জনতার নিউজ

সীতাকুণ্ডের সেই শিশুটি থানা হেফাজতে

সুন্দর ফুটফুটে শিশুটি। সীতাকুণ্ড মডেল থানায় এক নারী পুলিশ সদস্যের কোলে শুয়ে নিষ্পাপ চোখ মেলে দেখছিল চারপাশ। তার মা-বাবা যে সর্বনাশের পথে পা বাড়িয়েছে, সে সম্পর্কে তার কিছুই জানার কথা নয়। মা-বাবা পুলিশের হাতে আটক। পারিবারিক পরিবেশ ছেড়ে তাই তার ঠাঁই হয়েছে থানা হেফাজতে। সেদিন যদি এই শিশুটির মা আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরন ঘটাতে পারতেন তাহলে আজকে এই শিশু বেঁচে থাকার কথা ছিল না, কত নির্দয় হলে  বা কতটুকু ব্রেন ওয়াশ হলে একটা গর্ভধারীনি মা এমন একটা নিষ্পাপ শিশু সহ নিজের ও পরিবারের জীবন বিষর্জন দিতে পারে তার কোন উত্তর আজো সমাজ বিজ্ঞানীরা খুঁজে পায় নাই।

গত বুধবার উপজেলার ৭নং ওয়ার্ডের আমিরাবাদ গ্রামে জঙ্গি আস্তানা সাধন কুটির থেকে আটক করা হয় মো. জসিম উদ্দিন (২৪) ও তার স্ত্রী আরজিনা বেগমকে (১৯)। সঙ্গে ছিল তাদের ৬ মাস বয়সী সন্তান মোসলেন। মা-বাবার সঙ্গে তাই তাকেও আনা হয়েছে থানায়। জসিম ও আরজিনাকে থানার আলাদা আলাদা কক্ষে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাখা হয়েছে। একজন নারী পুলিশ সদস্য বাচ্চাটিকে সারাক্ষণ দেখাশোনা করছেন। শুধু দুধ খাওয়ানোর জন্য সময়মতো তাকে মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। থানা সূত্রে জানা গেছে, যেহেতু শিশুটি খুব ছোট। সে কারণে তাকে আপাতত তার মায়ের কাছাকাছি রাখা হতে পারে।

থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইফতেখার হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আটকের পর থেকে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে তারা মুখ খুলছে না। শিশুটির ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপাতত আমাদের এক নারী সহকর্মী তাকে দেখছেন। তার ব্যাপারে পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here