রানা বলেন, মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ১৮-দলীয় জোটের নেতাদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ উসকানি, পরিকল্পনা, ষড়যন্ত্র, সহায়তা ও অর্থায়নে দুর্বৃত্তরা আলোচ্য মামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত বাসটি জব্দ তালিকা প্রস্তুত করে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। অবরোধের সমর্থনে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পরিকল্পিতভাবে মানুষ হত্যা, গুরুতর জখম, জানমালের ক্ষতিসাধনসহ জনমনে ভীতি ও আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়েছে। যা পেনাল কোডের ৩২৬/৩০৭/৩০২/৩৪/১০৯/১১৪/৪৩৫/৪২৭ ধারাসহ ১৯৯৮ সালের বিস্ফোরক উপাদানাবলি আইনের ৩/৬ ধারার অপরাধ। অজ্ঞাতনামা দুজন আসামিসহ এজাহারে উল্লিখিত বাকিদের বিরুদ্ধে বর্ণিত ধারায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গতকাল সন্ধ্যায় বিহঙ্গ পরিবহনের একটি বাস শাহবাগ শিশুপার্কের সামনে যাওয়ার পরই বাইরে থেকে কেউ বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রলবোমা ছুড়ে মারে। এরপর যাত্রীরা হঠাত্ করেই বাসের সামনের দিকে আগুন দেখতে পান। সেই আগুন মুহূর্তেই ভেতরের দিকে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার লাইটপোস্ট ভেঙে সড়ক বিভাজকের ওপর উঠে যায়। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে সাংবাদিক, ব্যাংকার, ব্যবসায়ী, গাড়িচালকসহ ১৯ জন দগ্ধ হন। আজ দুপুর পর্যন্ত এ ঘটনায় দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here