অবরোধের মধ্যেই সারাদেশে মনোনয়নপত্র দাখিল তিনশ’ আসনে জমা পড়েছে ১১১৩টি

146

image_89651নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সোমবার সারাদেশের জাতীয় সংসদের ৩শ আসনের বিপরীতে মধ্যে ১১১৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ইসির বিভিন্ন রিটার্নিং অফিসারের প্রাপ্ত তথ্যে এ সংখ্যা নিশ্চিত করা হয়েছে। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের টানা অবরোধে কোথাও উত্তাপ-উত্তেজনা-উত্কণ্ঠা আর উত্সবমূখর পরিবেশের মধ্যে প্রার্থীরা এই মনোনয়ন দাখিল করেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৯৭, জাতীয় পার্টি (জাপা) ২৯৯ এবং জেপি শতাধিক আসনে মনোনয়ন দাখিল করেছে। এছাড়া ১৪ দলের শরীক জাসদ. ওর্য়াকার্স পার্টির প্রার্থীরাও মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তবে ১৪ বা মহাজোটের বাইরে উল্লেখযোগ্য কোন দলের প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি। কয়েকটি জায়গায় বিএনপির সংস্কারপন্থী নেতারা প্রার্থী হয়েছেন। এদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ-২ ও রংপুর-৬, জাপা চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ ঢাকা-১৭ ও রংপুর-৩ এবং জেপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু পিরোজপুর-২ ও ঝালকাঠি-১ আসনে দু’টি করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। জাপা, জাসদ ও ওর্য়াকার্স পার্টির বিরুদ্ধে প্রার্থী দেয়নি আওয়ামী লীগ। ঢাকার ২০টি আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৭৪ জন। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীর ১৫ আসনে ৬৩জন এবং ঢাকার জেলার অন্য ৫টি আসনে আরো ১১ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

বিরোধী দলের টানা অবরোধ কর্মসূচির কারণে কোথায় উত্তাপ-উত্তেজনা-উত্কণ্ঠা আবার কোথায় উত্সব মুখর পরিবেশে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা। আবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া দুই জন প্রার্থী অবরোধের কারণে হেলিকাপ্টারে চড়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি (জাপা), জাতীয় পার্টি (জেপি), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, ওর্য়াকার্স পার্টির প্রার্থীর পাশাপাশি নির্বাচনে তরিকত ফেডারেশন, খেলাফত মজলিশের একাংশ এবং জাতীয়তাবাদী ন্যাশনালিষ্ট ফ্রন্ট-বিএনএফের প্রার্থীরাও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিনে পাঁচ সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের ৫ জন প্রার্থী এককভাবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ফলে তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। জাতীয় পার্টি-জাপা বলছে, বিরোধী দলের টানা অবরোধের কারনে দলের মনোনীত প্রার্থীরা ৩৮টি আসনে কোন মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারেনি। এবার নারী প্রার্থীর সংখ্যাও অনেক বেশি। আমাদের জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য সারাদেশে যে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তা তুলে ধরা হলো।

গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জ জেলার ৩ টি সংসদীয় আসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ ৭ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের ৩ জন, জাতীয়পার্টির ৩ জন ও ১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। গোপালগঞ্জ ১ ( মুকসুদপুর-কাশিয়ানীর একাংশ) আসনে সাবেক বিমানমন্ত্রী লেঃ কর্নেল (অবঃ) মুহা. ফারুক খান (আওয়ামীলীগ), দিপা মজুমদার (জাপা) মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। গোপালগঞ্জ-২ (গোপালগঞ্জ-কাশিয়ানীর একাংশ) আসনে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম (আওয়ামীলীগ), কাজী শাহীন ( জাপা) ও গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বি.এম লিয়াকত আলী (স্বতন্ত্র) মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। গোপালগঞ্জ-৩ (টুঙ্গিপাড়া-কোটালীপাড়া) আসনে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (আওয়ামীলীগ), এ.জেড অপু শেখ (জাপা) মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

বরগুনা

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার জন্য বরগুনা-১ ও বরগুনা-২ আসনে ৪ জন করে মোট ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বরগুনা-১ (বরগুনা-আমতলী-তালতলী) আসনে এডভোকেট ধীরেন্দ দেবনাথ শম্ভু (আওয়ামীলীগ), সাবেক সংসদ সদস্য মো. দেলোয়ার হোসেন (স্বতন্ত্র), শাহজাহান মানসুর (জাতীয় পার্টি এরশাদ) ও মো. খলিলুর রহমান (বিএনএফ)। বরগুনা-২ (বেতাগী-বামনা-পাথরঘাটা) আসনে শওকত হাসানুর রহমান রিমন (আওয়ামীলীগ), অতীশ দিপঙ্কর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. আবুল হোসেন সিকদার (স্বতন্ত্র), বিকাশ কুমার সিকদার (জাতীয় পার্টি এরশাদ) ও মো. কামরুজ্জামান লিটন (গণফ্রন্ট) মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

ফরিদপুর

ফরিদপুরের ৪ টি সংসদীয় আসনে মোট ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ৪ জন। জাতীয় পার্টির (এরশাদ) ৩ জন, জাতিয় পার্টি (জেপি-মঞ্জু) ২জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৩ জন। বিএনপি নেতৃত্তাধীন ১৮ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে কেউ মনোনয়ন পত্র ক্রয় বা জমা দেন নি।

ফরিদপুর-১ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান (আওয়ামীলীগ) ও জাতীয় পার্টির (এরশাদ) দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন কামরুজ্জামান মৃধা। ফরিদপুর-২ আসনে সংসদ উপনেতা সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রাথী হিসেবে মেজর (অব) আ ত ম হালিম ও জাতিয় পার্টি (জেপি) দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন কেন্দ ীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ্রম ও প্রবাসী কল্যান এবং বৈদেশিক কর্মস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এবং জাতীয় পার্টি (এরশাদ) থেকে এ আসনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন এসএম ইয়াহিয়া। ফরিদপুর-৪ কাজী জাফরউল্লাহ (আওয়ামী লীগ) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এ আসন থেকে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান এমপি নিলুফা জাফরউল্লাহ, সংসদ হুইপ নূর এ আলম চৌধুরী লিটনের ছোট ভাই মুজিবুর রহমান নিক্সন এবং সমাজ সেবক সৈয়দ মনজুরুল হক। আরো মনোনয়ন জমা দিয়েছেন জাতিয় পার্টি (জেপি) ফরিদপুর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাকির হাসান।

গাজীপুর

গাজীপুরের ৫টি সংসদীয় আসনে মোট ১৭জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- গাজীপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের এডভোকেট আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি, জাতীয় পার্টির (এ) খন্দকার আব্দুস সালাম ও তরিকত ফেডারেশনের শহিদুল ইসলাম তালুকদার। গাজীপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগের জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, জাতীয় পার্টির (এ) মাহবুল আলম মামুন, স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম এমএ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল হামিদ হাজী। গাজীপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট মো: রহমত আলী এমপি, জাতীয়পার্টির (এ) আজহারুল ইসলাম সরকার, জাসদ (ইনু) মো; জহিরুল হক মন্ডল ও খেলাফত মজলিসের দেলোয়ার হুসাইন। গাজীপুর-৪ আসনে আওয়ামী লীগের সিমিন হোসেন রিমি এমপি, জাতীয় পার্টি (এ) মিয়া মো: আনোয়ার হোসেন, বিএনএফ এর অ্যাডভোকেট মো: সারোয়ার -ই- কায়নাত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমেদ খান। গাজীপুর-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি ও জাতীয় পার্টি (এ) আজম খান।

ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহের ৪টি সংসদীয় আসনে সোমবার ১৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে ঝিনাইদহ ১ আসনে (শৈলকুপা উপজেলা) আব্দুল হাই (আওয়ামী লীগ), নায়েব আলী জোয়ার্দ্দার (সতন্ত্র), মনিকা আলম, জাতীয় পার্টি (এরশাদ), গোলাম মোস্তফা (জাতীয় পার্টি, জেপি) ও আসাদুজ্জামান (ওয়ার্কাস পার্টি)। ঝিনাইদহ ২ আসনে (হরিণাকুণ্ডু ও ঝিনাইদহ সদর উপজেলা) সফিকুল ইসলাম অপু (আওয়ামী লীগ), ড.হারুণ অর রশীদ (জাতীয় পার্টি, এরশাদ), তাহজীব আলম সিদ্দিকী সমি (সতন্ত্র) ও মোমিনুল ইসলাম (বিএনএফ)। ঝিনাইদহ ৩ আসনে (কোটচাঁদপুর ও মহেশপুর উপজেলা) নবী নেওয়াজ (আওয়ামী লীগ), সাজ্জাতুজ জুম্মা (আওয়ামী লীগ), আব্দুর রহমান (জাতীয় পার্টি, এরশাদ) ও মোঃ কামরুজ্জামান সাজিদ (জাতীয় পার্টি, এরশাদ)। ঝিনাইদহ ৪ আসনে (কালীগঞ্জ ও সদর উপজেলার একাংশ) আনোয়ারুল আজিম আনার (আওয়ামী লীগ), আব্দুল মান্নান (আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), মোস্তফা আলমগীর (ওয়ার্কাস পার্টি) ও এএসএম আমিরুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি)।

জয়পুরহাট

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়পুরহাটের ২টি আসন থেকে আওয়ামীলীগের ২টি,জাতীয় পার্টির ২টি, ওয়ার্কাস পার্টির ১টি এবং সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ১টি সহ মোট ৬টি মনোনয়ন পত্র জমা পড়েছে।

জয়পুরহাট-২ আসনের জন্য মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন (আওয়ামী লীগ) এবং আনোয়ারুল হক বাবলু (ওর্য়াকার্স পার্টি), আবুল কাশেম রিপন (জাপা) মনোনয়নপত্র জমা দেন। জয়পুরহাট-১ আসনের জন্য মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সামছুল আলম দুদু, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-আহবায়ক আ.স.ম মোক্তাদির তিতাস মোস্তফা, এছাড়াও খালেকুজ্জামান নামে এক ব্যবসায়ী জয়পুরহাট-১ আসনের সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মৌলভীবাজার

মৌলভীবাজারে ৪টি আসনে মোট ১৩জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনে মোঃ শাহাবুদ্দিন আহমদ (আওয়ামীলীগ), এডভোকেট মাহবুবুুল আলম শামীম (জাপা), মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া -কমলগঞ্জের আংশিক) আসনে সৈয়দ বজলুল করিম (আওয়ামী লীগ) , মুহিবুল কাদের চৌধুরী পিন্টু (জাপা), আব্দুল মতিন (স্বতন্ত্র), আতাউর রহমান চৌধুরী ছোহেল (স্বতন্ত্র), ও রিনা বেগম চৌধুরী (রিনা রউফ) স্বতন্ত্র। মৌলভীবাজার-৩ (মৌলভীবাজার সদর- রাজনগর উপজেলা) আসনে সৈয়দ মহসীন আলী (বর্তমান এমপি আওয়ামীলীগ), সৈয়দ শাহাব উদ্দিন আহমদ (জাপা)। সোহেল আহমদ (বাসদ),আব্দুল মোছব্বিরর (জাসদ),কামাল আহমদ (আওয়ামীলীগ), মৌলভীবাজার-৪ (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জের আংশিক) আসনে একমাত্র প্রার্থি বর্তমান সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ (আওয়ামীলীগ)।

নওগাঁ

১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেষ দিনে পর্যন্ত নওগাঁয় আওয়ামীলীগ-জাপাসহ ১৯ প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে নওগাঁ-১(পোরশা-সাপাহার-নিয়ামতপুর) আসনে আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য সাধন চন্দ মজুমদার, জাতীয় পার্টির আকবর আলী কালু।

নওগাঁ-২ (ধামইরহাট-পত্নীতলা) আসনে অ্যাডভোকেট শহিদুজ্জামান সরকার বাবলু (আওয়ামী লীগ), তোফাজ্জ্বল হোসেন (জাপা)। নওগাঁ-৩ (বদলগাছী-মহাদেবপুর) ড. আকরাম হোসের চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), সেলিম উদ্দীন তলফদার সেলিম (সতন্ত্র), হুমায়ন কবীর চৌধুরী (জাপা), জাভেদ মাস্টার (স্বতন্ত্র)।

