আপসের কোন সুযোগ নেই :খালেদা জিয়া

11

5284d8856f623-Khaleda-Yusuf-Saadবিরোধীদলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, নির্দলীয় সরকার প্রশ্নে আপস করার কোনো সুযোগ নেই। কারণ, আপস করার মানে অন্যায়কে মেনে নেয়া, অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয়া। আমরা ন্যায়সঙ্গত দাবিতে আন্দোলন করছি। সরকার তত্ত্বাবধায়ক বাদ দিয়ে অন্যায় করেছে। সেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায় প্রতিষ্ঠা করাই আমাদের লক্ষ্য। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে অনির্ধারিত মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, আমার পদ-পদবির কোনো লোভ নেই। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করাই আমার লক্ষ্য। সারাদেশের আজ কী অবস্থা! মানুষ অতি দ্রুত এই সরকারের হাত থেকে মুক্তি চায়। মানুষকে মুক্ত করা প্রয়োজন। সাংবাদিক ও পেশাজীবীসহ সবাই সঙ্গে থাকলে এই সরকারকে বিদায় দিয়ে আমরা সত্যিকারের জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারবো।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, যখনই দেশে সমস্যা সৃষ্টি হয়, যখনই আমরা সমস্যায় পড়ি, তখন আমরা এই প্রেসক্লাবে ছুটে আসি। কাজেই এই প্রেসক্লাব হচ্ছে আমাদের সেকেন্ড হোম। আপনারা অতীতে আমাদের সঙ্গে আন্দোলনে ছিলেন, ভবিষ্যতেও থাকবেন আশা রাখি।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী বিএনপি চেয়ারপারসনের উদ্দেশে বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষ আজ আপনার দিকে তাকিয়ে আছে। এই সরকারকে বিদায় করতে হবে। জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ বলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়ের আন্দোলন জয়ী হবেই। জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ বলেন, দেশ আজ গভীর সংকটে। বিএফইউজে’র একাংশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ বলেন, হরতালের মধ্যে আমরা রাজপথে ছিলাম, আমরা আছি। এসময় আরও বক্তব্য দেন- ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের বর্তমান সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাকের হোসাইন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি খন্দকার মনিরুল আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- অধ্যাপক পিয়াস করিম, মাহফুজ উল্লাহ, মোস্তফা কামাল মজুমদার, দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক আলমগীর মহীউদ্দিন প্রমুখ।

এর আগে সন্ধ্যা ছয়টায় খালেদা জিয়া জাতীয় প্রেসক্লাবে এসে পৌঁছান। তার গাড়িবহর ক্লাব প্রাঙ্গণে পৌঁছালে সাংবাদিক নেতারা বিরোধী দলীয় নেতাকে অভ্যর্থনা জানান। এরপর তাকে নিচতলায় সাংবাদিক লাউঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন তিনি।

এদিকে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামকে দেখতে গতকাল রাতে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে যান বেগম খালেদা জিয়া। জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে তিনি সেখানে যান। এসময় তিনি কিছুক্ষণ অসুস্থ তরিকুল ইসলামের শয্যাপাশে অবস্থান করে তার চিকিত্সার খোঁজখবর নেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here