জনতার নিউজ
আগামী মধ্য সেপ্টেম্বরে বড় ধরনের জনসমাবেশ ঘটিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে হটানোর পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। বিএনপির সঙ্গে এই ষড়যন্ত্রে যুক্ত আছে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। বিক্ষোভের সময় সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাও সরকারবিরোধী বক্তব্য দেবেন বলে গোয়েন্দারা জানিয়েছেন। আন্তর্জাতিক অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘লুকইস্ট’ গত ২২ আগস্ট গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, বিএনপি এবার তার কৌশলে পরিবর্তন আনছে। গত নির্বাচনের আগে বিএনপি এবং তাদের মৌলবাদী মিত্র মিলে গণপরিবহনকে টার্গেট করে মানুষের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি করে। গণপরিবহনে বোমা হামলা চালিয়ে অনেক নীরিহ মানুষকে হত্যা করে। তাদের লক্ষ্য ছিল এর মাধ্যমে সামরিক বাহিনীকে হস্তক্ষেপ করাতে বাধ্য করা। কিন্তু সেই পরিকল্পনা সফল হয়নি। এখন বিএনপি মনে করছে, সামরিক বাহিনীর মাধ্যমে শেখ হাসিনার সরকারকে হটানো সম্ভব নয়।
গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে বিএনপির সিনিয়র নেতারা বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (আইএসআই) এর দুইজন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। বিরোধীদের আগামী বৈঠক হবে থাইল্যান্ডের ব্যাংককে। চলতি মাসের শেষ দিকে বৈঠকটি হওয়ার কথা রয়েছে।
সিঙ্গাপুরের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে রাস্তায় বিক্ষোভের মধ্যেই সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যা করা হবে। বিক্ষোভকে গণরোষে রূপ দেওয়া হবে। আওয়ামী লীগ কর্মীদের মনোবল ভেঙে দিয়ে নির্বাচন বানচাল করা হবে। দলের প্রতি কর্মীদের অঙ্গীকারাবদ্ধের নীতি ভাঙতে হবে।
উল্লেখ্য, এর আগে দৈনিক ইত্তেফাকে ‘টার্গেট কিলিং’ নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। সিঙ্গাপুরের বৈঠকে বিরোধী নেতারা একমত হন যে, কোটা সংস্কার এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলন নিয়ন্ত্রণে পুলিশের সামর্থ্য ছিল না। বিএনপির পরিকল্পনা সম্পর্কে গোয়েন্দারা তথ্য পাওয়ার পর সরকারের মধ্যে আলোচনা চলছে আওয়ামী লীগ ভক্ত একজন কর্মকর্তাকে পুলিশের শীর্ষ পদে বসানো নিয়ে। গোয়েন্দারা আরো জানতে পেরেছে যে মিডিয়া এবং প্রশাসনকে ম্যানেজ করতে বিএনপি ব্যাপক অর্থ খরচ করারও পরিকল্পনা করেছে।
এই ষড়যন্ত্র সম্পর্কে র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যে কোনো ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করার জন্য র্যাব প্রস্তুত রয়েছে। সার্বক্ষণিক গোয়েন্দারা মনিটরিং করছে। যে কোনো ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড কঠোর হস্তে দমন করা হবে।
লুকইস্ট এর প্রতিবেদনের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি কোনো ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। বিএনপি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি করে। তাই ক্ষমতায় যেতে কারো সঙ্গে হাত মেলায় না। সিঙ্গাপুরের ওই বৈঠক সম্পর্কে তিনি বলেন, এই ধরনের কোনো বৈঠক বিএনপি করেনি। এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা।
শেয়ার করুন
  • 49
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here