কল্যাণপুরে বিস্ফোরণের পর হেলে গেছে ১৪ তলা ভবন

11

 

রাজধানীর কল্যাণপুরে ১৪ তলা একট ভবনের বেজমেন্টে প্রচণ্ড শব্দে বিস্ফোরণ হলে ভবনটি একদিকে হেলে পড়ে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মিজান টাওয়ার নামে ওই ভবনের বেজমেন্টে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে বেজমেন্টের একটি বড় অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর কিছুক্ষণ পরই ভবনটি একদিকে হেলে পড়ে।

বিস্ফোরণের শব্দ শুনে টাওয়ারের আতংকিত লোকজন হুড়োহুড়ি করে নিচে নেমে আসেন। নামতে গিয়ে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। মুহূর্তেই সেখানে হাজারো মানুষ ভিড় জমায়। মিরপুর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ভবনের কয়েকজন বাসিন্দা জানান, বুধবার সন্ধ্যার দিকে হঠাত্ করেই বেজমেন্টে বিস্ফোরণ ঘটে। কেউ ধারণা করছে, ভবনের সেপটিক ট্যাংকে বিস্ফোরণ ঘটেছে। আবার কেউ বলছে, জেনারেটর বিস্ফোরিত হয়ে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

বিস্ফোরণে বেজমেন্টের সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে ভবনটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে খানিকটা হেলে পড়ে। ভবনের প্রথম থেকে তৃতীয় তলা পর্যন্ত দোকান, অফিস ও ব্যাংক। বাকিগুলো আবাসিক। এদিকে ঘটনার পর পর মিরপুর রোডের এক পাশের সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম সূত্র জানায়, আগুন লাগার এবং বিল্ডিংয়ের কোনো এক স্থান ধসে পড়ার খবর পেয়ে একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহউদ্দিন জানিয়েছেন, ভবনের গ্যাস লাইনে হঠাত্ করে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। এতে ভবনের এক পাশের সিঁড়ি দেবে যায়। সেই সঙ্গে বিদ্যুতের খুঁটিগুলো বাঁকা হয়ে গেছে। যে কোনো সময় তারগুলো ছিঁড়ে যেতে পারে। এ কারণে বিদ্যুত্ সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে।

ফায়ারসার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকেও জানানো হয়, আগুন এবং বিল্ডিংয়ের কোনো এক স্থান ধসে পড়ার খবর পেয়ে একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। ভবনের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৩ জন আহত হয়েছেন। তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিত্সার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ভবনের বাসিন্দা গোবিন্দ সরকার বলেন, হঠাত্ বিস্ফোরণের শব্দ শুনে আমি সপরিবারে বের হয়ে আসি। আমার মতো কয়েকশ মানুষ ভবন থেকে নিচে নেমে এসেছে।

রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ভবনটি ঘিরে রেখেছে। ভবনের বাসিন্দারা বাইরে অবস্থান করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here