নওগাঁ-৪(মান্দা) ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক (আওয়ামী লীগ), আতাউর রহমান সরকার (স্বতন্ত্র), সাইদুর রহমান বকুল (স্বতন্ত্র), ইঞ্জিনিয়ার আফজাল হোসেন( স্বতন্ত্র), এ্যাড. এনামুল হক (জাপা)। নওগাঁ-৫(সদর) আসনে মোঃ আব্দুল মালেক (আওয়ামী লীগ), আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম রফিক (সতন্ত্র), ইফতারুল ইসলাম বকুল (জাপা), ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল বারী (স্বতন্ত্র)। নওগাঁ-৬ (রানীনগর-আত্রাই) আসনে ইসরাফিল আলম (আওয়ামী লীগ), এ্যাড. আবু বেলাল হোসেন জুয়েল (জাপা)।

হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জের ৪টি আসনে ১২ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেছেন। তারা হচ্ছেন- হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) শাহ নেওয়াজ গাজী মিলাদ (আ’লীগ), আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু (জাপা), মেজর (অবঃ) সুরঞ্জন দাশ (স্বতন্ত্র), হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আব্দুল মজিদ খান (আ’লীগ), শংকর পাল (জাপা), আফসার আহমদ রূপক (স্বতন্ত্র), হবিগঞ্জ-৩ (সদর-লাখাই) মোঃ আবু জাহির (আ’লীগ), মোহাম্মদ আতিকুর রহমান আতিক (জাপা), হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) মাহবুব আলী (আ’লীগ), আহাদ উদ্দিন চৌধুরী শাহীন (জাপা), সৈয়দ তানভীর আহমেদ (স্বতন্ত্র), কায়সারুল গণি (স্বতন্ত্র)।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৬টি আসনে ২ মহিলাসহ ২৯ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এরা হলো ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১-(নাসিরনগর) আসনে মোহাম্মদ সায়েদুল হক (আওয়ামী লীগ), রেজোওয়ান আহমেদ (জাপা), ইসলামী ফ্রন্টের মোঃ ইসলাম উদ্দিন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২-(সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম, (আওয়ামী লীগ) স্বতন্ত্র শাহ মোঃ মফিজ, জিয়াউল হক মৃধা (জাপা), জাসদ (ইনু) এবিএম ফিরোজ, জাতীয় পার্টি (জেপি) জামিলুল হক বকুল, বিএনএফ’র হাবিবুর রহমান ভূইয়া, স্বতন্ত্র সোহবার হোসেন, মিসেস নায়ার কবীর, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু শামীম মোঃ আরিফ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩-(সদর-বিজয়নগর) আসনে র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), রেজাউল ইসলাম ভূইয়া (জাপা), জাতীয় পার্টি (জেপি) মোঃ ফরিদ আহমেদ, তরিকত ফেডারেশনের মোঃ জহিরুল হক চৌধুরী, ইসলামী ফ্রন্টের সৈয়দ মোঃ নাঈমুদ্দিন আহমেদ, বিএনএফ’র জহিরুল হক ভূইয়া। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪-(কসবা-আখাউড়া) আসন থেকে অ্যাডভেকেট আনিসুল হক (আওয়ামী লীগ), জাতীয় পার্টির জাহাঙ্গীর মোঃ আদেল, জাতীয় পার্টির (বিদ্রোহী) সেলিম মাষ্টার, জাসদ (ইনু) আনোয়ার হোসেন, স্বতন্ত্র খন্দকার হেবজুর রহমান। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫-(নবীনগর) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মোঃ ফয়েজুর রহমান বাদল, জাতীয় পার্টির কাজী মামুনুর রশীদ, জাসদ (ইনু) অ্যাডভোকেট শাহ জিকরুল আহমেদ খোকন, স্বতন্ত্র মোবারক হোসেন দুলু। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬-(বাঞ্চারামপুর) আসনে আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ক্যাপ্টেন (অবঃ) এ.বি তাজুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির মোস্তফা আজাদ মনোনয়ন জমা দেন।

মানিকগঞ্জ

মানিকগঞ্জের তিনটি আসনে আট জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মানিকগঞ্জ-১ আসনে ৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। প্রার্থীরা হলেন আ.লীগের মনোনীত প্রার্থী সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়, জাতীয় পার্টি (জাপা) থেকে মোহাম্মদ আলী আকবর, জাতীয় সমাজতান্ত্রীক দল জাসদ থেকে আফজাল হোসেন খান জকি, স্বতন্ত্র প্রার্থী এস.এম. সাইদুর রহমান। মানিকগঞ্জ-২ আসন থেকে প্রার্থী হয়েছেন এক জন। তিনি আ.লীগের মনোনীত প্রার্থী কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম। মানিকগঞ্জ-৩ আসনের প্রার্থীরা হলেন আ.লীগের মনোনীত সাবেক এমপি আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন, জাতীয় পার্টি (জাপা) থেকে এম. হাবিবুল্লা, জাতীয় সমাজতান্ত্রীক দল জাসদ থেকে ইকবাল হোসেন খান।

নড়াইল

নড়াইলের দু’টি আসনে মোট ৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে নড়াইল-১ আসনে ৪ জন ও নড়াইল-২ আসনে রয়েছেন ৫ জন।

নড়াইল-১ আসনে মনোয়ন জমা দিয়েছেন কবিরুল হক মুক্তি (আওয়ামী লীগ), ওয়ার্কার্স পার্টির বিমল বিশ্বাস, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ-এর শরীফ নূরুল আম্বিয়া ও জাতীয় পার্টির মেজর (অবঃ) গাজী আশরাফ।

এছাড়া নড়াইল-২ আসনে এসএম আসিফুর রহমান (আওয়ামী লীগ), ওয়ার্কার্স পার্টির এডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান, জাতীয় পার্টির শরীফ মুনীর হোসেন, স্বতন্ত্র হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস ও শেখ বদরুল ইসলাম বাদল মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি আসনের ১৬ প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে গোলাম দস্তগীর গাজী (আওয়ামী লীগ) এবং জয়নাল আবেদীন চৌধুরী (জাপা), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক এমপি ও সাবেক সেনা প্রধান মেজর জেনারেল (অবঃ) কেএম সফিউল¬াহ (বীর উত্তম), ডাঃ শওকত আলী এবং গোলাম দস্তগীর গাজীর স্ত্রী মিসেস হাসিনা গাজী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এছাড়া এ আসন থেকে বিএনএফ এর প্রার্থী হিসেবে মোস্তাক আহমেদ ভাষানী মনোনয়ন জমা দেন। নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসন থেকে আওয়ামীলীগ প্রার্থী হিসেবে এমপি নজরুল ইসলাম বাবু ও জাতীয় পার্টির হান্নান মোল্লা মনোনয়ন পত্র জমা দেন। নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসন মোশারফ হোসেন (আওয়ামী লীগ), লিয়াকত হোসেন খোকা (জাপা) মনোনয়ন জমা দেন। নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে শামীম ওসমান (আওয়ামী লীগ) ও সালাউদ্দিন খোকা মোল্লা (জাপা) মনোনয়ন পত্র জাম দিয়েছেন। এছাড়া এ আসন থেকে খেলাফত মজলিসের প্রার্থী ইকবাল হোসেন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর-বন্দর) আসনে বর্তমান এমপি নাসিম ওসমান (জাপা) ও শুক্কুর মাহমুদ (আওয়ামী লীগ) মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া এ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন গোলজার শিকদার।

নেত্রকোনা

নেত্রকোনার ৫টি আসনে আওয়ামী লীগের তিনজন বিদ্রোহী প্রার্থীসহ মোট ১৩জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। নেত্রকোনা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে ছবি বিশ্বাস, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান এমপি মোশতাক আহমেদ রুহী এবং সাবেক এমপি মরহুম জালাল তালুকদারের পুত্র শাহ কুতুব উদ্দিন রয়েল এবং জাতীয় পার্টি (এরশাদ) প্রার্থী আনোয়ার হোসেন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এছাড়া এ আসনে শাহ কুতুব উদ্দিন রয়েলের স্ত্রী মিসেস দীপু মনোনয়নপত্র জমা দিরেয়ছেন। নেত্রকোনা-২(নেত্রকোনা-বারহাট্টা) আসনে আরিফ খান জয় (আওয়ামী লীগ) এবং লেঃ কর্নেল নূর খান (স্বতন্ত্র) মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এছাড়া এ আসনে জেপি(মঞ্জু) থেকে জেলা জেপির সভাপতি আইয়ূব আলী ফনুও মনোনয়ন পত্র জমা দেন। নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসনে আওয়ামী লীগের ইফতেকার উদ্দিন পিন্টু, জাপা থেকে জসীম উদ্দিন ভুইয়া মনোনয়ন পত্র জমা দেন। নেত্রকোনা-৪ (মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী) আসনে আওয়ামী লীগের বতর্মান এমপি রেবেকা মমিন এবং জেলা জাপার সাবেক সভাপতি ও জেলা বারের সভাপতি এডভোকেট লিয়াকত আলী খান মনোনয়ন পত্র জমা দেন। নেত্রকোনা-৫ (পূর্বধলা) আসনে আওয়ামী লীগের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল (বীরপ্রতিক) এবং জাপার ওয়াহিদুজ্জামান তালুকদার আজাদ মনোনয়নপত্র জমা দেন।

পাবনা

পাবনার ৫টি আসনে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। পাবনা-১ আসন (বেড়া ও সাঁথিয়ার আংশিক) থেকে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী আওয়ামীলীগ নেতা অধ্যাপক আবু সাইয়িদ। পাবনা-২ (সুজানগরে-বেড়া আংশিক) আওয়ামীলীগ মনোনীত আজিজুল হক আরজু ও জাতীয় পার্টি সমর্থিত মকবুল হোসেন সন্টু, পাবনা-৩ (চাটমোহর-ভাঙ্গুড়া-ফরিদপুর) আওয়ামীলীগ মনোনীত মকবুল হোসেন ও জাতীয় পার্টি সমর্থিত আব্দুস সাত্তার, পাবনা-৪ আসন (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) থেকে আওয়ামীলীগ মনোনীত শামসুর রহমান শরীফ ডিলু ও জাতীয় পার্টি সর্মথিত হায়দার আলী। পাবনা-৫ (পাবনা সদর উপজেলা ) আওয়ামীলীগ মনোনীত গোলাম ফারুক খোন্দকার প্রিন্স, জাতীয় পার্টি সমর্থিত আলহাজ্ব মুন্তাজ আলী ও জাসদ সমর্থিত হাবিবুল হক মিন্টু।

বরিশাল

বরিশাল জেলার মোট ২২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে বরিশাল-১ (গৌরনদী-আগৈলঝাড়া) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ ও জাতীয় পার্টি (এ) মনোনীত প্রর্থী এসএম পারভেজ রানা। বরিশাল-২ ( উজিরপুর-বানারীপাড়া ) আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস এমপি, শাহে আলম তালুকদার, জাতীয় পার্টি (এ) নাসির উদ্দিন নাসিম হাওলাদার ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবিনা আক্তার। বরিশাল-৩ (মুলাদী-বাবুগঞ্জ) আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. সিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ, জাতীয় পার্টি (এ)গোলাম কিবরিয়া টিপু এমপি, ওয়ার্কার্স পার্টির এডভোকেট শেখ টিপু সুলতান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুর রহমান শরীফ। বরিশাল-৪ ( হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ) আওয়ামী লীগ প্রার্থী পঙ্কজ দেবনাথ, জাতীয় পার্টি (জেপি) শেখ মোঃ জয়নাল, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি নেতা গোলাম ওয়াহীদ হারুন, বিএনএফ’র আঞ্জুমান সালাউদ্দিন, জাতীয় পার্টি (এ) মনোনীত প্রার্থী নাসির উদ্দিন সাথী। বরিশাল-৫ ( সদর) আওয়ামী লীগ প্রার্থী শওকত হোসেন হিরন, জাতীয় পার্টি (এ)একেএম মুরতজা আবেদীন ও বিএনএফ মনোনীত সাইফুল ইসলাম খান। বরিশাল-৬ (বাকেরগঞ্জ) আওয়ামীলীগ মনোনীত মেজর জেনারেল (অবঃ) আব্দুল হাফিজ মল্লিক, জাতীয় পার্টির (এ)নাসরিন জাহান রতনা এমপি, জাসদ মনোনীত মোঃ মহসিন, ন্যাপ (মোজাফফর) মনোনীত জাহাঙ্গীর হোসেন খান।

