noornews

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, নূর হোসেন ও  অনুপ চেটিয়ার বিষয়টিও আলোচনা হয়েছে। তবে অনুপ চেটিয়ার সাজা ভোগের মেয়াদ শেষ হওয়ার কারণে তাকে প্রত্যার্পণের বিষয়টি বন্দী বিনিময় চুক্তির আওতায় পড়বে না। আর নূর হোসেনকে ফিরিয়ে আনার জন্য ভারতের আদালতের রায় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আজ  মঙ্গলবার সোনারগাঁও হোটেলে ভারত-বাংলাদেশ জয়েন্ট ওয়াকির্ং গ্রুপের তিন দিনব্যাপী বৈঠকের প্রথমদিন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

বৈঠকে নেতৃত্ব দেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. কামাল উদ্দিন এবং ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব শম্ভূ শিং।

দু’দেশের মধ্যে বন্দী বিনিময় চুক্তি অনুযায়ী ভারত থেকে বাংলাদেশের ৩২ জন এবং বাংলাদেশ থেকে ১২ জন বন্দি ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত এক কর্মকর্তা বলেন,   ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে সীমান্ত চোরাচালান বন্ধ, অবৈধ অনুপ্রবেশ, মাদক ও জাল নোটের চোরাচালান বন্ধ,  বন্দি বিনিময়, সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া, সীমান্ত হত্যা শুন্যে নামিয়ে আনা,সীমান্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত  বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠকে এ ব্যাপারে সিন্ধান্ত নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, ওর্য়াকিং গ্রপের বৈঠক অত্যান্ত ফলপ্রসু হয়েছে। সচিব পর্যায়ের বৈঠকে যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে এর মধ্যে দুই দেশের স্থল সীমান্ত চুক্তির বিষয়টি গ্রুরুত্ব পাবে। পাশাপাশি গত কয়েক মাসে সীমান্ত এলাকায় বিএসএফ’এর হাতে বাংলাদেশীদের তালিকা দেয়া হবে। কারণ সীমান্ত হত্যা শুন্যের কোটায় আনার ব্যাপারে ভারত বার বার আশ্বাস দেয়া মত্বেও কেন তা বাস্তবায়ন হচ্ছেন নে বিষয়ও আলোচনা হবে। এ ছাড়াও  ভারতে পাচারের পর  বিভিন্ন সংস্থার হাতে উদ্ধার হয়ে সেফ হোমে থাকা বাংলাদেশীদের কিভাবে ফিরিয়ে আনা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here