newআওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুইস ব্যাংক থেকে দেশের টাকা ফিরিয়ে আনার ঘোষণা দেয়ার পর পরই বিএনপির নেতাদের মধ্যে অস্বস্তি পরিলক্ষিত হচ্ছে। এতে প্রমাণিত হয় সুইস ব্যাংকে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া এবং তার পুত্র তারেক-কোকোর টাকা রয়েছে।’ আজ মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম লীগ আয়োজিত ‘সন্ত্রাস নির্মূলে প্রজন্ম লীগের করণীয় ও চলমান রাজনীতি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।

‘তারেক রহমানের বিলাসবহুল জীবনযাপনের অর্থের উত্স অনুসন্ধান করার জন্য সরকারকে অনুরোধ জানিয়ে’ হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ভারতের নির্বাচনের পর খালেদা জিয়া, বিএনপি নেতারা ও জনগণ-প্রত্যাখ্যাত কিছু রাজনীতিবিদ পুঁটি মাছের মতো লাফালাফি ও ব্যাঙের মতো গর্জন শুরু করেছিল। কিন্তু ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সফরের পর তাদের লাফালাফি ও গর্জন বন্ধ হয়ে গেছে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সুষমা স্বরাজ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর জন্য তার আমন্ত্রণপত্র নিয়ে এসেছিলেন, ‘তাতে উল্লেখ ছিল, বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের একটি উত্কৃষ্ট উদাহরণ।’

বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আপনাদের সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। এখন জনগণের কাছে যান। বিদেশি নয়, জনগণ আপনাদের গ্রহণ করলে আগামী নির্বাচনে আপনারা ক্ষমতায় আসতে পারবেন।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্র এবং সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা বজায় রাখা সম্ভব হয়েছে।’

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ মুন্না খানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া প্রমুখ।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here