পিরোজপুর

পিরোজপুর জেলার তিনটি আসনে মোট ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন পিরোজপুর-১ (সদর-নাজিরপুর-নেছারাবাদ) এ কে এম এ আউয়াল ওরফে সাইদুর রহমান (আওয়ামী লীগ), মোঃ নজরুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি-জেপি) ও সাইদুল ইসলাম ডালিম (জাসদ)। পিরোজপুর-২ (কাউখালী-ভান্ডারিয়া-জিয়ানগর) জাতীয় পার্টি-জেপি চেয়ারম্যান ও সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু (জাতীয় পার্টি-জেপি), ইসহাক আলী খান পান্না (আওয়ামী লীগ), এডভোকেট ফিরোজ আলম (ওয়াকার্স পার্টি)। পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) ডাঃ আনোয়ার হোসেন (আওয়ামী লীগ), সেকেন্দার আলী মুকুল (জাতীয় পার্টি-জাপা), ডাঃ রুস্তুম আলী ফরাজী (স্বতন্ত্র), রমা রানী মজুমদার (স্বতন্ত্র) ও মনিরুল ইসলাম খান (স্বতন্ত্র)।

ঝালকাঠি

ঝালকাঠি নির্বাচনী এলাকা ১ ও ২ আসনে মোট ৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। এরা হলেন ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বিএইচ হারুন, জাতীয় পার্টি (জেপি)’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, জাতীয় পার্টি (জাপা)’র অধ্যাপক নাসির উদ্দিন। ঝালকাঠি-২ (ঝালকাঠি সদর-নলছিটি) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আমির হোসেন আমু, জাতীয় পার্টি (জেপি)’র মো. নাসির উদ্দিন, জাতীয় পার্টি (জাপা)’র এমএ কুদ্দুস।

সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার ৪টি আসনে ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেছেন। সাতক্ষীরা (তালা-কলারোয়া)-১ আসনে আওয়ামী লীগ প্রর্থী শেখ নূরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত, স্বতন্ত্র প্রার্থী সরদার মুজিব, ওর্য়াকাস পার্টির প্রার্থী এ্যাড. মুস্তফা লুত্ফুল্লাহ, জাসদ (ইনু) আবুল কালাম আজাদ মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। সাতক্ষীরা (সদর)- ২ আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, জাতীয় পার্টির প্রার্থী সংসদ সদস্য আব্দুল জব্বার, জাতীয় পার্টি (জেপি) মহসিন হোসেন বাবলু, ন্যাপের কাজী সাঈদুর রহমান, স্বতন্ত্র সাইফুল করিম সাবু মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

সাতক্ষীরা-৩-সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক সাতক্ষীরা ৩ আসনের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী স ম সালাউদ্দিন দলীয় নেতাকর্মী সমর্থক নিয়ে মনোনয়ন পত্র জমাদেন।এছাড়া ইয়াকুব আলী (বি এন এফ) মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সাতক্ষীরা-৪ (শ্যামনগর- কালিগঞ্জ আংশিক) আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জগলুল হায়দার, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুস সাত্তার মোড়ল, জাসদ প্রার্থী আশেক-ই-এলাহী মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

বাগেরহাট

বাগেরহাটের চারটি আসনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি (এরশাদ), বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ), মুসলিম লীগ ও সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দুই জন নারীসহ মোট ১৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বাগেরহাট-১ (ফকিরহাট-মোল্লাহাট-চিতলমারী) আসনে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন ঐ আসনের বর্তমান এমপি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দিন (আওয়ামী লীগ), জাতীয় পার্টির (এরশাদ) চিতলমারী উপজেলা সভাপতি স.ম গোলাম সরোয়ার ও বাংলাদেশ মুসলীম লীগের পক্ষে আব্দুস সবুর শেখ।

বাগেরহাট-২ (বাগেরহাট সদর ও কচুয়া) আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মীর শওকাত আলী বাদশা (আওয়ামী লীগ) এবং বাগেরহাট জেলা জাতীয় পার্টির (এরশাদ) যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন হাওলাদার।

বাগেরহাট-৩ (রামপাল-মংলা) আসনে মনোনয়ন দাখিল করেছেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক (আওয়ামী লীগ), ঐ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় বর্তমান এমপি হাবিবুন নাহার (স্বতন্ত্র) এবং মংলা উপজেলা জাতীয় পার্টির (এরশাদ) সভাপতি তালুকদার আক্তার ফারুক।

বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনে সাত জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঐ আসনের বর্তমান এমপি ডা. মোজাম্মেল হোসেন (আওয়ামী লীগ), জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম খান (স্বতন্ত্র), মোরেলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক এস এম মনিরুল হক (স্বতন্ত্র), আওয়ামী লীগের সদস্য মো: সামছুল আলম (স্বতন্ত্র), আসমা আইরিন (স্বতন্ত্র), জাতীয় পার্টির (এরশাদ) কেন্দ ীয় কমিটির সদস্য ও মোরেলগঞ্জ উপজেলা জাপা সভাপতি সোমনাথ দে এবং বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের সাখাওয়াত হোসেন।

কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জ জেলার ৬টি আসনে মোট ১৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। কিশোরগঞ্জ-১ আসনে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের পক্ষে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান ও কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে জাপা প্রার্থী মুজিবুল হক চুন্নুর পক্ষে অ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক খান মাখন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। কিশোরগঞ্জ-৪ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী একমাত্র প্রার্থী হলেন রাষ্ট্রপতিপুত্র রেজোয়ান আহমেদ তৌফিক এমপি। আসনওয়ারী মনোনয়ন দাখিলকারী প্রার্থীরা হলেন: কিশোরগঞ্জ-১(কিশোরগঞ্জ সদর ও হোসেনপুর)- সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম(আওয়ামী লীগ) ও মুস্তাকিন বিল্লাহ(জাতীয় পার্টি), কিশোরগঞ্জ-২(কটিয়াদী ও পাকুন্দিয়া)- অ্যাডভোকেট সোহরাবউদ্দিন(আওয়ামী লীগ), বদরুল আলম(জাতীয় পার্টি) ও আনিসুজ্জামান খোকন(স্বতন্ত্র), কিশোরগঞ্জ-৩(করিমগঞ্জ ও তাড়াইল)- মুজিবুল হক চুন্নু(জাতীয় পার্টি), আলহাজ্ব নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ(আওয়ামী লীগ) ও ড. মিজানুল হক(স্বতন্ত্র), কিশোরগঞ্জ-৪(ইটনা, অষ্টগ্রাম ও মিঠামইন)- রেজওয়ান আহম্মেদ তৌফিক(আওয়ামী লীগ), কিশোরগঞ্জ-৫(নিকলী ও বাজিতপুর)- আফজাল হোসেন(আওয়ামী লীগ), অজয় কর খোকন(স্বতন্ত্র), দীন ইসলাম(জাতীয় পার্টি) ও ডা. আশরাফ আলী মোল্লা(স্বতন্ত্র) এবং কিশোরগঞ্জ-৬ (কুলিয়ারচর ও ভৈরব)- নাজমুল হাসান পাপন(আওয়ামী লীগ), ফখরুল আলম আক্কাস(স্বতন্ত্র) ও রিয়াজুল হক(জাতীয় পার্টি)।

নোয়াখালী

নোয়াখালীর ৬টি সংসদীয় আসনে ১৮জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। নোয়াখালী-১-আসন (চাটখিল-সোনাইমুড়ীর একাংশ) এর ৪জন প্রার্থী। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের এইচ.এম ইব্রাহিম, জাতীয় পার্টির এবিএম হারুনুর রশিদ বাসার, স্বতন্ত্র খোন্দকার রুহুল আমিন (আওয়ামী লীগ সমর্থক) ও এবিএম হারুন এল রশিদ। নোয়াখালী-২- আসন (সেনাবগ-সোনাইমুড়ীর একাংশ) এর ২জন প্রার্থীর মধ্যে- আওয়ামী লীগের মোরশেদ আলম ও স্বতন্ত্র জাহাঙ্গীর আলম মানিক (আওয়ামী লীগ সমর্থক), নোয়াখালী- ৩-আসন (বেগমগঞ্জ) এর ৩জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের মামুনুর রশিদ কিরন, জাতীয় পার্টির মোবারক হোসেন আজাদ ও গণতন্ত্রী পার্টির মানিক লাল দাস, নোয়াখালী-৪-আসন (সদর-সুবর্ণচর) এর ৩জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের একরামুল করিম চৌধুরী এমপি, জাতীয় পার্টির মোবারক হোসেন আজাদ ও স্বতন্ত্র খোন্দকার রুহুল আমিন (আওয়ামী লীগ সমর্থক), নোয়াখালী- ৫-আসন (কোম্পানীগঞ্জ- কবিরহাট-সদরের একাংশ) এর ২জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও যোগাযোগমন্ত্রী ওবাদুল কাদের ও জাতীয় পার্টির অধ্যাপক আ.ন.ম শাহজাহান, নোয়াখালী- ৬-আসন (হাতিয়া) এর ৪জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের আয়েশা ফেরদৌস, জাতীয় পার্টির আনোয়ারুল আজিম, স্বতন্ত্র এ.কে.এম আজীমুল হাই নাওয়াজেশ (আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য) ও আমিরুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ সমর্থক)।

চাঁদপুর

চাঁদপুর জেলার ৫টি আসনে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। চাঁদপুর-১ (কচুয়া উপজেলা) আসনে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর। চাঁদপুর-২ (মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ উপজেলা) আসনে ঢাকা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম এবং জাতীয় পার্টির এমরান হোসেন। চাঁদপুর-৩ (চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলা) আসনে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক মহাপরিচালক মমিনুল্লাহ পাটওয়ারী (জাপা), স্বতন্ত্র- অ্যাডভোকেট ইকবাল বিন বাশার। চাঁদপুর-৪ (ফরিদগঞ্জ উপজেলা) আসনে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ড. শামছুল হক ভূঁইয়া, জাপার মাইনুল ইসলাম। চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলা) আসনে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর অবঃ রফিকুল ইসলাম বর উত্তম এবং জাপার খোরশেদ আলম মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

লক্ষ্মীপুর

লক্ষ্মীপুরের ৪টি সংসদীয় আসনে ১৩ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

লক্ষ্মীপুর সদর-৩ আসনের মনোনয়ন পত্র জমা দেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক একেএম শাহজাহান কামাল ও জাতীয় পার্টির মনিরুজ্জামান চৌধুরী।

লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ সংসদীয় আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন মোঃ শাহজাহান (আওয়ামীলীগ), মাহমুদুর রহমান (জাতীয় পার্টি), লায়ন এমএ আউয়াল (তরিকত ফেডারেশন), সফিকুল ইসলাম (স্বতন্ত্র)।

লক্ষ্মীপর-২ (রায়পুর) আসনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দেন আওয়ামীলীগ মনোনীত এহশানুল কবির জগলু এবং জেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়নপত্র জমা দেন জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু ও জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ নোমান।

লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দেন মোঃ আবদুল্লাহ (আওয়ামীলীগ), মোঃ বেলাল হোসেন (জাতীয় পার্টি) আজাদ উদ্দিন চৌধুরী (স্বতন্ত্র), শরিফ উদ্দিন (স্বতন্ত্র)।

সিলেট

সিলেট জেলার ৬টি আসনে ১৭ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি (জেপি), জাতীয় পার্টি (জাপা) ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী দুই জন রয়েছেন। সিলেটের দুইটি আসনে জাপার একাধিক প্রার্থীও রয়েছেন।

সিলেট-১ (সদর) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, জাতীয় পার্টির (জেপি) প্রার্থী, জেপির কেন্দীয় যুগ্ম মহাসচিব ইফতেখার আহমদ লিমন ও জাপার প্রার্থী বাবরুল হোসেন বাবুল।

সিলেট-২ (বিশ্বনাথ-বালাগঞ্জ) আসনে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের শফিকুর রহমান চৌধুরী, জাপার ইয়াহইয়া চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মুহিবুর রহমান।

