আল-কায়েদার অডিও বার্তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে : স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

11

al kaidaআন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদা নেতা আয়মান আল-জাওয়াহিরি অডিওবার্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ রবিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, অডিও বার্তাটি কোথা থেকে, কিভাবে এই অডিওবার্তা এসেছে, তা খতিয়ে দেখছে সরকার।

এক প্রশ্নে জবাবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই অডিওবার্তাকে বড় হুমকি মনে করছি না। যে সব দেশে এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে, সেখানে স্থানীয়রা এতে ইন্ধন দেয়। কিন্তু আমাদের জনগণ আমাদের সঙ্গে আছে। যে কোনো ধরনের হুমকি মোকাবেলায় দেশের সামরিক বাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সক্ষমতা রয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ‘বাংলাদেশ: ম্যাসাকার বিহাইন্ড এ ওয়াল অব সাইলেন্স’ শিরোনামের অডিও বার্তাটি আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদা বাংলাদেশে জিহাদের আহবান জানিয়েছে। সংগঠনটির বর্তমান প্রধান ডা. আয়মান আল-জাওয়াহিরি অডিও বার্তায় বাংলাদেশের জনগণকে ইসলাম বিরোধী ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে জিহাদের এই আহ্বান জানান। বাংলাদেশে সরকার বিরোধী আন্দোলনে হাজার হাজার মানুষ নিহত হয়েছে অভিযোগ করে জাওয়াহিরি বলেন, বর্তমানে দেশটিতে ব্যাপক হত্যাযজ্ঞ চলছে। ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের কারণে এসব ঘটনা ঘটছে। চার দশক আগে স্বাধীনতা, ঐহিত্য, সম্মান এবং জনগণের মুক্তির জন্য বাংলাদেশের জন্ম হলেও দেশটি আজ এক বিরাট কারাগারে পরিণত হয়েছে। আর পাকিস্তান থেকে স্বাধীন হওয়ার উদ্দেশ্য ছিলো উপমহাদেশে মুসলিম উম্মাহর ভিত্তি দুর্বল করা।

২৮ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডের বার্তাটি আল-কায়েদার মিডিয়া প্রোডাকশন হাউস এজ-শাবাব গত ১৪ জানুয়ারি জিহাদি ওয়েবসাইটে পোস্ট করে।

ভিডিও বার্তার ব্যাপারে নজর রাখছি আমরা: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, আল-কায়েদার প্রধান আয়মান আল-জাওয়াহিরির ভিডিও বার্তার সঙ্গে জড়িত সব ব্যাপারে নজর রাখছি আমরা।

এর সঙ্গে জড়িত বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর ভূমিকা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে।

আজ রবিবার বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

শাহরিয়ার আলম বলেন, ভিডিও বার্তাটি আমাদের নজরে আসেনি আগ। মিডিয়া যখন জেনেছে, তখন আমরাও এ ভিডিও সম্পর্কে জেনেছি।

দুবাইয়ের ভিসা সম্পর্কে তিনি বলেন, দুবাইয়ের ভিসা বন্ধ করা হয় নি। সেখানে শ্রমিকরা যাচ্ছেন। গত মাসে ১ হাজার ৭০০ জনের বেশি শ্রমিক দুবাইয়ে গেছে।

http://www.youtube.com/watch?v=8pqby3XMZOc&feature=player_embedded

http://www.youtube.com/watch?v=sYMmCscSgxo&feature=player_embedded

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here