আদালত অবমাননার অভিযোগে মিজানুর রহমান খানকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা –

21

motiআদালত অবমাননার অভিযোগে প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খানকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে শুনানির পাঁচ দিন আদালতের কাঠগড়ায় তার দাঁড়িয়ে থাকার সময়কেও দ- হিসেবে গণ্য করেছে হাইকোর্ট। পত্রিকাটির সম্পাদক মতিউর রহমানকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে সংবাদপত্রে নিবন্ধ প্রকাশের ক্ষেত্রে সতর্ক করে দিয়েছে আদালত। বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমদের সমন্বয় গঠিত বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এই রায় দেন।
রায়ে আদালত বলেন, এমন কিছু ছাপা যাবে না যাতে আদালতের মর্যাদাহানী ঘটে, মানুষের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির পথে বাধা সৃষ্টি হয়।
রায়ের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মিজানুর রহমান খান সাংবাদিকদের বলেন, রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি হাতে পাওয়ার পর আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে তিনি পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন।
দৈনিক প্রথম আলোয় প্রকাশিত দুটি লেখা নিয়ে গত ২ মার্চ পত্রিকাটির যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খানকে তলব করে হাইকোর্টের এই বেঞ্চ। এর মধ্যে একটি লেখার শিরোনাম ছিল- ‘মিনিটে একটি আগাম জামিন কীভাবে?’ একই বিষয়ে অন্য লেখাটির শিরোনাম ছিল ‘ছয় থেকে আট সপ্তাহের স্বাধীনতা’। তলবের পাশাপাশি ওইদিন দুটি রুল জারি করে আদালত, যার একটিতে কেবল মিজানুর রহমান খান এবং অপরটিতে মিজানুরের সঙ্গে প্রথম আলো সম্পাদককেও বিবাদি করা হয়। আদালত অবমাননার অভিযোগে কেন তাদের শাস্তি দেয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয় এই রুলে। আদালতের আদেশে গত ৬ মার্চ হাজির হয়ে লিখিত হলফনামা দেন মিজানুর রহমান। ৯, ১০ ও ১১ মার্চ তার উপস্থিতিতেই এ বিষয়ে শুনানি হয়। হলফনামার বিষয়ে নিশ্চিত হতে আদালত প্রথম আলো সম্পাদকের বক্তব্য শুনতে চাইলে তিনিও গত মঙ্গলবার হাজির হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here