সিলেট-৩ (দক্ষিণসুরমা-ফেঞ্চুগঞ্জ) আসনে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস, জাপার ব্যারিষ্টার হক ইমানুল হামিদ ও জাপার উসমান আলী।

সিলেট-৪ (জৈন্তাপুর-গোয়াইনঘাট) আসনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের ইমরান আহমদ, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ফারুক আহমদ ও জাপার তাজ রহমান।

সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের মাসুক উদ্দিন আহমদ, জাপার সাব্বির আহমদ ও জাপার সেলিম উদ্দিন।

সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও জাপার সেলিম উদ্দিন।

রংপুর

রংপুরের ৬টি আসনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি (এ), জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ১৯ জন তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দুপুরে রংপুর-৩ (সদর) আসনে জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এছাড়া রংপুরের ৬টি আসনে যারা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন তাদের মধ্যে রয়েছে, রংপুর-১ (গঙ্গাচড়া) আসনে জাতীয় পার্টির (্এ) প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং রংপুর জেলা ও মহানগর সভাপতি মশিউর রহমান রাঙ্গা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদের ভাতিজা হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম। রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনে জাতীয় পার্টি (এ) সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে চাচা আসাদুজ্জামান চৌধুরী সাবলু ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে ভাতিজা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহসানুল হক চৌধুরী। রংপুর-৩ (সদর) আসনে জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ, আওয়ামী লীগ নেতা চৌধুরী খালেকুজ্জামান, জাতীয় যুবজোটের কেন্দ ীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর জেলা জাসদের সহ-সম্পাদক সাব্বির আহমেদ, ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য কাজী মাজিরুল ইসলাম লিটন। রংপুর-৪ (পীরগাছা-কাউনিয়া) আসনে আওয়ামী লীগ কেন্দ ীয় কমিটির নেতা ও বিশিষ্ট শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুন্সি, জাতীয় পার্টির (এ) প্রেসিডিয়াম সদস্য করিম উদ্দিন ভরসা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে করিম উদ্দিন ভরসার পুত্র সাইদুল ইসলাম ভরসা। রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ ীয় কোষাধ্যক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এইচএন আশিকুর রহমানের পুত্র উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রাশেক রহমান। রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, উপজেলা জাতীয় পার্টির (এ) সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম যাদু ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নোমান ইকবাল খসরু।

যশোর

যশোরে জেলার ৬টি সংসদীয় আসনে ২২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক যশোর-২ আসনে ৭ জন ও সবচেয়ে কম যশোর-১ আসনে মাত্র ১ জন প্রার্থী মনোয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। যশোর-১ (শার্শা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ আফিল উদ্দিন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এই আসনে আর কোনো প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি।

যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক বিদ্যুত্ ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম, এবিএম আহসানুল হক ও জেপি (মঞ্জু) বিএম সেলিম রেজা, জাতীয় পার্টি (এ) হোসেন আলী সরদার ও স্বতন্ত্র আলিউজ্জামান মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছে।

যশোর-৩ আসন (সদর) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত কাজী নাবিল আহমেদ, জাতীয় পার্টির মাহবুবুল আলম বাচ্চু, জাসদের রবিউল আলম ও বিএনএফ’র আবুল কালাম মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

যশোর-৪ (বাঘারপাড়া-অভয়নগর) আসনে আওয়ামী লীগের রণজিত্ কুমার রায়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হুইপ শেখ আব্দুল ওহাব, জাতীয় পার্টির সাব্বির আহমেদ ও খেলাফত মজলিসের শরিফুল ইসলাম মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

যশোর-৫ (মনিরামপুর) আসনে আওয়ামী লীগের খান টিপু সুলতান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা চেয়ারম্যানআওয়ামী লীগ নেতা স্বপন ভট্টাচার্য, জাপার শরিফুল ইসলাম চৌধুরী সরু ও স্বতন্ত্র কামরুল হাসান বারী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

যশোর -৬ আসনে আওয়ামী লীগের ইসমত আরা সাদেক ও জাতীয় পার্টির সাখাওয়াত হোসেন ও বিএনএফ’র প্রশান্ত বিশ্বাস মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

কক্সবাজার

কক্সবাজারের চার আসনে ১৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে ২জন, কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে ৪জন, কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনে ১০জন এবং কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে দুটি আসনে রয়েছে আওয়ামীলীগের একাধিক প্রার্থী। একটি করে আসনে ন্যাপ থেকে এবং নতুন রেজিস্ট্রেশন পাওয়া দল বিএনএফ থেকে দুই জন প্রার্থী হয়েছেন। আসন ভিত্তিক মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, কক্সবাজার-১ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী জাফর আলম ও জাতীয় পাটি (জাপা) মনোনীত প্রার্থী মৌলভী মোহাম্মদ ইলিয়াছ, কক্সবাজার-২ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আশেকউল্লাহ রফিক, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ড. আনছারুল করিম, জাতীয় পার্টি (জাপা) মনোনীত প্রার্থী কবির আহমদ সওদাগর, বিএনএফ প্রার্থী শহীদউদ্দিন ছোটন, কক্সবাজার-৩ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কানিজ ফাতেমা আহমেদ, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী যথাক্রমে সাইমুম সরওয়ার কমল, সোহেল সরওয়ার কাজল, নাজনীন সরওয়ার কাবেরী, আবদুল মাবুদ, জাপা থেকে মফিজুর রহমান ও রুহুল আমিন সিকদার, ন্যাপ থেকে শামীম আহসান ভুলু, স্বতন্ত্র থেকে জগদীশ বড়ূয়া পার্থ ও সেলিম আকবর, কক্সবাজার-৪ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আবদুর রহমান বদি, জাপা থেকে তাহা ইয়াহিয়া ও নুরুল আমিন সিকদার ভূট্টো।

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহের ১১টি আসনে ৫১ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সমাজ কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট প্রমোদ মানকিন এমপি, বিদ্রুোহী আওয়ামীলীগ বোরহান উদ্দিন টিপু সুলতান, খেলাফত মজলিসের শেখ মোহাম্দ সাদী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) আসনে উপজেলা চেয়ারম্যান শরীফ আহাম্মেদ আওয়ামীলীগ, নূর মোহাম্মদ জাপা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-৩ ময়মনসিংহের গৌরীপুর আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকির এম.পি, জাতীয় পাটি মনোনীত প্রার্থী জেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক কেন্দ লভী, ময়মনসিংহ জেলা ও গৌরীপুর উপজেলা ন্যাপের সভাপতি আব্দুল মতিন, আ’লীগ নেতা সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবি এডভোকেট মোজাম্মেল হক, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শরীফ হাসান অনু, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দউন্ডেশনের কার্যকরী কমিটির সদস্য নাজনিন আলম মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-৪ সদর আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, জাতীয় পার্টি সাবেক ফাস্ট লেডি ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী রওশন এরশাদ, খালেকুজ্জামান পারভেজ বুলবুল, আনিসুর রহমান মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-৫ মুক্তাগাছা তিনজন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। এরা হচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি কেএম খালিদ বাবু, মুক্তাগাছা পৌর সভার মেয়র আব্দুল হাই আকন্দ (স্বতন্ত্র) ও সালাহ উদ্দিন মুক্তি (জাতীয় পার্টি)।

ময়মনসিংহ-৬ ফুলবাড়িয়া আওয়ামীলীগের এ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন এমপি, জাতীয় পার্টির নাজমুল হক সরকার, জাসদের হাজী আব্দুর রহমান, মোফাজ্জল হোসেন, মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-৭ ত্রিশাল আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি এডভোকেট রেজা আলী, বিদ্রুোহী আওয়ামীলীগ প্রার্থী সাবেক এমপি হাফেজ রহুল আমিন মাদানী, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মতিন সরকার, পৌর মেয়র আনিসুজ্জামান, এডভোকেট জালাল উদ্দিন খান, নাসিম আহাম্মেদ, জাতীয় পার্টির আলহাজ্জ এম এ হান্নান ও খেলাফত মজলিসের মাওলানা আব্দুল্লাহ আল ফারুকী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ।

ময়মনসিংহ-৮ ঈশ্বরগঞ্জ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি আব্দুস ছাত্তার, বিদ্রুোহী আওয়ামীলীগ প্রার্থী এমপি’র ভাতিজা মাহমুদ হাসান সুমন, জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম ও লিয়াকত হোসেন জাপা বিদ্রুোহী, সিরাজুল হক, মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ময়মনসিংহ-৯ নান্দাইল আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আব্দুস সালাম এমপি, বিদ্রুোহী আওয়ামীলীগ প্রার্থী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট কবির উদ্দিন ভূইয়া, আনোয়ারুল আবেদীন তুহিন, আব্দুল হাকিম ভূইয়া জাপা, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মতিন ভুইয়া ও আব্দুল মালেক চৌধূরী স্বপন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

ময়মনসিংহ-১০ গফরগাঁও আসনে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) ক্বারী হাবিবুলাহ বেলালী এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের এডভোকেট নূরুল ইসলাম খান মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

ময়মনসিংহ-১১ ভালুকা আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক ডা. এম আমানুল্লাহ এমপি, হাফিজ উদ্দিন মাস্টার জাপা, স্বতন্ত্র পা্রর্থী সাবেক এমপি মেজর অবঃ এম হামিদ, শাহাদাত ইসলাম চৌধূরী মিন্টু, খেলাফত মজলিসের আনোয়ার হোসেন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

জামালপুর

জামালপুরের ৫টি আসনে আওয়ামীলীগ দলীয় ৫জন, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) ৫জন, জাসদ(ইনু) ১জন, বিএনএফ-১জন, স্বতন্ত্র ৩জনসহ মোট ১৫জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

জামালপুর-১ দেওয়ানগঞ্জ-বকসিগঞ্জ আসনের আওয়ামীলীগ মনোনীত সাংস্কৃতিমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ,জাতীয় পার্টি(এ) মনোনীত সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী এমএ সাত্তার,স্বতন্ত্র প্রর্থীি আজিজ আহম্মেদ হাসান ও তার ন্ত্রী জোবায়দা সুলতানা।

জামালপুর-২ ইসলামপুর আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলাল, জাতীয় পার্টি (এ) মনোনীত জিল্লুর রহমান বিপু, জাসদ(ইনু) মনোনীত লুত্ফর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন আতিকুর রহমান লুইস।

জামালপুর-৩ মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত হুইপ মীর্জা আজম এমপি,জাতীয় পার্টি (এ) মীর সামছুল আলম।

জামালপুর-৪ সরিষাবাড়ী আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী মাওলানা মো.নুরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টি (এ) প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জোয়ার্দ্দার, বিএনএফ মনোনীত মোঃ মোস্তফা বাবুল।

জামালপুর-৫জামালপুর সদর আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত ভুমিমন্ত্রী আলহাজ রেজাউল করীম হীরা,জাতীয় পাটির্ (এ) জাকির হোসেন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

শেরপুর

শেরপুর জেলার ৩টি সংসদীয় আসনে মোট ১৩টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তারা হচ্ছেন- শেরপুর-১ (সদর) আসনে গোলাম রব্বানী (স্বতন্ত্র), মো. ইলিয়াস উদ্দিন (জাতীয়পার্টি), মো. আতিউর রহমান আতিক (আওয়ামীলীগ) ও আবু সালেহ মো. মনিরুল ইসলাম (জাসদ)।

শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ি) বদিউজ্জামান বাদশা (স্বতন্ত্র), বেগম মতিয়া চৌধুরী (আওয়ামীলীগ) ও রোজি সিদ্দীকী তালুকদার (জাতীয়পার্টি)।

শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) ফজলুল হক চান (আওয়ামীলীগ), খোরশেদ আলম ফর্সা (জাতীয়পার্টি), সরোয়ার বাহাদুর লাল (স্বতন্ত্র), এস. এম. আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাঈম (স্বতন্ত্র), শাহ মো. আব্দুর রেজ্জাক (জাসদ) ও হেদায়েতুল ইসলাম (স্বতন্ত্র)।

উল্লেখ্য শেরপুর-১ আসনের জাপা প্রার্থী মো. ইলিয়াস উদ্দিন, শেরপুর-২ আসনে মো. বদিউজ্জামান বাদশা ও শেরপুর-৩ আসনে জাপা প্রার্থী খোরশেদ আলম ফর্সা উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করে এবারের নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন।

