5221fca83d127-khaleda-ziaবর্তমান সংকট নিরসনে সরকার পদক্ষেপ নিলে তাৎক্ষণিকভাবে হরতাল প্রত্যাহার করা হবে—বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া এ কথা বলেছেন বলে দাবি করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী।

আজ সোমবার রাতে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও বিকল্পধারার দুটি প্রতিনিধিদল খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে তাঁর বাসভবনে যায়।সেখান থেকে বেরিয়ে এসে কাদের সিদ্দিকী সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আমরা তাঁকে হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছি।এর জবাবে খালেদা জিয়া স্পষ্ট করে বলেছেন, ‘‘সরকার পদক্ষেপ নিলে তাৎক্ষণিকভাবে হরতাল প্রত্যাহার করব।’’’

সরকার কী ধরনের পদক্ষেপ নিলে হরতাল প্রত্যাহার করা হবে, এমনটি জানতে চাইলে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘ব্যবস্থাটা অতি সোজা। মন্ত্রীরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন, এটি না করে প্রধানমন্ত্রী বলতে পারেন আমাদের পুরো মন্ত্রিসভাই পদত্যাগ করলাম।’

সংবিধান অনুসারে বর্তমান সরকার বৈধ নয় দাবি করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গাছের গোড়া কেটে আগায় পানি ঢালছেন।এতে গাছ দাঁড়িয়ে থাকবে না।প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করলে ১৬ কোটি না হোক ১২ বা ১৫ কোটি মানুষের মুখে হাসির ঝিলিক দেখা যাবে।’ তিনি দেশের ‘শান্তির জন্য’ প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তিনি পদত্যাগ করে নতুনভাবে পথচলা শুরু করতে পারেন।

মন্ত্রিসভার পদত্যাগপত্র জমা দেওয়াকে ‘নাটক’ উল্লেখ করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আপনা-আপনি মন্ত্রীদের পদত্যাগ হয়ে যাওয়ার কথা।কিন্তু এখন যেভাবে পদত্যাগ করছে সংবিধানে তার কোনো বিধান নেই।’ তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক মন্ত্রী পদত্যাগ করবেন।যতক্ষণ বিকল্প না থাকবে ততক্ষণ রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীকে স্বাভাবিক কাজকর্ম চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানাবেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, খালেদা জিয়ার বাসার পানির লাইন কেটে দেওয়া হয়েছে এবং তাঁর স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত করা হয়েছে।এসব কারণেই তাঁকে সহমর্মিতা জানাতে তাঁরা খালেদা জিয়ার বাসায় এসেছিলেন।

বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নান বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে জাতি শঙ্কিত।জাতি এ অবস্থার উত্তরণ চায়।তিনি বলেন, বিরোধী দল থেকে বলা হয়েছে, সরকারই পারে এ অবস্থা প্রশমিত করতে।সরকার কী পদক্ষেপ নেবে বিরোধী দল তা দেখার অপেক্ষা করবে।

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here