জনতার নিউজ

স্বর্ণকন্যা শিলা নিজ জেলা যশোরের ক্রীড়াঙ্গনে নিষিদ্ধ!

ফাইল ছবি

জলকন্যা মাহফুজা আক্তার শিলাকে নিয়ে দেশজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি হলেও নিজ জেলা যশোরের ক্রীড়াঙ্গনে তিনি নিষিদ্ধ! ১৩ বছর আগে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা তাকেসহ ৯ সাঁতারুকে বহিষ্কার করে। সেই বহিষ্কারের খড়গ আজও মাথায় ঝুলছে তাদের।

ভারতের গোয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান গেমসে মেয়েদের ১০০ ও ৫০ মিটার ব্রেস্ট স্ট্রোকে সোনার পদক তুলে হৈচৈ ফেলে দেন তিনি। সাঁতারের আন্তর্জাতিক আসরে বাংলাদেশের মেয়ের সোনার পদক গলায় পরার এটাই প্রথম রেকর্ড। আবার পুরুষ-মহিলা মিলিয়ে ১০ বছর পর শিলার সাঁতারে সোনা জেতাও বিশেষভাবে তাত্পর্যপূর্ণ।

অথচ সাঁতারের জন্যই নিজ জেলার ক্রীড়া কর্মকর্তাদের কাছ থেকে শিলা পেয়েছেন চরম ভর্ত্সনা। ২০০৩ সালে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা শিলাসহ যাদের বহিষ্কার করে তারা হলেন সাঁতারে ইতিপূর্বে পদকধারী নজরুল, বয়সভিত্তিক সাঁতারে সাফল্য লাভকারী এনামুল ও শাকিল, নাজমা, সাবিনা, লিপি, তানজিলা ও ববিতা।

যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাঁতার উপ-পরিষদের তৎকালীন সম্পাদক নজরুল ইসলাম এদের বহিষ্কারের বিষয়টি মোবাইলে নিশ্চিত করলেও তাদের মধ্যে শিলা ছিলেন না বলে দাবি করেন। তবে শিলার সাঁতারের গুরু গোয়াহাটির এসএ গেমসে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার আব্দুল মান্নান নিশ্চিত করেন তাদের মধ্যে শিলা ছিলেন।

নজরুল ইসলাম জানান, ৯ জন সাঁতারু জেলা দলের হয়ে জাতীয় সাঁতারে অংশ না নিয়ে ক্লাব দলে যোগ দেয়ায় তাদের বহিষ্কার করা হয়। আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য তাদের রেজিস্ট্রি ডাকে চিঠিও পাঠানো হয় বলে দাবি তার। যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার তত্কালীন সাধারণ সম্পাদক মারুফুল ইসলাম  জানান, সে সময়ের ঘটনা তার মনে নেই। তবে সাঁতার নিয়ে মান্নান-নজরুল দ্বন্দ্বের কারণে এমন ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এদিকে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা সাঁতারে সোনাজয়ী শিলাকে সংবর্ধনা দেবে বলে ঘোষণা করেছে। এ ব্যাপারে জানতে জেডিএসএ’র সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব কবীরের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে জানা যায়, তিনি তিন দিন আগে ভারতে গেছেন। ৮-১০ দিন পর দেশে ফিরবেন। সহকারী সাধারণ সম্পাদক মোকছেদ শফির মোবাইলে কল করে ও ম্যাসেজ পাঠিয়েও জবাব পাওয়া যায়নি।

আর জেডিএসএ সভাপতি যশোরের জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ন কবীর বিষয়টি  প্রথম শুনলেন জানিয়ে বলেন, ‘আমরা ও মহিলা ক্রীড়া সংস্থা শিলাকে সংবর্ধনা দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। কিন্তু যারা বহিষ্কার করেছে তারাই যদি সংবর্ধনা দেয়, তাহলে ব্যাপারটা কেমন দাঁড়ায়! আমি জেডিএসএ’র সাধারণ সম্পাদকের সাথে কথা বলে তার বহিষ্কারাদেশ তোলার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেব।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here