গাইবান্ধা

গাইবান্ধার পাঁচটি আসনে সর্বমোট ২৫ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ)- জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন, স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আহসান হাবীব মাসুদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আ’লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিক ও আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর স্ত্রী সৈয়দা খোরশেদ জাহান স্মৃতি, জাতীয় পার্টি-জেপি মনোনীত প্রার্থী রেজিয়া খাতুন, স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহেল রানা সোনা, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল বাশার মোহাম্মদ শরীয়তউল্ল্যা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাপার (এ) প্রেসিডিয়াম সদস্য বর্তমান সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল কাদের খান।

গাইবান্ধা (সদর)-২ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সংসদ সদস্য মাহবুব আরা বেগম গিনি, জাতীয় পার্টি (এ) মনোনীত প্রার্থী জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ সরকার এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোকদুবর রহমান।

গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্লাপুর-পলাশবাড়ী) আসনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী জাপা কেন্দ ীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার দিলারা খন্দকার শিল্পী, জাতীয় পর্টি জেপি মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফজলে করিম পল্লব, আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বিএমএ’র সাবেক কেন্দুর উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম খাদেমুল ইসলাম খুদি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মনজুরুল হক সাচ্ছা।

গাইবান্ধা-৪ ( গোবিন্দগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, জাতীয় পাটি (এ) মনোনীত প্রার্থী লুত্ফর রহমান চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ, জাসদ (ইনু) থেকে আবু সফিয়ান খান, জাতীয় পার্টি-জেপি মনোনীত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ।

গাইবান্ধা-৪ ( সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত অ্যাডভোকেট মোঃ ফজলে রাব্বী মিঞা, জাতীয় পার্টি (এ) মনোনীত সাঘাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এইচএম গোলাম শহীদ রঞ্জু, জাসদ (ইনু) প্রার্থী ডাঃ একরাম হোসেন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ডাঃ নজরুল ইসলাম।

টাঙ্গাইল

টাঙ্গাইলের আটটি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি (এরশাদ), জাতীয় পার্টি (জেপি) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলিয়ে মোট ২৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তারা হলেন টাঙ্গাইল-১ (মধুপুর-ধনবাড়ি) ঃ আওয়ামী লীগের ড. আব্দুর রাজ্জাক, জাতীয় পার্টির সার্জেন্ট (অব.) মোহাম্মদ আলী, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) আবু মিল্লাত হোসেন।

টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভুঞাপুর) ঃ আওয়ামী লীগের খন্দকার আসাদুজ্জামান, জাতীয় পার্টির আলহাজ শামসুল হক তালুকদার, স্বতন্ত্র হাসমত আলী ও স্বতন্ত্র তরিকুল ইসলাম চঞ্চল।

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) ঃ আওয়ামী লীগের আমানুর রহমান খান রানা। একমাত্র প্রার্থী।

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) ঃ আওয়ামী লীগের আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) আজিজুর রহমান তালুকদার, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) শামসুল হক মহসীন ।

টাঙ্গাইল-৫ (টাঙ্গাইল সদর) ঃ আওয়ামী লীগের ছানোয়ার হোসেন, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) আব্দুস সালাম চাকলাদার, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাদেক সিদ্দিকী, স্বতন্ত্র মুরাদ সিদ্দিকী, স্বতন্ত্র খালেদ মোস্তফা চৌধুরী, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) আতাউর রহমান খান।

টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) ঃ আওয়ামী লীগের খন্দকার আব্দুল বাতেন, জাতীয় পাটির (এরশাদ) আব্দুল কদ্দুস ও মামুনুর রহিম সুমন (উভয়েই দলীয় মনোনয়নের চিঠিসহ দাখিল করেছেন), স্বতন্ত্র কাজী এটিএম আনিসুর রহমান বুলবুল।

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) ঃ আওয়ামী লীগের একাব্বর হোসেন, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) জহিরুল ইসলাম জহির, ওয়ার্কাস পার্টির গোলাম নওজব পাওয়ার চৌধুরী।

টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) ঃ আওয়ামী লীগের শওকত মোমেন শাহজাহান, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, স্বতন্ত্র ইয়াসিন আলী ও স্বতন্ত্র ডা. লিয়াকত আলী।

দিনাজপুর

দিনাজপুরে ৬টি আসনে মোট ২২ টি মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন এরা হলেন- দিনাজপুর-১ ঃ আব্দুল হক (ওয়ার্কার্স পার্টি), এমপি মনোরঞ্জনশীল গোপাল (আ’লীগ), মো. শাহিনুর ইসলাম জাতীয় পার্টি (এ)।

দিনাজপুর-২ ঃ মো. মোকারম হোসেন (স্বতন্ত্র), আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (আ’লীগ), আনোয়ার চৌধুরী জীবন জাতীয় পার্টি (এ)।

দিনাজপুর-৩ ঃ এমপি ইকবালুর রহিম (আ’লীগ), রমেন্দ নারায়ণ রায় (ন্যাপ), আহমেদ শফি রুবেল (জাপা এরশাদ), মাহমুদুল হাসান মানিক (ওয়ার্কার্স পার্টি), শাহাদত্ জামান জাতীয় পার্টি (জেপি)।

দিনাজপুর-৪ ঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এমপি (আ’লীগ), মো. আব্দুল আলিম হাওলাদার জাতীয় পার্টি (এ), মো. এনামুল হক সরকার (ওয়ার্কার্স পার্টি)।

দিনাজপুর-৫ ঃ মো. নুরুল ইসলাম জাতীয় পার্টি (এ), মো. আফছার আলী (ওয়ার্কার্স পার্টি), সাবেক ভুমিপ্রতিমন্ত্রী এ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি (আ’লীগ)।

দিনাজপুর-৬ ঃ রবিন্দ সরেন (ওয়ার্কার্স পার্টি), আবু হানিফ সরকার (আ’লীগ), এমপি আজিজুল হক চৌধুরী (আ’লীগ) মো. শিবলী সাদিক (আ’লীগ), মো. দেলোয়ার হোসেন জাতীয় পার্টি (এ)।

পটুয়াখালী

পটুয়াখালীতে চার আসনে ১৬ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। পটুয়াখালী-১(পটুয়াখালী সদর, দুমকি ও মির্জাগঞ্জ)ঃ আসনে সাত জন মনোনয়ন দাখিলকারী হলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহজাহান মিয়া এমপি(আওয়ামী লীগ মনোনীত), সাবেক মন্ত্রী জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ.বি.এম রুহুল আমীন হাওলাদার(জাতীয় পার্টি), এডভোকেট হাবিবুর রহমান শওকত(জাসদ), পীরজাদা মুহাম্মদ মুতাওয়াক্কিল বিল্লাহ(তরিকত ফেডারেশন), মো. জাকির হোসেন(খেলাফত মজলিস), সুলতান আহমেদ মৃধা (আওয়ামী লীগ) ও ডা. মো. শফিকুল ইসলাম ( আওয়ামী লীগ)।

১১২- পটুয়াখালী-২(বাউফল)ঃ আসনে চার জন হলেন- জাতীয় সংসদের হুইপ আ.স.ম ফিরোজ এমপি(আওয়ামী লীগ মনোনীত), এডভোকেট খন্দকার শামসুল হক রেজা(কৃষক লীগ), রায়হান সাকিব(স্বতন্ত্র) ও দিদার হোসেন (জাতীয় পার্টি)।

১১৩- পটুয়াখালী-৩(গলাচিপা ও দশমিনা)ঃ আসনে তিন জন হলেন- সাবেক প্রতিমন্ত্রী আ.খ.ম জাহাঙ্গীর হোসাইন (আওয়ামী লীগ মনোনীত), হাবিবুর রহমান শওকত(জাসদ) ও এম.ওয়াই.এম কামরুল ইসলাম (বিএনএফ)।

১১৪- পটুয়াখালী-৪(কলাপাড়া ও রাঙ্গাবালী)ঃ আসনে দুই জন হলেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুবুর রহমান এমপি(আওয়ামী লীগ মনোনীত) ও সাবেক এমপি আবদুর রাজ্জাক খান(জাতীয় পার্টি)।

বগুড়া

বগুড়ার সাতটি সংসদীয় আসনে ১৯ জন তাদের প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের ৭ জন, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) ৭ জন, জাতীয় পার্টি জেপি (মঞ্জুু) ২ জন, জাসদের ১ জন, এবং স্বতন্ত্র হিসেবে ১ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাীখল করেছেন। এছাড়াও বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও শেরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান মজনু বগুড়া- ৫ আসনে তাঁর মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনে সরকারদলীয় সাংসদ ও আওয়ামী লীগনেতা মো. আব্দুল মান্নান, জাতীয় পার্টির মোকছেদুল আলম, বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে বিশিষ্ট শিল্পপতি আওয়ামী লীগনেতা আকরাম হোসেন, জাতীয় পার্টির শরিফুল ইমলাম জিন্নাহ, বগুড়া-৩ (দুপচাঁচিয়া-আদমদিঘি) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আনছার আলী মৃধা, জাতীয় পাটির প্রার্থী অ্যাড. নুরুল ইসলাম তালুকদার, বগুড়া-৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনে আওয়ামী লীগের জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন, জাসদনেতা রেজাউল করিম তানসেন, জাতীয় পার্টির হাজী নুরুল আমিন বাচ্চু, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আবুল কাসেম সরদার মঞ্জু, বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে বর্তমান সাংসদ আওয়ামী লীগের আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান, জাতীয় পার্টির তাজ মোহাম্মদ শেখ, বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান মজনু মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

এছাড়াও বগুড়া-৬ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের রাগেবুল আহসান রিপু, জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর, জেপি’র আব্দুল মজিদ সরকার, বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাজাহানপুর) আসনে আওয়ামী লীগের ডা. মোস্তফা আলম নান্নু ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আ্যাাডভোকেট আলতাফ আলী ও জেপির এটিএম আমিনুল ইসলাম মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে।

খুলনা

খুলনার ৬টি আসনে ২১জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৬জন, জাতীয় পার্টির ৬জন, জাতীয় পার্টি (জেপি) ৩জন, ওয়ার্কার্স পার্টির ১জন এবং ৫জন স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ মোট ২১জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

খুলনা-১ (বটিয়াঘাটা-দাকোপ) আসনে পঞ্চানন বিশ্বাস, খুলনা-২আসনে (খুলনা সদর ও সোনাডাঙ্গা) আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা-৩ আসনে (খালিশপুর-দৌলতপুর-খানজাহান আলী) শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা-৪ আসনে (রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়া) এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা, খুলনা-৫ আসনে (ফুলতলা-ডুমুরিয়া) নারায়ণ চন্দ চন্দ, খুলনা-৬ আসনে (পাইকগাছা-কয়রা) এডভোকেট নুরুল হক।

জাতীয় পার্টি (এ) পক্ষ থেকে ৬টি আসনে যারা মনোনয়নপ্রত দাখিল করেছেন তারা হলেন খুলনা-১ (বটিয়াঘাটা-দাকোপ) আসনে সুনীল শুভ রায়, খুলনা-২আসনে (খুলনা সদর ও সোনাডাঙ্গা) আলহাজ্ব আব্দুল গফ্ফার বিশ্বাস, খুলনা-৩ আসনে (খালিশপুর-দৌলতপুর-খানজাহান আলী) শফিকুল ইসলাম মধু, খুলনা-৪ আসনে (রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়া) ডা: হাদিউজ্জামান, খুলনা-৫ আসনে (ফুলতলা-ডুমুরিয়া) জোহর আলী মোড়ল, খুলনা-৬ আসনে (পাইকগাছা-কয়রা) মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর।

জাতীয় পার্টির (মঞ্জু) পক্ষ থেকে খুলনা-২ আসনে রাশিদা করিম, খুলনা-৩ আসনে শরীফ শফিকুল হামিদ চন্দন ও খুলনা-৪ আসনে মেজর (অব) ডা: শেখ হাবিবুর রহমান মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

এ ছাড়া ওয়ার্কার্স পার্টির খুলনা জেলা সম্পাদক কমরেড হাফিজুর রহমান ভ্থঁইয়া খুলনা-৫ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে খুলনা-১ আসনে আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ ননী গোপাল মন্ডল, খুলনা-৩ আসনে দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগের পদত্যাগী সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান খান খোকন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর শাহিদা বেগম, খুলনা-৪ আসনে রূপসা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আকবর শেখ।

