আন্দোলনে নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করা যাবে না: তোফায়েল

10

52946ff891fe6-tofilশিল্পমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আগামী ২৪ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন হবেই। কোনো আন্দোলন-সংগ্রাম করে এ নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করা যাবে না। আজ মঙ্গলবার দুপুরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।
নির্বাচনকালীন সরকারের এই মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন হবেই। তা ২৪ জানুয়ারির মধ্যেই হবে। আন্দোলন-সংগ্রাম করে নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করা যাবে না। বর্তমানে ছবিসহ ভোটার তালিকা রয়েছে। তাই কোনোভাবে নির্বাচন প্রভাবিত করা যাবে না।’
প্রধান বিরোধী দল নির্বাচনে অংশ না নিলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে কি না?—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তোফায়েল আহমেদ বলেন, নির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতির ওপর নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতা নির্ভর করে। তাই জ্বালাও-পোড়াও করে, রাতের আঁধারে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ করে কেউ নির্বাচন বন্ধ করতে পারবে না।
প্রধান বিরোধী দলের উদ্দেশে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘এখনো সময় আছে। আপনারা নির্বাচনে আসুন। খোলা মন নিয়ে আলোচনা করুন। তফসিল ঘোষণা হলেও আলোচনার পথ বন্ধ হয়নি। আলোচনার মাধ্যমে সবার অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই।’
দুই দলের মহাসচিবের বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা স্বীকার করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘দুই মহাসচিবের মধ্যে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকের বিষয়টি গোপন রাখার কথা ছিল। কিন্তু মিডিয়ার কল্যাণে এটা মানুষ জানতে পারে।’ এ ক্ষেত্রে আলোচনার সুযোগ আছে বলে মনে করেন তিনি।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রধান বিরোধী দল এখন আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে নেই। তাঁদের কাছে এই দাবি গৌণ। তাঁদের প্রধান দাবি, প্রধানমন্ত্রীকে সরে যেতে হবে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী ৯০ শতাংশ সাংসদের সমর্থনে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। এ ছাড়া সংবিধান অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী কেবল একজন প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন। তাই সরকারপ্রধানের পদ থেকে প্রধানমন্ত্রীর সরে যাওয়ার সুযোগ নেই।

এর আগে এক অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বিএসটিআইয়ের ছয়টি মান গবেষণাগারকে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদান করেন। ওই অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মাদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ, বিএসটিআইয়ের মহাপরিচালক ইকরামুল হক, বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ডের মহাপরিচালক আবু আবদুল্লাহ প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here