joy
১৯৯৬, ২০০৬ এবং আজকের মধ্য একটি পার্থক্য হচ্ছে আমাদের আওয়ামী লীগ সরকার কোন নির্বাচনে কারচুপি করেনি। ১৯৯৬ সালে বিএনপি মাগুরা উপ-নির্বাচনে কারচুপি করেছিলো। এরপর তারা এককভাবে অংশ নেয়া জাতীয় নির্বাচনেও কারচুপি করেছিলো। ২০০৬ সালে এসে তারা ভোটার তালিকায় জালিয়াতি করে ১ কোটি ৪০ লাখ ভুয়া ভোটার তালিকাভুক্ত করেছিলো। যার কারণে আওয়ামী লীগকে রাজপথে আন্দোলন বেছে নিতে হয়েছিলো। শুধুই আপনাদের ভোটাধিকার রক্ষার জন্য।
আজ আমাদের প্রায় ৬০০০ স্থানীয় নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমার মা নিজে বারংবার বিরোধীদলকে সংলাপে আসার আহবান জানিয়েছেন। তাহলে এই সহিংসতার প্রয়োজন কি? ২০০৬ সালে তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা ছিলো, কিন্তু বিএনপি সরকার গায়ের জোরে এটি দখলে নিলো ইয়াজু্দ্দিনের সংবিধানের ৭ টি ধাপ উপেক্ষা করে নিজেকে প্রধান উপদেষ্টা ঘোষনা করার মাধ্যমে। তাই, তত্বাবধায়ক সরকার কি ভালো কিছু বয়ে এনেছিলো?

২০০৬ সালে আমাদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনরত সংসদ সদস্য সাবের চৌধরী এবং সোহেল তাজের উপর পুলিশের বর্বরচিত হামলা হয়েছিলো, সেই সথা আমাদের কর্মীদেরও পুলিশ নির্মমভাবে পিটিয়েছিলো যার ফলে আমার মা আমাদের কর্মীদের লগি বৈঠা হাতে রাস্তায় বের হতে বলেছিলেন। একটি পুলিশ ভ্যান আমাদের কর্মীদের উপর দিয়ে চলিয়ে নিয়ে তাদের হত্যা করা হয়। মানুষ কি তা ভুলে গিয়েছে? বিএনপি তার কর্মীদের দা কুড়াল নিয়ে বের হয়ে আসতে বলে। লগি বৈঠা আর দা কুড়ালের মাঝে বিশাল পার্থক্য রয়েছে, দা-কুড়াল হত্যার কাজে ব্যবহার হয়। আমরা চেয়েছিলাম আমাদের কর্মীরা যেন শুধু আত্মরক্ষা করতে পারে। আর বিএনপি তাদের লোকদের বলছে হত্যা করতে।

কেন খালেদা জিয়া সংলাপের জন্য হুমকি দেন, যেখানে তাকে বারংবার আমন্ত্রন জানানো হয়েছে সংলাপে বসবার? কেন তারা ককটেল এবং বোমা ছুড়ে মারে?

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, কেন তারা যুদ্ধাপরাধীদের মুক্তি দাবী করে?

শেয়ার করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here