শরীয়তপুর

শরীয়তপুরের তিনটি আসনে সাত জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। শরীয়তপুরের ৩টি আসনে আওয়ামীলীগের ৩ জন ও জাতীয় পার্টি (এরশাদ) ৩ জন ও তরিকত ফেডারেশনের ১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। শরীয়তপুর-১ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন কেন্দ ীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান সংসদ সদস্য বিএম মোজাম্মেল হক, জাতীয় পার্টির জেলা সভাপতি এ্যাড. মাসুদুর রহমান ও তরিকত ফেডারেশনের মোঃ সিরাজুল ইসলাম চৌকিদার। শরীয়তপুর-২ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার কর্নেল (অবঃ) শওকত আলী ও জাতীয় পার্টির জেলার সহ-সভাপতি সুলতান আহম্মেদ সরদার। শরীয়তপুর-৩ আসনের আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য মরহুম জাতীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাকের জ্যেষ্ঠ পুত্র নাহিম রাজ্জাক ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ ীয় কমিটির সদস্য এম এ হান্নান উকিল।

কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামের ৪টি আসনে আসনে ১৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলকৃত প্রার্থীরা হলেন- কুড়িগ্রাম-১ আসনে আওয়ামীলীগের আসলাম সওদাগর, জাতীয় পার্টির একেএম মোস্তাফিজুর রহমান, স্বতন্ত্র আব্দুল হাই মাষ্টার। কুড়িগ্রাম-২ আসনে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জাফর আলী, জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী তাজুল ইসলাম চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুন্নবী সরকার। কুড়িগ্রাম-৩ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী একেএম মাইদুল ইসলাম ও সাবেক এমপি গোলাম হাবীব দুলাল, জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী আবু তাহের এটি, উলিপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতি শিউলি ও একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী অধ্যক্ষ নাসিমা বানু। কুড়িগ্রাম-৪ আসনে আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি জাকির হোসেন, জাতীয় পার্টির অধ্যক্ষ মো: ইউনুছ আলী, জাপার বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল মোতালেব ও জেপির প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করেছেন মো: রুহুল আমিন।

চুয়াডাঙ্গা

চুয়াডাঙ্গা জেলার ২টি আসনে মোট ৯ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। চুয়াডাঙ্গা -১ আসনে আওয়ামী লীগ জেলা সভাপতি বর্তমান সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সাবেক জেলা সম্পাদক সবেদ আলী ও জাতীয় পার্টির জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন নিজ নিজ প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়াও, দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শামসুল আবেদীন খোকন এই আসনে সতন্ত্র প্রার্থী পরিচয়ে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

জেলার চুয়াডাঙ্গা ২ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক বর্তমান সংসদ সদস্য আলী আজগার টগর, জাতীয় পার্টির আকবর আলী মাষ্টার ও ওয়ার্কাস পার্টির শেখ সিরাজুল ইসলাম নিজ নিজ প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়াও, এ আসনে দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত আওয়ামী লীগ কেন্দ ীয় কমিটির সাবেক কার্যকরী সদস্য সাবেক এমপি মীর্জা সুলতান রাজার সহোদর মীর্জা শাহরিয়ার মাহমুদ লন্টু ও দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দর্শনা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ের ২টি আসনে ৩ দলের ৬ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। পঞ্চগড়-১ (সদর, তেঁতুলিয়া ও আটোয়ারী) আসনের জন্য মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজাহারুল হক প্রধান, কেন্দান এবং জেলা জাপার (এরশাদ) সাধারণ সম্পাদক আবু সালেক।

পঞ্চগড়-২ (বোদা ও দেবীগঞ্জ) আসনের জন্য মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন, জাসদ কেন্দ ীয় কমিটির সদস্য এমরান আল আমিন ও জাপা (এরশাদ) থেকে বোদা উপজেলা জাপার সহ সাংগঠনিক সম্পাদক লুত্ফর রহমান রিপন।

ঠাকুরগাঁও

ঠাকুরগাঁও জেলার ৩টি আসনে ৯জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

এরা হলেন- ঠাকুরগাঁও-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নির্বাচনকালীন সরকারের খাদ্যমন্ত্রী রমেশ চন্দ সেন, জাতীয় পার্টির রেজাউর রাজী স্বপন, সুলতানা রেজাউন, ওয়ার্কাস পার্টি প্রার্থী এ্যাড.ইমরান চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহমিনা আক্তার মোল্লা।

ঠাকুরগাঁও-২ আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী দবিরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী নুরুন নাহার বেগম।

ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এমদাদুল হক, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী প্রেসিডিয়াম সদস্য হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদ।

কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার চারটি সংসদীয় আসনে মোট ২২ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনে মোট ৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত দুই প্রার্থী মাহবুব-উল আলম হানিফ (কেন্দ ীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক,আওয়ামী লীগ) ও জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডাক্তার এএফএম আাামিনুল হক রতন। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে জেলা আওয়ামী সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী,জাহাঙ্গীর হোসেন (জেপি), নূর আহম্মেদ বকুল (ওয়ার্কাস পার্টি),রকিবুর রহমান খান চৌধুরী লিটন (বিএনএফ),ইলিয়াস আহম্মেদ (ন্যাপ), কেএম জাহিদ (জাপা)।

কুষ্টিয়া- ৪ আসন ( কুমারখালী-খোকসা) থেকে মোট ৬ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এরা হচ্ছেন-আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী থেকে বাদ পড়া বর্তমান এমপি বেগম সুলতানা তরুণ (স্বতন্ত্র) মনোনয়ন পত্র জামা দেন। এছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ ীয় পরিষদের সদস্য ও খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান (স্বতন্ত্র প্রার্থী), এ্যাডভোকেট মিয়া মোহাম্মদ রেজাউল হক (জাপা),মোঃ রোকনুজ্জামান (স্বতন্ত্র) ও আব্দুল বারী জোয়ার্দ্দার (ন্যাপ) প্রার্থী হিসাবে মননোয়ন পত্র দাখিল করেন।

কুষ্টিয়া-২ আসন (ভোড়ামার-মিরপুর) থেকে মোট ৩ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এরা হলেন- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ( জাসদ), সাবেক এমপি আহসান হাবিব লিংকন (জাপা) ও আব্দুল কুদ্দুস (জেপি) মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫শ’৭৭ জন এবং ভোট কেন্দ ১৫৪টি।

কুষ্টিয়া – ১ আসনে (দৌলতপুর) মোট ৫ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান এমপি আফাজ উদ্দিন আহম্মেদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল হক চৌধুরী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এছাড়া সাবেক খাদ্য প্রতিমন্ত্রী কোরবান আলী (জাপা), বিএনপির বহিস্কৃত নেতা প্রার্থী নূরুজ্জামান হাবলু মোল্লা (স্বতন্ত্র) ও অধ্যক্ষ রেজাউল হক (জাসদ) প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দেন। এই আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৫ জাহার ৬শ’২৭ জন এবং ভোট কেন্দ ১২৬টি।

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম মহানগরীর ৬ আসন ও জেলার ১০ আসনে অর্ধশতাধিক প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। আওয়ামী লীগ ও জাপা (এরশাদ) মহানগরী ও জেলার ১৬ আসনের মধ্যে ১৫টিতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। চট্টগ্রাম ৮ বোয়ালখালী-চান্দগাঁও-পাঁচলাইশ- বায়েজিদ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আবদুচ ছালাম মনোনয়ন পত্র জমা দেননি। এছাড়া জাপা (এরশাদ) চট্টগ্রাম ৬ রাউজান আসনে প্রার্থী দেয়নি। চট্টগ্রাম ১ মিরেরসরাই, চট্টগ্রাম ২ আনোয়ারা এবং চট্টগ্রাম ৬ রাউজান আসনে দু’জন করে প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সর্বাধিক ৬ প্রার্থী জমা দেন চট্টগ্রাম ২ ফটিকছড়ি আসনে। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে খাদিজাতুল আনোয়ার সনিকে দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হলেও এ আসনে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এটিএম পেয়ারুল ইসলাম নিজেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দাবি করে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। একই আসনে মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. মাহমুদ হাসান স্বতন্ত্র্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সাতকানিয়া আসনে অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীকে ডিঙিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের নতুন প্রার্থী আবু রেজা মো. নিজামউদ্দিন নদভী।

সকাল ১০টা থেকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, জেলা নির্বাচন কার্যালয় ও বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়সহ চারটি স্থানে একযোগে মনোনয়ন পত্র জমা নেয়া শুরু হয়। শোডাউন করে মনোনয়ন জমাদানের ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও দুই-একজন ছাড়া প্রায় সব প্রার্থী বিশাল মিছিল অথবা গাড়ির বহর নিয়ে আসেন। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় কোনো কোনো প্রার্থীর সমর্থকদের দলীয় স্লোগান দিতে দেখা যায়।

অধিকাংশ প্রার্থীই বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর বাইরে জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে একজন এবং ফটিকছড়ি ও চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে দু’জন করে প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।

গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের হাতে প্রথম মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসেন চট্টগ্রাম ১ মীরেরসরাই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। এ আসনে আরো জমা দেন শায়েস্তা খান (জাপা-এরশাদ)।

চট্টগ্রাম ২ ফটিকছড়ি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খাদিজাতুল আনোয়ার সনি। তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে জমা দেন। নিজেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী দাবি করে এ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন গতবারের প্রার্থী ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলাম। এ আসনে স্বতন্ত্র্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. মাহমুদ হাসান। এছাড়া রয়েছেন অ্যাডভোকেট ফরিদ আহমেদ, জাপা (এরশাদ), অধ্যাপক মো. হামিদ উল্লাহ (ইসলামী ফ্রন্ট) ও আলহাজ্ব নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী (বাংলাদেশ ত্বরিকত ফেডারেশন)।

চট্টগ্রাম ৩ সন্দ্বীপ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন মাহফুজুর রহমান মিতা (আওয়ামী লীগ), এমএ সালাম (জাপা-এরশাদ), নুরুল ইসলাম (জাসদ-ইনু) ও মহিউদ্দিন হেলাল (স্বতন্ত্র্য)।

চট্টগ্রাম ৪ সীতাকুণ্ড আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন দিদারুল আলম (আওয়ামী লীগ) ও অ আ ম হায়দার আলী চৌধুরী (জেপি), শফিকুল আলম বাচ্চু (জাপা-এরশাদ)।

চট্টগ্রাম ৫ হাটহাজারী আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইউনুস গণি চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), অধ্যাপক গিয়াস উদ্দিন (ইসলামী ফ্রন্ট)। জাপা এরশাদ মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ গত রবিবার মনোনয়নপত্র জমা দেন।

চট্টগ্রাম ৬ রাউজানে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), মাওলানা ইলিয়াস নূরী (ইসলামী ফ্রন্ট)।

চট্টগ্রাম ৭ রাঙ্গুনিয়া-বোয়ালখালী আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন মোহাম্মদ হাছান মাহমুদ (আওয়ামী লীগ), নজরুল ইসলাম (জাপা-এরশাদ), মাওলানা মো. রুহুল আমীন (ইসলামিক ফ্রন্ট)।

চট্টগ্রাম ৮ বোয়ালখালী-চান্দগাঁও-পাঁচলাইশ- বায়েজিদ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন মইনুদ্দীন খান বাদল (জাসদ), ইয়াকুব হোসেন (জাপা-এরশাদ)। এ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবদুচ ছালাম মনোনয়ন পত্র জমা দেননি।

চট্টগ্রাম ৯ কোতোয়ালি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন নুরুল ইসলাম বিএসসি (আওয়ামী লীগ), জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু (জাপা-এরশাদ), আবু হানিফ (ওয়ার্কাস পার্টি), আরিফ মঈনুদ্দীন (বিএনএফ)।

চট্টগ্রাম ১০ পাহাড়তলি ডবলমুরিং আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আফছারুল আমীন (আওয়ামী লীগ), অ আ ম হায়দার আলী (জেপি) খোকন চৌধুরী (জাপা এরশাদ)।

চট্টগ্রাম ১১ পতেঙ্গা আসনে এম এ লতিফ (আওয়ামী লীগ), আবু তাহের (জাপা-এরশাদ), জসিমউদ্দিন (জাসদ)।

