playজয়ের কাছাকাছি গিয়ে আবারো হারের বেদনায় পুড়ল বাংলাদেশ। মাত্র ১২১ রানের টার্গেট দিয়েও প্রাণপণ লড়েছে স্বাগতিকরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৩ উইকেটে ম্যাচ জিতেছে লঙ্কানরা। ফলে দুই ম্যাচের এই সিরিজে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিল সফরকারীরা।

আজ শুক্রবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চতুর্থ ওভারে সাকিব আল হাসানের বলে এলবিডব্লিউ হন কৌশল পেরেরা। পরের ওভারে তিলকরত্নে দিলশানকে বোল্ড করেন আরাফাত সানি।

সাকিব আর আরাফাতের স্পিনে ব্যাটসম্যানদের নাকাল হতে দেখে সপ্তম ওভারে মাহমুদুল্লাহকে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক। শেষ বলে চান্দিমালকে এলবিডব্লিউ করে শ্রীলঙ্কাকে চাপে ফেলেন এই অলরাউন্ডার।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিং নিয়ে ১৯.৫ ওভারে ১২০ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। লঙ্কান পেসার মালিঙ্গা একাই শিকার করেন তিন উইকেট। এ ছাড়া নুয়ান কুলাসেকারা ও সচিত্রা সেনানায়েকে দুটি করে এবং তিলকরত্নে দিলশান ও অজন্তা মেন্ডিস একটি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেন অভিষিক্ত সাব্বির রহমান। ৩৬ বলে দুটি চারের সাহায্যে ওই রান করেন সাব্বির। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৪ রান করেন এনামুল হক বিজয়। ১৭ বলে দুটি চার ও দুটি ছক্কা হাঁকান এনামুল। এছাড়া সাকিব ৬ বলে ১২ এবং মাশরাফি ১০ বলে করেন ১৭ রান।

জয়ের জন্য ১২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে শ্রীলঙ্কা। এক সময় ১১ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার রান দাঁড়ায় ৫০। এ সময় আউট হন তিলকারত্নে দিলশান (৩), কুশল পেরেরা (২১), দিনেশ চান্দিমাল (৩), ম্যাথিউস (০২) ও কুলাসেকারা (০২)। পরে দলীয় ৯৬ রানে আউট হন সাঙ্গাকারা (৩৮ বলে ৩৭ রান)।

এরপর পেরেরা ও সেনানায়েকে দলের স্কোর টেনে নিয়ে যান। শেষ পর্যন্ত ম্যাচে তৈরি হয় নাটকীয়তা। জেতার জন্য শেষ বলে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন হয় ২ রান। ফরহাদ রেজার বলে সেনানায়েকে চার রান নিয়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

সেনানায়েকে করেন ৯ বলে ১২ রান এবং পেরেরা করেন ২৮ বলে ৩২ রান। মাশরাফি দুটি এবং সাকিব, আরাফাত, রুবেল ও মামুদুল্লাহ একটি করে উকেট নেন।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here