কাল পদত্যাগ করবেন জাপার মন্ত্রী-উপদেষ্টারা : রুহুল আমিন

12

529f48dedc9f6-ruhulনির্বাচনকালীন সরকারের মন্ত্রিসভায় থাকছে না এইচএম এরশাদের জাতীয় পার্টি (জাপা)। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেয়ার পর এবার নির্বাচনকালীন সরকারে থাকা দলের ছয় মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও একজন উপদেষ্টাকে অবিলম্বে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন এরশাদ। একইসঙ্গে ২৪৮টি সংসদীয় আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী দলীয় প্রার্থীদের দ্রুত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারেরও নির্দেশ দেন জাপা চেয়ারম্যান। আজ বুধবার নিজের বারিধারার বাসায় ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে সংবাদ ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এই দুটি নির্দেশ দেন তিনি। তার নির্দেশের পরই রাত ৯টায় দলটির মহাসচিব রুহুল আমিন হা্ওলাদার সাংবাদিকদের জানান—কাল বৃহস্পতিবারই জাপা সদস্যরা মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করছেন।

বিকেল পাঁচটার দিকে এরশাদ যখন তার বাড়ির নিচতলায় প্রথমে দাঁড়িয়ে এবং পরে অতিথিকক্ষে বসে সংবাদ ব্রিফিং করছিলেন তখন তার পাশেই ছিলেন দলের দুই মন্ত্রী- বেসরকারি বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার ও পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং মন্ত্রী পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। জাপা থেকে মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হওয়া সালমা ইসলাম না থাকলেও এসময় তার স্বামী ও যমুনা গ্রুপের মালিক নূরুল ইসলাম বাবুল সেখানে উপস্থিত ছিলেন, অবশ্য বাবুল জাপার কোনো পদ-পদবিতে নেই। এরশাদের নির্দেশ শোনার পরে উপস্থিত দুই মন্ত্রী ও এক উপদেষ্টার প্রত্যেকের চেহারা ফ্যাকাসে হয়ে যায়, কপালে ফুটে ওঠে দুশ্চিন্তার ছাপ। তবে তারা কেউই এসময় কোনো মন্তব্য করেননি, সাংবাদিকরা তাত্ক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলেও কেউ মুখ খুলেননি।

এদিকে, এরশাদের নির্দেশের পরপরই দেশের বিভিন্ন স্থানে জাপা প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিচ্ছেন। রাত আটটায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জানা গেছে, বরগুনা-১ আসনে, ঢাকার ৪টি আসনে, নরসিংদীর ৩টিতে, নোয়াখালীর ৫টি এবং টাঙ্গাইলে ২টি আসনে জাপার প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

‘মঙ্গলবার রাতে বন্ধুর বাসায় ছিলাম’

‘আগেরদিন নির্বাচন থেকে সরে দেয়ার ঘোষণা দেয়ার পর গত ২৪ ঘণ্টা আপনি কোথায় ছিলেন?’ সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন ‘আমার এক বন্ধুর বাসায় ছিলাম।’ আমরা শুনলাম নিজের বাসায় ছিলেন, পাল্টা এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন ‘না, আমার বাসায় ছিলাম না।’ তাহলে লুকিয়ে ছিলেন কেন, এর জবাবে সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘পালিয়ে ছিলাম তোমাদের ভয়ে।’ উল্লেখ্য, এরশাদ মঙ্গলবার বনানী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন শেষে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ‘নিরুদ্দেশ’ হয়ে যান। ২৬ ঘণ্টা পর আজ বিকেলে তিনি প্রকাশ্যে আসেন।

চার মন্ত্রী সচিবালয়ে যাননি

আগেরদিন এরশাদের নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণার পর আজ সচিবালয়ে দপ্তরে যাননি স্বাস্থ্যমন্ত্রী বেগম রওশন এরশাদ, পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, বিমানমন্ত্রী রুহুল আমিন হাওলাদার এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম। তবে বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদের ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু অফিস করেছেন। জিএম কাদের ও চুন্নু দু’জনই গতকাল নিজ নিজ দপ্তরে সাংবাদিকেরদ বলেছেন ‘তারা কিছু জানেন না, তবে এরশাদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।’

জি এম কাদের মহাজোট সরকারের বাণিজ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন আগে থেকেই। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনকালীন ‘সর্বদলীয়’ সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করলে ডাক পান আরো ছয় জন। গত ১৯ নভেম্বর শপথের পর দপ্তরবণ্টনে এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ পানিসম্পদ, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। মুজিবুল হক চুন্নুকে যুব ও ক্রীড়া এবং সালমা ইসলামকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়। এছাড়া মন্ত্রী পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসাবে নিয়োগ পান জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here