চট্টগ্রাম ১২ পটিয়া আসনে শামসুল হক চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী (জাপা এরশাদ), মঞ্জুরুল করিম রেফায়ী (ইসলামী ফ্রন্ট)।

চট্টগ্রাম ১৩ আনোয়ারা আসনে সাইফুজ্জামান চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), শ্রী তপন চক্রবর্তী (জাপা-এরশাদ)।

চট্টগ্রাম ১৪ চন্দনাইশ, সাতকানিয়া আসনে নজরুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), আবদুল গফুর (জাপা-এরশাদ), আমান উল্লাহ (ইসলামী ফ্রন্ট)।

চট্টগ্রাম ১৫ সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনে আবু রেজা মো. নিজামউদ্দিন নদভী (আওয়ামী লীগ), মো. আলী (জাপা-এরশাদ), জয়নাল কাদেরী (বিএনএফ)।

চট্টগ্রাম ১৬ বাঁশখালী আসনে মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী (জাপা-এরশাদ), অ আ ম হায়দার আলী চৌধুরী (জেপি)।

রাজশাহী

রাজশাহীর ৬টি আসনে ২২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের সমর্থক ১১, জাতীয় পার্টির ৬, জাসদের এক ও স্বতন্ত্র ৪ জন। রাজশাহী-৩ ও ৬ আসনে আওয়ামী লীগের একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনে আওয়ামী লীগের জেলার সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক চৌধুরী এবং জাতীয় পার্টির (এ) ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম; রাজশাহী-২ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের মহানগর সভাপতি অধ্যাপক বজলুর রহমান, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এমপি ও জাতীয় পার্টির (এ) মহানগর সাবেক সাধারণ সম্পাদক এমএস জোহা সরকার; রাজশাহী-৩ (পবা- মোহনপুর) আসনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সা্বেক সাধারণ সম্পাদক ও দলীয় টিকেটপ্রাপ্ত আয়েন উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা এমপি, জেলার এক নম্বর যুগ্ম-সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রউফ নান্নু, জাতীয় পার্টির (এ) সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট শিল্পপতি শাহাবুদ্দিন বাচ্চু এবং আলু ব্যবসায়ী আলমগীর কবির (স্বতন্ত্র) ও আতিকুর রহমান (স্বতন্ত্র); রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে আওয়ামী লীগের উপজেলা সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি, জাতীয় পার্টির (এ) নেতা আবু হেনা মোস্তফা কামাল হেলাল ও আবু ইউসুফ মো্হাম্মদ সেলিম (স্বতন্ত্র); রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দূর্গাপুর) আসনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আব্দুল ওয়াদুদ দারা, জাতীয় পার্টির (এ) সাবেক এমপি অধ্যাপক আবুল হোসেন এবং ওবাইদুর রহমান (স্বতন্ত্র); রাজশাহী-৬ (বাঘা-চারঘাট) আসনে আওয়ামী লীগের শাহরিয়ার আলম এমপি, জাতীয় পার্টির (এ) অ্যাডভোকেট ইকবাল হোসেন, জাসদের (ইনু) শফিউর রহমান, আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি রায়হানুল হক মনোনায়নপত্র জমা দিয়েছেন।

নরসিংদী

নরসিংদীর ৫টি আসনে ১৬ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে নরসিংদী -১(সদর) আসনে ৩জন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি লে.কর্ণেল (অবঃ) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হিরু বীর প্রতীক, জাতীয় পার্টির কেন্দ ীয় নেতা সাবেক এমপি এডভোকেট মোঃ মোস্তফা জামাল বেবী, জে:পি:(মঞ্জু)’র বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেকুর রহমান সাদেক।

নরসিংদী -২(পলাশ) আসনে ৫জন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি ডা: আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ, জাতীয় পার্টির এডভোকেট রশীদুজ্জামান ভূঞা ও আজম খান, জাসদ(ইনু)’র জায়েদুল কবির এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান এমপির সহোদর কামরুল আশরাফ খান ।

নরসিংদী -৩ (শিবপুর) আসনে ৩ জন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি মো: জহিরুল হক ভূঞা মোহন, জাতীয় পার্টির এডভোকেট এ কে এম রেজাউল করিম বাসেত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ ীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব মোঃ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা।

নরসিংদী -৪(মনোহরদী-বেলাব) আসনে ৩জন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি এডভোকেট নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, জাতীয় পার্টির এডভোকেট মোঃ কামাল উদ্দিন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ হাবিউজ্জামান ফারুক।

নরসিংদী-৫ (রায়পুরা) আসনে ২জন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি এবং অধুনা পদত্যাগকারী মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এবং জাতীয় পার্টির ইঞ্জিনিয়ার এম এ ছাত্তার।

ফেনী

ফেনী জেলার তিনটি আসনে দশ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেণ।

ফেনী-১ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খায়রুল বশর মজুমদার তপন, ফেনী-২ আসনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও ফেনী পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিন হাজারী এবং ফেনী-৩ আসনে বিগত নির্বাচনে প্রার্থী ও যুবলীগ কেন্দ ীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ আবুল বাশার দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী হয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জে ৩টি আসনে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনে ৬ প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এরা হলেন-আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী কেন্দ ীয় উপ-দফতর সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাস, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসাবে হাজী মো. ফয়সাল বিপ্লব, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলহাজ কলিমুল্লাহ, জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল বাতেন, জেপি প্রার্থী প্রার্থী নাজমুন্নাহার বেবী, বিএনএফ’র সৈয়দ মোখলেছুর রহমান।

মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৫ জন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী জাতীয় সংসদের হুইপ ও বর্তমান সাংসদ সাগুফতা ইয়সমিন এমিলি, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসাবে মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ বীর বিক্রম, জাতীয় পার্টির নোমান মিয়া, খেলাফত মজলিসের মো. আব্দুল ওয়াদুদ ও বিএনএফ’র বাচ্চু শেখ।

মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে ৩ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান সাংসদ সুকুমার রজ্ঞন ঘোষ, জাতীয় পার্টির এ্যাডভোকেট শেখ মো. সিরাজুল ইসলাম ও জাসদের (ইনু) একেএম নাসিরুজ্জামান খান।

জেলা প্রশাসক ও রির্টার্নিং অফিসার মো. সাইফুল হাসান বদাল সোমবার সন্ধ্যায় এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, তাঁর কার্যালয় ছাড়াও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তথা সহকারী রির্টানিং অফিসারদের কাছে এই মনোনয়নপত্র জমা দেয়া হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩টি অসনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

গতকাল সোমবার বেলা ১টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের প্রার্থী আব্দুল ওদুদ জেলা প্রশাসকের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ দিন বিকেলে জাতীয় পার্টির (এ:) সদর আসনে নজরুল ইসলাম সোনা, শিবগঞ্জ আসনে আলাউদ্দিন টিপু ও নাচোল-গোমস্তাপুর-ভোলাহাট আসনে আব্দুর রাজ্জাক জেলা প্রশাসকের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

মেহেরপুর

মেহেরপরে ১২ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। মেহেরপুর ১ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মোঃ ফরহাদ হোসেন দোদুল ,সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে,জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন এমপি,পৌর মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ইয়ারুল ইসলাম,কাউছার আলী,জাতীয় পার্টি (এরশাদ) আব্দুল হামিদ।

অপরদিকে মেহেরপুর ২ গাংনী আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী এম এ খালেক,সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে সাবেক এমপি মকবুল হোসেন,জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মকলেচুর রহমান মুকুল,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাহিদুজ্জামান খোকন,জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখন,জাতীয় পাটি(মঞ্জু)আব্দুল হালিম।

কুমিল্লা

কুমিল্লার ১১টি সংসদীয় আসনে গতকাল সোমবার শেষ দিন পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪৬ জন। এর মধ্যে ৫টি আসনে আ’লীগের ৬ জন বিদ্রোহী প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মনোনয়নপত্র দাখিলকারীদের মধ্যে রয়েছেন, কুমিল্লা-১ (দাউদকান্দি-মেঘনা) আসনে মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভূঁইয়া এমপি (আ’লীগ), হাসান জামিল সাত্তার (স্বতন্ত্র), সুলতান আহমেদ জিসান (জাপা-এ), আবু সায়েদ সরকার মাখন (স্বতন্ত্র), ব্যারিস্টার নাঈম হোসেন (স্বতন্ত্র), জামান হোসেন (স্বতন্ত্র), কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) অধ্যক্ষ আবদুল মজিদ (আ’লীগ), আমির হোসেন ভূঁইয়া (জাপা-এ)। কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর) জাহাঙ্গীর আলম সরকার (আ’লীগ), ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন (স্বতন্ত্র), জামাল উদ্দিন (জাপা-এ), এইচ এম আক্তার (স্বতন্ত্র), আহসানুল আলম সরকার কিশোর (স্বতন্ত্র), সলিম উল্লাহ (স্বতন্ত্র), কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার) এবিএম গোলাম মোস্তফা এমপি (আ’লীগ), ইকবাল হোসেন রাজু (জাপা-এ), রাজী মোহাম্মদ ফখরুল (স্বতন্ত্র), রোশন আলী মাস্টার (স্বতন্ত্র), কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) অ্যাড. আবদুল মতিন খসরু এমপি (আ’লীগ), অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান (জাপা-এ), জাহাঙ্গীর আলম জাবির (ইসলামী ফ্রন্ট), কুমিল্লা-৬ (সদর) আসনে আ ক ম বাহাউদ্দিন (আ’লীগ), মাসুদ পারভেজ খান ইমরান (স্বতন্ত্র), হুমায়ুন কবির মুন্সী (জাপা-এ), মোহাম্মদ আলী ফারুক (ন্যাপ), কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনে অধ্যাপক আলী আশ্রাফ এমপি (আ’লীগ), লুত্ফুর রেজা খোকন (জাপা-এ), কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসনে নাসিমুল আলম চৌধুরী এমপি (আ’লীগ), অধ্যাপক নুরুল ইসলাম মিলন (জাপা-এ), অ্যাড. কামরুল ইসলাম (স্বতন্ত্র), এমরান হোসেন (খেলাফত মসলিস), কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) তাজুল ইসলাম এমপি (আ’লীগ), কুমিল্লা-১০ (সদর দক্ষিণ-নাঙ্গলকোট) আসনে আ.হ.ম মোস্তফা কামাল (লোটাস কামাল) এমপি (আ’লীগ), ডা. আলী আহমেদ মোল্লা (জাপা-এ) এবং কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনে রেলপথ ও ধর্মমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি (আ’লীগ) ও এইচ.এন.এম শফিকুর রহমান (জাপা-এ)।

ভোলা

ভোলার চারটি আসনে আট জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ভোলা-১ আসনে আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ, জাপার (এরশাদ) মোয়াজ্জেম হোসেন আজিম গোলদার,-বোরহানউদ্দিন-দৌলতখান -২ আসনে আওয়ামী লীগের আলী আযম মুকুল, জাপার (এরশাদ) মো. সালাউদ্দিন, ভোলা-৩ আসনে আওয়ামী লীগের নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, জাপার (এরশাদ) এড. নজরুল ইসলাম মিয়া, ভোলা-৪ আসনে আওয়ামী লীগের আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, জাপার (এরশাদ) এম হাসিব মান্নান।

রাজবাড়ী

রাজবাড়ীর দু’টি আসনে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে এবং একই আসনে জাতীয় পার্টি (এ) প্রার্থী হিসেবে জেলা জাপার সভাপতি এডঃ হাবিবুর রহমান বাচ্চু মনোনয়নপত্র জমা দেন। রাজবাড়ী-২ আসনে জাপা’র প্রার্থী এডঃ নুরুল ইসলাম। রাজবাড়ী-২ আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মোঃ জিল্লুল হাকীম।

সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জের ছয়টি আসনে মোট ২৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সিরাজগঞ্জ-১ কাজিপুর আসনে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সাবেক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী জনাব মোঃ নাসিম মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এই আসনে জাতীয় পাটির ( এরশাদ) মনোনয়ন জমা দিয়েছেন মোমিনউদ্দোলা।

