b-joyসজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, ‘সৌভাগ্যজনকভাবে, সরকার প্রায় সব জায়গায় সহিংসতা প্রতিরোধে সক্ষম হয়েছে। ১৮০০০ এর মাঝে মাত্র ১৬০ বা তার কাছাকাছি ভোটকেন্দ্র আক্রান্ত হয়েছে যা প্রায় ০.৮%। আনুমানিক ১০,০০০ স্থানীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক, কিছু দক্ষিণ এশিয়ান নির্বাচন পর্যবেক্ষক, ২০ বা তার কাছাকাছি টিভি চ্যানেল, অগণিত সংবাদপত্র এই নির্বাচন নিরীক্ষণ করেছে। কোন ধরনের নির্বাচনী অনিয়ম হয়েছে বলে রিপোর্ট হয়নি।’ গতকাল রবিবার রাতে ফেইসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি এ কথা বলেন।

সজীব ওয়াজেদ বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত তাদের হামলা অব্যাহত রেখেছে। তারা কিছু ভোটকেন্দ্র ও নিরীহ নাগরিকদের গায়ে অগ্নিসংযোগ করেছে। তারা একজন নির্বাচনী কর্মকর্তাকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে এবং অন্য একজনের হাতগুলো ভেঙ্গে দিয়েছে। তারা আমাদের দলের কিছু নির্বাচনী কর্মী ও ভোটারদের তাদের ভোটদানের পর ছুরিকাঘাত করেছে এবং তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

তিনি বলেন, হামলার ভয়ে দিনের শুরুর দিকে ভোটারদের ভোটদানের হার ধীর ছিলো। আমার কোন সন্দেহ নাই যে, বিএনপি-জামায়াত তাদের সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে না গেলে ভোটাদের ভোটদানের হার ৫০% ছাড়িয়ে যেতে পারত।’

সজীব ওয়াজেদ আরো বলেন, ‘আমি সেইসব ভোটারদের ধন্যবাদ জানাতে চাই যারা সেই চেতনাকে ধারণ করে বের হয়ে এসেছেন এবং ভোট দিয়েছেন। আপনারা গণতন্ত্রের পক্ষে সন্ত্রাস এবং মৌলবাদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।’

স্ট্যাটাসে তিনি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, ‘এটা ছিল সন্ত্রাসের মুখে তাদের অসাধারণ সংগ্রাম।’

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here