‘খালেদা জিয়ার বিচার চাই’

18

AL১০ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালানের মূল হোতা হলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তার নির্দেশে তত্কালীন শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামীর নেতৃত্বেই এই চোরাচালানকৃত অস্ত্র জেটিতে খালাস করা হয়েছিল। তাই নতুন করে তদন্ত করে খালেদা জিয়াকে বিচারের আওতায় আনতে হবে। দেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে অবিলম্বে তার বিচার হওয়া প্রয়োজন।’ আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে হরতাল বিরোধী মিছিল পূর্ব এক সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এ কথা বলেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ১০ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালানের মূল হোতা দাবি করে বলেন, খালেদা জিয়া জনগণ ও গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেন। উনার কথা ও কাজের মধ্যে মধ্যে কোন মিল নেই। তার কাছে বাংলাদেশ নিরাপদ নয়।

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, ১০ ট্রাক অস্ত্র দেশে আনার মূল ষড়যন্ত্রকারী হলেন খালেদা জিয়া। তারপর তিনি নির্লজ্জের মতো এখনো মিথ্যাচার করছেন। জামায়াতের ডাকা হরতাল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তাদের হরতাল রুটিন কর্মসূচির অংশমাত্র। হরতালের প্রভাব রাজধানীসহ দেশের কোনো স্থানেও পড়েনি।

আওয়ামী সমর্থক জোটের সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আব্দুল হক সবুজের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, মুকুল চৌধুরী প্রমুখ।

জামায়াতের ডাকা হরতাল কর্মসূচির প্রতিবাদে আজ সকাল থেকেই ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রায় শতাধিক স্থানে হরতাল বিরোধী মিছিল সমাবেশের মাধ্যমে রাজপথে সরব ছিলেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত হরতালবিরোধী সমাবেশে বক্তব্যরা বলেন, আদালতের রায়ের বিরুদ্ধ হরতাল ডেকে জামায়াত-শিবির প্রমাণ করেছে আইনের প্রতি তাদের শ্রদ্ধা নেই। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে জামায়াতের যে ভূমিকা ছিল তাতে এ দেশের মাটিতে রাজনীতি করার অধিকার তাদের নেই। জামায়াত-শিবির দেশদ্রোহী, দেশ ও জনগণের শত্রু।

বলরাম পোদ্দারের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যদের মধ্যে পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান, স্বাধীনতা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র অরুন সরকার রানা, সহকারী এটর্নি জেনারেল নুরজাহান মুক্তা, ইয়াদিয়া জামান, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এমএ জলিল প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here