সিরাজগঞ্জ-২ (সদর ও কামারখন্দ) আসন থেকে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। গতকাল সিরাজগঞ্জ-২ (সদর) আসন থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মির্জা ফারুক আহম্মেদ। জাসদ মনোনীত প্রার্থী আবু বক্কার ভুইয়া, সিরাজগঞ্জ ৩ (রায়গঞ্জ-তাড়াশ) আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান সাংসদ আলহাজ্ব গাজী ইসহাক হোসেন তালুকদার। জাতীয় পার্টির ( এরশাদ) প্রার্থী জাকির হোসেন।

সিরাজগঞ্জ-৪ (উল্লাপাড়া) আসনে ৪ জন প্রার্থী উল্লাপাড়া মো. শামীম আলমের নিকট মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এরা হলেন- আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী তানভীর ইমাম, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) মোঃ হিলটন প্রামানিক, জাসদ (ইনু) মোঃ কামরুজ্জামান পান্না ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এস.এম জাহিদুজ্জামান কাকন ।

সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসন থেকে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল মজিদ মন্ডল। অপর প্রার্থী হলেন- জাতীয় পার্টি ( এরশাদ) মনোনীত ডা আবু বকর।

সিরাজগঞ্জ ৬ – শাহজাদপুর আসন থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোননীত প্রার্থী হাসিবুল ইসলাম স্বপন। জাতীয় পার্টি ( এরশাদ) মনোনীত প্রার্থী হলেন মোক্তার হোসেন।

মাগুরা

মাগুরার দুটি আসনে ৮ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। মাগুরা-১ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. এম এস আকবর, জাতীয় পার্টির প্রার্থী জেলা জাতীয় পার্টি প্রার্থী জেলা জাপা (এরশাদ) সম্পাদক এ্যাড. হাসান সিরাজ সুজা, বিএনএফ দলের প্রার্থী কে এফ মোসতাসিম বিল্লাহ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কুতুবুল্লাহ মিয়া কুটি। ডা. এম এস আকবর, এ্যাড. হাসান সিরাজ সুজা ও মোস্তাসিম বিল্লাহ এবং কুতুবুল্লাহ মিয়া কুটি মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। মাগুরা-২ আসনে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী এ্যাড. বীরেন শিকদার এমপি, জাতীয় পার্টির প্রর্থী মিসকাদুর রহমান মিসকাদ, বিএনএফ প্রার্থী ফিরোজা, জেলা প্রশাসক রির্টানিং অফিসারের কাছে এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মহম্মদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল মান্নান মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।

মাদারীপুর

জেলার ৩টি আসনে ১০টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। মাদারীপুর-১ আসনে (শিবচর) আওয়ামীলীগ দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য নূর-ই-আলম লিটন চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম মিন্টু (জাপা এরশাদ) ও মোতাহার উদ্দিন সিদ্দিকী (জাপা এরশাদ) মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মাদারীপুর-২ (রাজৈর-মাদারীপুর) আসন থেকে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান (আওয়ামীলীগ), মোশার্রফ হোসেন (ওয়ার্কস পাটি) ও মো. নুরুল আমিন সানু (জাপা এরশাদ) মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মাদারীপুর-৩ (কালকিনি-মাদারীপুর) আসন থেকে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী কেন্দ ী আওয়ামীলীগের সংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, আব্দুল মালেক (জাপা এরশাদ), হাবিবুর রহমান আজাদ ফকির (বিএনএফ) ও জাকির হোসেন নান্নু (সতন্ত্র) মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

নীলফামারী

নীলফামারীর ৪টি আসনে ১৩জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। নীলফামারী-১ আসনে ডিমলা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন সরকার, জাতীয় পার্টি (এ) থেকে বর্তমান এমপি জাফর ইকবাল সিদ্দীকী এবং জেপি (মঞ্জু) থেকে সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. এন.কে আলম চৌধুরী এবং জাসদের খায়রুল আলম মনোনয়পত্র দাখিল করেছেন। নীলফামারী-২ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ ীয় কমিটির সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক বর্তমান এমপি আসাদুজ্জামান নূর, জাতীয় পার্টি (এ) থেকে আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন এবং জাসদ থেকে আনোয়ারুল ইসলাম রব্বু মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। জলঢাকা উপজেলা এবং কিশোরীগঞ্জ উপজেলার আংশিক এলাকা নিয়ে গঠিত নীলফামারী-৩ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, জাতীয় পার্টির (এ) বর্তমান এমপি কাজী ফারুক কাদের ছাড়াও জাপা নেতা মেজর (অব) সোহেল রানা এবং জাসদ থেকে জেলা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আজিজুল ইসলাম মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ওদিকে অবাঙ্গালী অধ্যুষিত উপজেলা সৈয়দপুর ও কিশোরীগঞ্জের আংশিক এলাকা নিয়ে গঠিত নীলফামারী-৪ আসনে আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি এ.এ.মারুফ সাকলান ও জাতীয় পার্টির (এ) আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

লালমনিরহাট

লালমনিরহাট জেলার ৩টি আসনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। লালমনিরহাট-১ (পাটগ্রাম-হাতীবান্ধা উপজেলা) আসন থেকে মোতাহার হোসেন (আওয়ামী লীগ), এইচ.এম এরশাদ (জাতীয় পার্টি), সাদিকুর ইসলাম (জাসদ), লালমনিরহাট-২ (কালীগঞ্জ-আদিতমারী উপজেলা) আসন থেকে একমাত্র প্রার্থী নুরুজ্জামান আহম্মেদ (আওয়ামী লীগ), লালমনিরহাট-৩ (লালমনিরহাট সদর) আসন থেকে গোলাম মোহাম্মদ কাদের (জাতীয় পার্টি), ইঞ্জিনিয়ার আবু সাঈদ দুলাল (আওয়ামী লীগ), খোরশেদ আলম (জাসদ)।

সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জের ৫টি আসনে জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সুনামগঞ্জে-১(ধর্মপাশা-তাহিরপুর-জামালগঞ্জ) আসনে মোয়াজ্জেম হোসেন রতন দলীয় মনোনয়ন পেলেও সিলেট জেলা আ’লীগের ক্রীড়া সম্পাদক রনজিত সরকার মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ-৩(দক্ষিণসুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর) আসনে আজিজুস সামাদ ডন মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ-৪(সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনে জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমন দলীয় মনোনয়ন পেলেও জেলা আ’লীগের সভাপতি বর্তমান সাংসদ মতিউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা মুকুট, সদর উপজেলা পরিষদ ভাইসচেয়ারম্যান ফেরদৌসি ছিদ্দিকী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

জেপির প্রার্থী হলেন যারা-

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু পিরোজপুর-২ ও ঝালকাঠি-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন। এছাড়া জেপি’র পক্ষে ঢাকা-৮ আসনে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহিম, টাঙ্গাইল-৫ আসনে দলের অতিরিক্ত মহাসচিব সাদেক সিদ্দিকী, কক্সবাজার-১ আসনে প্রেসিডিয়াম সদস্য এ এইচ সালাহ উদ্দিন মাহমুদ, ঢাকা-১৭ আসনে প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল (অবঃ) আব্দুল লতিফ মল্লিক, ঢাকা-১৬ আসনে প্রেসিডিয়াম সদস্য মফিজুল হক বেবু, সুনামগঞ্জ-১ আসনে প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট বদরুদ্দোজা আহমেদ সুজা, পিরোজপুর-৩ আসনে খলিলুর রহমান, বরিশাল-৪ আসনে শেখ মো. জয়নাল আবেদীন, চট্টগ্রাম-৪ আসনে অ.আ.ম হায়দার আলী চৌধুরী, পিরোজপুর-১ আসনে আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি-২ আসনে মো. নাসির উদ্দিন ইমরান, বরিশাল-২ আসনে দেলাওয়ার বিন সিরাজ, বরিশাল-৬ আসনে শাহাজান আলী চিশতী, ভোলা-২ আসনে মোহাম্মদ সালাহ্ উদ্দিন, ঢাকা-২ আসনে মো. সেলিম মিয়া, ঢাকা-৩ আসনে শেখ নাহার, ঢাকা-৫ আসনে মনির হোসেন কমল, ঢাকা-৯ আসনে ডা. এম এ সামাদ, ঢাকা-১১ আসনে মো. আবুল হাসানাত, ঢাকা-১৪ আসনে এম. এ কাইয়ুম, ঢাকা-১৫ আসনে দুলাল আকন, টাঙ্গাইল-২ আসনে আজিজুর রহমান তরফদার (আজিজ বাঙাল), ফরিদপুর-১ আসনে মো. নূরুল আবেদীন, ফরিদপুর-২ আসনে মো. জয়নুল আবেদীন বকুল, ফরিদপুর-৩ আসনে আবু জাফর, ফরিদপুর-৪ আসনে মো. জাকির হোসেন, গোপালগঞ্জ-১ আসনে শেখ ফরিদ আহম্মদ, মুন্সিগঞ্জ-১ আসনে নূর মোহাম্মদ, মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনে নাজমুন্নাহার বেবী, নরসিংদী-১ আসনে মো. সাদেকুর রহমান, মেহেরপুর-২ আসনে আব্দুল হালিম, নরসিংদী-৪ আসনে ওসমান গণি, জামালপুর-৫ আসনে মো. বাবার আলী খান, নেত্রকোনা-২ আসনে আইয়ুব আলী ফনু, রাজবাড়ী-২ আসনে ডা. এস. এম. আবু হোসাইন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে আলহাজ্ব জামিলুল হক বকুল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনে মো. ফরিদ আহমদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসনে খন্দকার হেবজুর রহমান, ফেনী-১ আসনে জাহানারা আরজু, , চট্টগ্রাম-১০ আসনে অ.আ.ম হায়দার আলী চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১১ আসনে পারুল বেগম, চট্টগ্রাম-১৫ আসনে সুখময় চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৬ আসনে অ.আ.ম হায়দার আলী চৌধুরী, গাইবান্ধা-১ আসনে রিজিয়া বেগম প্রামাণিক, গাইবান্ধা-৩ আসনে ফজলে করিম পল্ল¬ব, কুড়িগ্রাম-১ আসনে রশিদ আহমেদ, কুড়িগ্রাম-৪ আসনে রুহুল আমিন, বগুড়া-৬ আসনে আব্দুল মজিদ সরকার, বগুড়া-৭ আসনে এটিএম আমিনুল ইসলাম, পাবনা-১ আসনে মো. ইয়াছিন আরাফাত, নওগাঁ-৪ আসনে মো. সাঈদুর রহমান, রংপুর-২ আসনে মো. খবির উদ্দিন, রংপুর-৩ আসনে রুহুল আমিন, দিনাজপুর-৩ আসনে শাহাদত জামান, দিনাজপুর-৬ আসনে মো. মোজাহিদুল ইসলাম, নীলফামারী-১ আসনে এ্যাড. এন কে আলম চৌধুরী, পঞ্চগড়-১ আসনে আশরাফুল ইসলাম, পঞ্চগড়-২ আসনে এ এইচ এম ফজলুল হক, সিলেট-১ আসনে ইফতেখার আহমেদ লিমন, সিলেট-৬ আসনে এ্যাড. আব্দুল করিম আকবরী, খুলনা-২ আসনে রাশিদা করিম, খুলনা-৩ আসনে শরিফ শফিকুল হামিদ চন্দন, খুলনা-৪ আসনে মেজর অবঃ ড. শেখ হাবিবুর রহমান, সাতক্ষীরা-২ আসনে মহসিন হোসেন বাবলু, সাতক্ষীরা-৪ আসনে গাজী আব্দুল হামিদ, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে এস. এম মঞ্জুর-উল করিম, যশোর-২ আসনে এবিএম সেলিম রেজা, যশোর-৩ আসনে এম. এ ইসমাইল স্বপন, যশোর-৪ আসনে মো. তৌহিদুর রহমান মোল্ল¬া, ঝিনাইদহ-১ আসনে গোলাম মোস্তফা, ঝিনাইদহ-৩ আসনে মো. খালিকুজ্জামান চৌধুরী, কুষ্টিয়া-২ আসনে মো. আব্দুল কুদ্দুছ, কুষ্টিয়া-৩ আসনে জাহাঙ্গীর হোসেন, মেহেরপুর-১ আসনে মো. মোতাছিম বিল্ল¬াহ মতু প্রমুখ মনোনয়ন পেয়েছেন।

সুত্রঃ ইত্তেফাক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here